1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘দল গোছাচ্ছে বিএনপি’

চূড়ান্ত আন্দোলনে নামার আগে দল গোছানোর উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপি৷ কারণ তাদের বাদ দিয়ে একতরফা নির্বাচনের পরও আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে তেমন কোনো শক্ত অবস্থান নিতে পারেনি দলটি৷

স্বাভাবিকভাবেই দলটির তাই এখন ভঙ্গুর অবস্থা৷ নেতা-কর্মীদের সামনেও তেমন কোনো নির্দেশনা নেই৷ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক ধড়পাকরের মধ্যে তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা কী করবেন – তাও বুঝতে পারছেন না৷

সদ্য শেষ হওয়া উপজেলা নির্বাচনেও সরকারি সব কৌশলের মধ্যে ভালো করেছেন বিএনপির প্রার্থীরা৷ এমন পরিস্থিতিতে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করার উদ্যোগ নিয়েছে দলটি৷ বৃহস্পতিবার থেকেই তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শুরু করছেন দলটির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া৷ এছাড়া দলের যুগ্ম মহাসচিবরা তৃণমূল নেতাদের সুখ-দুঃখের কথা শুনছেন, দিচ্ছেন নতুন দিক নির্দেশনা৷ নেতারা বলছেন, তৃণমূল গোছানোর পরই শুরু হবে যুগপদ আন্দোলন৷ সেই আন্দোলন দেখে নাকি আওয়ামী লীগ পালানোর পথও খুঁজে পাবে না৷

তৃণমূল পর্যায়ে দল গোছানোর অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার দুপুরে পঞ্চগড় ও সৈয়দপুরের তৃণমূল নেতাদের সাথে মতবিনিময় করেন বিএনপির তিন যুগ্ম মহাসচিব৷ তাঁরা হলেন সালাউদ্দিন আহমেদ, মিজানুর রহমান মিনু ও মো. শাজাহান৷ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়৷ এরপর বিকাল ৩টায় নীলফামারীর নেতাদের সাথে এই তিন যুগ্ম মহাসচিব মতবিনিময় করেন৷ জানা গেছে, এই তিন জেলার নেতাদের সাথে রাত ৯টায় বৈঠকে বসছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া৷

বিএনপির একাধিক শীর্ষ নেতা জানান, তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় খালেদা জিয়া নেতা-কর্মীদের বিভিন্ন সুখ-দুঃখের কথা শুনবেন এবং পরবর্তী আন্দোলন কর্মসূচীর বিষয়ে দিক-নির্দেশনা দেবেন৷ এছাড়া দেশের বিভিন্ন জেলায় খালেদা জিয়ার সফর নিয়েও আলোচনা হবে ঐ মতবিনিময় সভায়৷

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ডয়চে ভেলেকে বলেন, খুব শিগগিরই সরকার বিরোধী আন্দোলন শুরু হবে৷ সেই আন্দোলন দেখে আওয়ামী লীগ পালানোর পথ খুঁজে পাবে না৷ আন্দোলন শুরুর আগে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করতেই দলীয় চেয়ারপার্সন তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন৷ পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট বিভাগের যুগ্ম মহাসচিবরাও তাঁদের সঙ্গে কথা বলছেন৷ সব কিছু মিলিয়ে দল গোছানোর পরই শুরু হবে কঠিন আন্দোলন৷ তিনি বলেন, জনগণের ভোগান্তির বিষয়টি মাথায় রেখেই আন্দোলনের কর্মসূচী দেয়া হবে৷

এদিকে বুধবার রাতে খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়৷ ঐ বৈঠক শেষে বিএনপি নেতারা কিছু না বললেও, বৃহস্পতিবার মুখ খুলেছেন দলের যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ৷ তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনা ও ভারপ্রাপ্ত নির্বাচন কমিশনার বিএনপি নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা৷ তাঁর কথায়, উপজেলা নির্বাচনে সরকারি দল আওয়ামী লীগ নজীরবিহীনভাবে সন্ত্রাস, কারচুপি ও ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ফলাফল তাদের অনুকুলে নেয়৷ নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসন নির্লজ্জভাবে আওয়ামী লীগকে সর্বাত্বকভাবে সহযোগিতা করছে৷

সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটি মনে করে, সরকার, নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের ভূমিকা প্রমাণ করেছে আওয়ামী লীগের অধীনে কোনো সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন সম্ভব নয়৷ ৫ই জানুয়ারির নির্বাচন বর্জন আন্দোলনে সারা দেশে বিরোধী দলের শত শত নেতা-কর্মীকে হত্যা করা হয়েছে৷ গুম হয়েছেন ৫০ জনের বেশি নেতা-কর্মী৷ তাছাড়া হাজার হাজার নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার, গণগ্রেপ্তার ও গ্রেপ্তার বাণিজ্যের ফলে এক চরম অসহনীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে৷ শুধু তাই নয়, সারা দেশে বিরোধীদলের বিরুদ্ধে সরকারের নানা পদক্ষেপের চিত্র তুলে ধরা হয় সভায়৷ বিদ্যুৎ খাতে নজিরবিহীন দুর্নীতি হচ্ছে বলে মন্তব্য করে বারবার বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি জন-জীবনে দুর্ভোগ সৃষ্টি করছে বলে সরকারের প্রতি অভিযোগ করেন সদস্যরা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়