1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দিল্লিতে পরমাণু শক্তি-বিরোধী বিক্ষোভ

সারা দেশের ডজন খানেক নাগরিক সংগঠন আজ দিল্লিতে সংসদ ভবনের সামনে পরমাণু বৈদ্যুতিকীকরণসহ সব রকম পরমাণু কর্মসূচি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ দেখায়৷ পরিবেশ-বান্ধব বিকল্প শক্তি উৎপাদনের সপক্ষে তারা জোরালো আওয়াজ তোলে৷

default

পরমাণু শক্তি বিরোধী প্রতিবাদ

পরমাণু শক্তি-বিরোধী সংগ্রাম ফোরামের অধীনে দেশের ডজন খানেক নাগরিক সংগঠন আজ সংসদ ভবনের অদূরে ভারতের পরমাণু বিভাজন ও পরমাণু অস্ত্রসহ সবরকম পরমাণু কর্মসূচি ও প্রকল্প স্থগিত রেখে দূষণমুক্ত বিকল্প বিদ্যুৎশক্তি উৎপাদনের দাবিতে বিক্ষোভ দেখায়৷ এবং নিরপেক্ষ বিশেষজ্ঞদের দিয়ে চলতি পরমাণু কেন্দ্রগুলির সুরক্ষা ব্যবস্থার কড়া পর্যালোচনা করার কথা বলে৷ পরিবেশবাদী সংগঠন ‘গ্রিনপিস' মহারাষ্ট্রের জায়তাপুরে প্রস্তাবিত পরমাণু প্রকল্প বাতিলের দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে জমা দেয় ৭০ হাজার আবেদনপত্র৷

3. Atomtest der indischen Regierung in der Thar Wüste, 11. Mai 1998

১৯৯৮ সালে ভারতে পরমাণু বোমার পরীক্ষাস্থল

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিকল্প শক্তি সংস্থার উপদেষ্টা শান্তিপদ গণচৌধুরী এই প্রসঙ্গে ডয়চে ভেলেকে বললেন, ‘‘ভারত যদি ৯ শতাংশ জিডিপি বজায় রাখতে পারে, তাহলে ২০৩০ সালে ভারতের বিদ্যুৎ চাহিদা দাঁড়াবে ৯ লক্ষ মেগাওয়াটের মত৷ এটা আমরা সৌরশক্তি থেকেই পেতে পারি৷ পরমাণু বিদ্যুৎ যেদিন থোরিয়াম-ভিত্তিক হবে বা পরমাণু শক্তি ঝুঁকি যেদিন একেবারেই থাকবে না, তখন পরমাণু শক্তি এলে আপত্তির কারণ নেই৷ সেটা আসতে সময় লাগবে আরো তিরিশ-চল্লিশ বছর৷ কিন্তু ইউরেনিয়াম জ্বালানি-ভিত্তিক পরমাণু শক্তির ভবিষ্যৎ বিপদ তথা জলবায়ু পরিবর্তনের বিপদ থেকে কী ধরণের বিপর্যয় আসতে পারে তাও অজানা৷ এই রকম অজানা বিপদের ঝুঁকির মধ্যে যাওয়াটা কাজের কথা নয়৷ ভারতের মত ঘন বসতিপূর্ণ বিপুল জনসংখ্যার দেশে এতটুকু তেজস্ক্রিয়তা বিকিরণে মারা পড়বে লক্ষ লক্ষ লোক৷ কাজেই পরমাণু শক্তির দিকে না গিয়ে এবং কয়লা-ভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন ধীরে ধীরে কমিয়ে সৌরশক্তি ও অন্যান্য অপ্রচলিত শক্তির দিকে বেশি করে নজর দেয়া দরকার৷''

তা সত্ত্বেও সরকারের পরমাণু শক্তির ওপর জোর দেবার কারণ,পরমাণু লবির তথাকথিত কৌলীন্য৷ এত লোকের ঘাতক, ভবিষ্যৎ অজ্ঞাত তবু এই বিদ্যুতের পেছনে কেন এতো বিনিয়োগ, সে প্রশ্ন উঠতেই পারে৷ পাশাপাশি ৯ লক্ষ মেগাওয়াটের সম্ভাবনাময় সৌর শক্তির বিকাশে দেশে নেই কোন সুসংগঠিত সংস্থা৷ জাপানের ফুকুশিমা দাইচি মনে করিয়ে দিল আমরা কতটা ভুল পথে চলেছি৷ এটা বিপরীতমুখী করতে দরকার সর্বোচ্চ স্তরে নীতিগত সিদ্ধান্ত ও রাজনৈতিক সদিচ্ছা৷ সেটা হলে অদূর ভবিষ্যতে নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎ তার নিজের জায়গা খুঁজে পাবে৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়