1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে৷ বুধবার দুপরে তিনি আদালতে হাজির হয়ে অভিযোগ গঠনের জন্য সময় চাইলে, আদালত তা গ্রহণ করেনি৷

Bangladesch Khaleda Zia vor den Wahlen

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া (ফাইল ফটো)

বুধবার বেলা ১টার দিকে খালেদা জিয়া এই দুটি মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে যান৷ তবে তার আগেই তাঁর আইনজীবীরা শুনানির পরবর্তী তারিখ ধার্য করার জন্য আবেদন করেন৷ বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায় এই আবেদন খারিজ করে দিলে আদালতকক্ষে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা হইচই করেন৷ দু'দফা হইচই-এর মুখে বুধবারই অভিযোগ গঠনের আদেশ দেওয়া হবে বলে বিচারক এজলাস ত্যাগ করেন৷

এরপর বেলা ২টার দিকে বিএনপিপন্থি চারজন আইনজীবী মামলা থেকে খালেদা জিয়ার অব্যাহতি চেয়ে করা আবেদন নিয়ে বিচারকের খাস কামড়ায় যান৷ সেখান থেকে বের হয়ে এসে তাঁরা সোয়া দু'টোর দিকে আবারও বিচারকের কাছ যান৷ এ সময় আরো সময় চেয়ে করা আবেদনটি খারিজ করে আদালত যে আদেশ দিয়েছে, তা পুনর্বিবেচনার জন্য আবারো সময় চেয়ে আবেদন জানান তাঁরা৷ কিন্তু কোনো আবেদনই আদালত গ্রহণ করেনি৷ দুপুরের পর বিচারক দু'টি মামলায় অভিযোগ গঠনের নির্দেশ দেন৷

অভিযোগ গঠনের আদেশের পর খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের একজন সানাউল্লাহ মিয়া জানান, ‘‘এই আদালতের প্রতি তাঁদের কোনো আস্থা নেই৷ এই আদালতের কাছে তাঁরা ন্যায় বিচার পাবেন না৷'' তিনি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা দু'টি মামলাকেই মিথ্যা এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে অভিহিত করেন৷

ওদিকে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু বলেনে, ‘‘এই মামলা দু'টি নিয়ে অনেক সময় নষ্ট করা হয়েছে৷ এর আগেও অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন পিছানো হয়েছে৷ আসামিপক্ষ আসলে মামলা দু'টির বিচার বাধাগ্রস্থ করতেই এই কৌশল নিয়েছিল৷''

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে ২০১১ সালের ৮ই আগস্ট খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে তেজগাঁও থানায় মামলা করেন দুর্নীতি দমন কমিশন বা দুদক-এর সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ৷ এর আগে ২০০৮ সালের ৩রা জুলাই রমনা থানায় খালেদা জিয়াসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলা করা হয়৷ দু'টি মামলায় যথাক্রমে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার এবং ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে৷ মামলা দু'টিতে খালেদা জিয়া এবং তাঁর বড় ছেলে তারেক রহমানসহ মোট আসামি ১০ জন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়