1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দুদকও সন্দেহ করে আবুল হাসান চৌধুরীকে

পদ্মা সেতু দুর্নীতির ব্যাপারে দুদকের সন্দেহের তালিকায় এবার সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী৷ ক্যানাডা পুলিশের তদন্তে তাঁর নাম আসার পর একথা জানান দুদক চেয়ারম্যান৷এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আবুল হাসান চৌধুরী৷

দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে বিশ্বব্যাংক বহুল আলোচিত পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থছাড় বন্ধ করে দেয়ার পর, বাংলাদেশের পাশাপাশি অনুসন্ধান শুরু হয় ক্যানাডাতেও৷ বুধবার ক্যানাডার গণমাধ্যমগুলো বলেছে, অনুসন্ধানের পর রয়েল ক্যানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ এই সেতু নির্মাণ প্রকল্পে অনিয়মের অভিযোগে ক্যানাডিয়ান কোম্পানি এসএনসি-লাভালিনের সাবেক এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাসহ তিনজনকে অভিযুক্ত করেছে৷ এর মধ্যে আছেন বাংলাদেশের সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরীর নামও৷

দুদক চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামান জানান, দুদকের করা মামলাতেও সন্দেহভাজনদের তালিকায় আবুল হাসান চৌধুরীর নাম আছে৷ ক্যানাডার পুলিশের তদন্তে আবুল হাসানের নাম আসায় দুদকের তদন্ত যে স্বচ্ছ ছিল, তাও দাবি করেন দুদক চেয়ারম্যান৷ তিনি বলেন, এতে দুদকের তদন্ত যে স্বচ্ছতার সঙ্গে এগিয়ে চলেছে তা প্রমাণিত হলো৷ প্রসঙ্গত, এখনো পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির তদন্ত অব্যাহত আছে৷ দুদক চেয়ারম্যান জানান, যাদের বিরুদ্ধে তথ্য প্রমাণ পাওয়া যাবে তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না৷

এদিকে দুদক কমিশনার মো. শাহবুদ্দিন বলেছেন, ক্যানাডা পুলিশ ও দুদকের নিজস্ব তথ্য মিলে তদন্ত আরও সমৃদ্ধ হবে৷ এ বিষয়ে আরও বিশদভাবে জানার সুযোগ তৈরি হলো বলে জানান তিনি৷ তিনি বলেন, কেউ যদি মনে করেন পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির তদন্ত ধামাচাপ পড়ে গছে তাহলে ভুল করবেন৷ সময় হলেই সব কিছু প্রকাশ করা হবে৷ দায়ীদের আনা হবে আইনের আওতায়৷

Bangladesch unterzeichnet Kredit mit der Islamischen Entwicklungsbank

দুদক চেয়ারম্যান জানান, দুদকের করা মামলাতেও সন্দেহভাজনদের তালিকায় আবুল হাসান চৌধুরীর নাম আছে

অন্যদিকে, যাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ সেই আবুল হাসান চৌধুরী ক্যানাডা পুলিশের অভিযোগে তাঁর নাম আসায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, কোনো ধরনের অনিয়মের সঙ্গে তিনি যুক্ত নন৷ তাঁর দাবি, কোনো প্রতিষ্ঠানের ঠিকাদারির জন্য তিনি কোনো রকম দুর্নীতি করেননি বা ঘুসের প্রস্তাব দেননি৷

তাই আদতে তিনি কোনো ষড়যন্ত্রের শিকার কিনা – তা সরকারের খতিয়ে দেখা দরকার বলে মনে করেন সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল আহসান চৌধুরী৷

এই ঘটনায় সরকার ও বিরোধী দল আবারো পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতি নিয়ে বিতর্ক শুরু করেছে৷ বিএনপি নেতারা বলেছেন, আবারো প্রমাণ হলো যে সরকারই সরাসরি পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত৷ কারণ আবুল হাসান চৌধুরী সাবেক আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন৷

ওদিকে সরকারের মন্ত্রীরা বলছেন, আবুল হাসান চৌধুরী এই সরকারের কেউ নয়, তিনি সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী৷ আর এতেই প্রমাণ হয় যে, বর্তমান সরকারে কেউ দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত নন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন