1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

দিল্লিতে চিকিৎসক হত্যায় ‘সাম্প্রদায়িক রং'

দিল্লিতে এক চিকিৎসক হত্যার ঘটনায় সাম্প্রদায়িক রং লাগানোর চেষ্টাকে নস্যাৎ করে দিল পুলিশের প্রতিবেদন৷ দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, হত্যাকাণ্ডটি সাম্প্রদায়িক উদ্দেশ্যে করা হয়েছে – এমন আলামত তদন্ত থেকে বেরিয়ে আসেনি৷

গত সপ্তাহে পশ্চিম দিল্লির বিকাশপুরি এলাকায় এক দাঁতের ডাক্তারকে দুর্বৃত্তরা পিটিয়ে আহত করে৷ গুরুতর আহত ডাক্তার পঙ্কজ নারাং পরে মারা যান৷ প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, ৪০ বছর বয়সি ওই চিকিৎসক বাড়ির পাশের রাস্তায় হাঁটছিলেন৷ পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় একটি মোটর সাইকেল তাঁকে ধাক্কা দেয়৷ মোটরসাইকেলের তিন আরোহীর সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন পঙ্কজ৷ তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে তিন যুবক মোটরসাইকেল রেখেই চলে যায়৷ কিন্তু কিছুক্ষণ পর ১০-১৫ জনের একটি দল এসে পঙ্কজকে বাড়ি থেকে বের করে লাঠিসোঁটা দিয়ে পেটায়৷ স্থানীয়রা বাধা দিতে গেলে তাদের ওপরও চড়াও হয় হামলাকারীরা৷ ডা. পঙ্কজ নারাং হত্যার খবর ভারতের সংবাদমাধ্যম গুরুত্ব দিয়েই প্রকাশ করেছে৷

ইতিমধ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে চার কিশোরসহ ন'জনকে গ্রেপ্তার করেছে দিল্লি পুলিশ৷ পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পঙ্কজ নারাং হত্যার সঙ্গে সাম্প্রদায়িকতার কোনো সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়নি৷

পুলিশি তদন্ত শুরুর আগেই একটি মহল পঙ্কজ নারাং হত্যার সঙ্গে মুসলমানরা জড়িত এমন তথ্য প্রচার করে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়ানোর চেষ্টা করে৷ ক্ষমতাসীন দল বিজেপির সমর্থকরাই এমন তৎপরতা শুরু করে বলে অভিযোগ৷ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এর প্রমাণও রয়েছে৷

একটি মহল পঙ্কজ হত্যার জন্য ঢালাওভাবে মুসলমানদের দায়ী করেই থেমে থাকেনি৷ হত্যাকারীরা বাংলাদেশ থেকে আগত এবং তারা আম আদমি পার্টির ভোট ব্যাংক বলে দিল্লি প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলেও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রচার চালানো হয়৷

তবে এক বিবৃতিতে দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সাম্প্রদায়িকতার কোনো সম্পর্ক তাঁরা খুঁজে পাননি৷ গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের বেশ কয়েজন মুসলমান হলেও তারা সবাই স্থানীয়৷ দীপক নামের এক হিন্দু যুবককেও হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷

এসিবি/ডিজি (ইন্ডিয়া টুডে, টাইমস অফ ইন্ডিয়া)

নির্বাচিত প্রতিবেদন