1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দুই বিদেশি হত্যারই সুরাহা করল পুলিশ

সাম্প্রতিককালে দু'জন বিদেশি নাগরিক খুন হয়েছেন বাংলাদেশে৷ দু'টিরই হত্যারহস্য উদঘাটন করা হয়েছে বলে দাবি করছে পুলিশ৷ তবে তাবেলা সিজার হত্যা মামলায় অভিযুক্তদের নিয়ে সংশয় রয়েছে৷

গত এক বছরে বাংলাদেশে যে দু’জন বিদেশি নাগরিক নিহত হয়েছেন তাঁদের একজন ইটালির নাগরিক তাবেলা সিজার, অন্যজন জাপানের নাগরিক হোশি কুনিও৷ তাবেলা সিজারকে রাজধানীতেই খুন করা হয়৷ জাপানের নাগরিক হোশি কুনিও খুন হয়েছেন রংপুরের এক নিভৃত পল্লিতে৷ তাবেলা সিজার হত্যার ঘটনায় ইতিমধ্যে আদালতে অভিযোগ-পত্র দাখিল করেছে পুলিশ৷ হোশি কুনিও হত্যারহস্যও উদঘাটন করার দাবি করছে পুলিশ৷ কয়েকদিনের মধ্যেই আদালতে অভিযোগ-পত্র দেয়া হবে বলে রংপুরের পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাক ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন৷ তবে তাবেলা সিজার হত্যা মামলায় যাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে তাদের নিয়ে জনমনে সন্দেহ রয়েছে৷

গত মঙ্গলবার আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা, ডিবি পুলিশের পরিদর্শক গোলাম রাব্বানী তাবেলা সিজার হত্যা মামলার চার্জশিটটি জমা দেন৷ চার্জশিটটি আদালতে উপস্থাপনের পর তা আগামী ৪ আগস্ট ধার্য তারিখে শুনানির জন্য রেখে দেওয়া হয়৷ চার্জশিটে বিএনপি নেতা এম এ কাইয়ুম, তার ছোট ভাই আবদুল মতিন, তামজিদ আহমেদ ওরফে রুবেল ওরফে শুটার রুবেল, রাসেল চৌধুরী ওরফে চাক্কি রাসেল, মিনহাজুল আরেফিন রাসেল ওরফে ভাগনে রাসেল ও শাখাওয়াত হোসেন ওরফে শরিফ ও মো. সোহেল ওরফে ভাঙ্গারি সোহেলকে আসামি করা হয়েছে৷

অডিও শুনুন 01:00

‘‘আগামী দু'তিন দিনের মধ্যে আদালতে অভিযোগ-পত্র দেয়া হবে’’

২০১৫ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গুলশান ২-এর ৯০ নম্বর সড়কে তাবেলা খুন হন৷

তামজিদ, রাসেল চৌধুরী, মিনহাজুল ও শাখাওয়াত আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন৷ মতিনসহ স্বীকারোক্তি দেয়া চারজন কারাগারে এবং কাইয়ুম ও সোহেল পলাতক রয়েছে৷ চার্জশিটে বলা হয়েছে, আসামি রাসেল চৌধুরী ও মিনহাজুল হত্যাকাণ্ডের নির্দেশদাতা হিসেবে এম এ মতিনের নাম বলেছেন৷ তবে মতিন রিমান্ডে ডিবির কাছে তাবেলা হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলেও আদালতে স্বীকারোক্তি দেননি৷

অতিরিক্ত পিপি আনোয়ারুল কবির বাবুল ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এখন চার্জশিট দাখিল হয়েছে৷ শিগগিরই বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে৷''

তবে ইতালির নাগরিক তাবেলা সিজার হত্যার ঘটনায় যাকে প্রধান অভিযুক্ত করা হয়েছে তিনি বিএনপির ঢাকা মহানগরের যুগ্ম আহবায়ক ও সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার৷ বিএনপির পক্ষ থেকে এই অভিযোগ-পত্র রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করা হয়েছে৷ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করেছেন, তাবেলা সিজার হত্যাকাণ্ডের পরপরই কোনো আইনি প্রক্রিয়া ব্যতিরেকেই জঙ্গিবাদের সাথে বিএনপিকে যুক্ত করতে ঢাকা মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এম এ কাইয়ুমকে অভিযুক্ত করে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়৷

অডিও শুনুন 00:28

হোসিও কুনি হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে রংপুরের পুলিশ সুপারের বক্তব্য

এখন সেই মামলায় কাইয়ুমসহ সাতজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয়া হলো৷ আসলে সরকার জঙ্গিবাদ দমন করার পরিবর্তে বিএনপিসহ বিরোধী দল দমনেই ব্যস্ত থাকার কারণে দেশে জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে৷

এদিকে তাবেলা সিজারের হত্যাকাণ্ড বিএনপি নেতার নেতৃত্বে হলেও রংপুরে হোশি কুনিও হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে জঙ্গিরাই৷ রংপুরের পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাক ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এই হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়েছে আটজন৷ এর মধ্যে চারজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে৷ তিন জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছে৷ বাকি চারজন আসামী ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রটি উদ্ধার করা যায়নি৷ আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে আদালতে অভিযোগ-পত্র দেয়া হবে৷''

হোশি কুনিও হত্যার দায় স্বীকার করেছিল তথাকথিত জঙ্গিগোষ্ঠি ইসলামিক স্টেট বা আইএস৷ সংগঠনটি তাদের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে করা এক টুইটে এ দায় স্বীকার করে৷ এক বছরের ভিসা নিয়ে হোশি বাংলাদেশে এসেছিলেন৷ রংপুরের মাহিগঞ্জ এলাকায় তিনি একটি কৃষি প্রকল্প পরিচালনা করছিলেন৷ সকালে ভাড়া বাসা থেকে রিকশাযোগে মাহিগঞ্জ যাওয়ার সময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়৷ এরপর হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করে৷

বন্ধু, বাংলাদেশ কি একটা সন্ত্রাসবাদের আখড়াতে পরিণত হচ্ছে? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়