1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

দেখতে দেখতে দশ বছর পূর্ণ করলো ফেসবুক

আজ থেকে ঠিক ১০ বছর আগে অর্থাৎ ২০০৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি পথ চলা শুরু হয়েছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের৷ ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে গেছে এটি৷ ঘটিয়েছে সামাজিক বিপ্লব৷

হাতের মুঠোয় পৃথিবী

ফেসবুক পৃথিবীটাকে খুব ছোট করে ফেলেছে, বাড়িয়েছে পরস্পরের সাথে যোগাযোগ – এমনটাই মনে করেন ‘গ্লোবাল ইকুইটিস রিসার্চ'-এর বিশ্লেষক ট্রিপ চৌধুরী৷ ফেসবুক সমাজে বিপ্লব ঘটিয়েছে বলে মনে করেন তিনি৷ ট্রিপ জানান, বিশ্বের প্রায় একশ কোটি মানুষের দৈনন্দিন জীবনের অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে ফেসবুক৷

সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক সাকারবার্গ ফেসবুকের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে সংবাদ সংস্থা এএফপিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ফেসবুকের উদ্দেশ্য ছিল সবার সামনে বিশ্বকে তুলে ধরা এবং বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করা৷

সাকারবার্গ জানান, ১০ বছর আগে যখন হার্ভার্ডের ছোট ডরমেটরিতে ফেসবুক যাত্রা শুরু করেছিল, তখনো এত বড় স্বপ্ন দেখেননি তিনি৷ যা তিনি কল্পনাও করেননি ফেসবুক আজ সেখানে দাঁড়িয়ে আছে৷

Mark Zuckerberg lacht

সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক সাকারবার্গ

সব বয়সের মানুষের জন্য

ফেসবুকের মূল উদ্দেশ্য যদিও ছিল তরুণ ও যুব সম্প্রদায়ের মনোযোগ আকর্ষণ, কিন্তু এখন সব বয়সের মানুষের কাছেই তা ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে৷ প্রতি মাসে মোট ১২৩ কোটি মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করেন৷ কেবল মোবাইলেই ব্যবহার করেন ৯৪ কোটি ৫০ লাখ৷

গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘আই স্ট্র্যাটেজি ল্যাব' সম্প্রতি ফেসবুক ব্যবহারকারীদের উপর একটি গবেষণা করেছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে ১৩ থেকে ১৭ বছর বয়সি যাঁরা ফেসবুক ব্যবহার করেন তাঁদের ফেসবুক ব্যবহারের মাত্রা ২৫ শতাংশ কমে গেছে৷ অন্যদিকে ৫৫ বছরের বেশি বয়সিদের ফেসবুক ব্যবহারের মাত্রা ৮০ ভাগ বেড়ে গেছে৷

গবেষণা সংস্থা ‘স্যোশাল বেকারস' বলছে, তাদের তথ্য অনুযায়ী, ফেসবুক ব্যবহারকারীর একটা বড় অংশ এখনও যুব সম্প্রদায়৷ গ্রুপের কর্ণধার বেন হার্পারের মতে, ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সিদের ফেসবুক ব্যবহারের মাত্রা বেশি৷

লাভের মাত্রা কয়েক গুণ

গত বছরটি ফেসবুকের জন্য ছিল আশীর্বাদ৷ ঐ বছর এ লাভ এক লাফে দেড়শ কোটি ডলারে পৌঁছেছে৷ যেখানে ২০১২ সালে এর লাভ ছিল মাত্র ৫ কোটি ৩০ লাখ ডলার৷ ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে গুগলের পরই ফেসবুকের অবস্থান৷ অর্থাৎ ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রাহক এখন ফেসবুক৷

যুক্তরাষ্ট্রকে পেছনে ফেলবে ভারত

Facebook Mobil Smartphone

মোবাইলে ফেসবুক ব্যবহারের সংখ্যা বাড়ছে

ফেসবুক যখন ১০ বছর পূর্তি উদযাপন করছে, তখন পশ্চিমা বিশ্বের চেয়ে এশিয়ার অর্থনীতিতে এটি বড় ভূমিকা রাখছে৷ ২০১৪ সালে সবচেয়ে বেশি ব্যবহারকারীর দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে পেছনে ফেলতে যাচ্ছে ভারত৷ বর্তমানে ভারতে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৯ কোটি ৩০ লাখ, যা এই বছরে ১৫ কোটিতে উন্নীত হতে পারে৷ ই-মার্কেটার এর অনুমান এ বছরের শেষ নাগাদ ভারতে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা দাঁড়াবে ১৫ কোটি ২৪ লাখ৷ যেখানে যুক্তরাষ্ট্রে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৫ কোটি ১১ লাখ৷

ভারতে মোবাইলে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বাড়ছে বলে এএফপিকে জানিয়েছেন ভারতে ফেসবুকের উন্নয়ন এবং মোবাইল সহযোগিতা প্রধান কেভিন ডি'সুজা৷ তাই তিনি ফিচার ফোন নিয়ে ভাবছেন৷ ফেসবুক, গুগলের মতো নির্দিষ্ট কিছু সেবা ব্যবহার করা যায় এমন ফোনই হচ্ছে ‘ফিচার ফোন'৷ ভারতের ১২০ কোটি মানুষের ৪০ ভাগেরও বেশি মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন৷ তবে মাত্র ৫ শতাংশ স্মার্ট ফোন ব্যবহার করেন৷

‘নকিয়া আশা ৫০১' ফিচার ফোন এরই মধ্যে ভারতের বাজারে এসেছে, এতে ফেসবুক ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে৷ অন্যদিকে ভারতের টেলিকম জায়ান্ট ভারতী এয়ারটেল গত মাসে ঘোষণা করেছে স্থানীয় নয়টি ভাষায় মোবাইলে প্রিপেইড গ্রাহকদের ফ্রি ফেসবুক ব্যবহারের সুবিধা দেবে তারা৷

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেসবুক এশিয়ার বাজার ধরতে সক্ষম হয়েছে৷ চীনে ২০০৯ সালে ফেসবুকের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর এশিয়ায় ফেসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে ভারতের পরেই ইন্দোনেশিয়ার অবস্থান৷

এপিবি/এআই (এএফপি,এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়