1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

দক্ষিণ এশিয়ার জন্য আজও হুমকি আল-কায়েদা

বিন লাদেনের মৃত্যুর পর কি আল-কায়েদা ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে? অনেকের ধারণা এমন হলেও বিশ্লেষকরা মনে করেন, ইসলামি এ জঙ্গি সংগঠন দুর্বল হয়েছে ঠিকই, তবে বাড়ছে তাদের শক্তিও৷ দক্ষিণ এশিয়ার জন্য এখনো তারা বড় হুমকি৷

২০১১ সালের ২রা মে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদ শহরে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ বাহিনীর ঝটিকা হামলায় নিহত হয়েছিলেন ওসামা বিন লাদেন৷ তারপর বারাক ওবামা যে আল-কায়েদার শীর্ষ নেতার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের বিজয় সূচিত হওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন, সে কথা নিশ্চয়ই মনে আছে সবার৷ কিন্তু আদতে কি তা হয়েছে?

Osama bin Laden Zeitung Nachricht Zeitungsartikel

যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ বাহিনীর হামলায় নিহত হয়েছিলেন লাদেন

ওয়াশিংটন ডিসি-র উইড্রো উইলসন সেন্টারের গবেষক সিম্বাল খান মনে করেন, বিন লাদেনের মৃত্যুর আগেই শুরু হয়েছিল আল-কায়েদার পিছু হঠা৷ যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলা এবং পাকিস্তান সেনাবাহিনীর অভিযানের ফলে পাকিস্তান-আফগান সীমান্ত ছাড়তে বাধ্য হয় আল-কায়েদা জঙ্গিরা৷ তবে সরে যাওয়া মানেই যে হেরে যাওয়া নয়৷ তাই ডয়চে ভেলেকে দেয়া সাক্ষাৎকারে একরকম সতর্কতাবার্তা উচ্চারণের ভঙ্গিতেই লন্ডন ভিত্তিক গবেষক গাফফার হুসাইন বললেন, ‘‘তারা (আল-কায়েদা) এখন অন্যান্য স্থানীয় জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে মিলে কাজ করছে৷ পাক-আফগান সীমান্ত অঞ্চলে এখন হয়ত আন্তর্জাতিক সংগঠন হিসেবে আল-কায়েদার সরাসরি তৎপরতা নেই, তবে ছোট ছোট সংগঠনের সঙ্গে তারা পাকিস্তান এবং আফগানিস্তানে কাজ করে যাচ্ছে৷''

Pakistan Taliban in South Waziristan ARCHIVBILD 2012

আল-কায়েদা অন্যান্য স্থানীয় জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে মিলে কাজ করছে

বিন লাদেন নিহত হবার পর রণকৌশল বদলে ফেলেছে আল-কায়েদা৷ এখন অন্য সংগঠনে ঢুকে কিংবা তাদের সামনে রেখেই হামলায় অংশ নিচ্ছে দুনিয়া কাঁপানো এই জঙ্গি সংগঠন৷ আল-কায়েদা সাধারণত কোনো এলাকার আঞ্চলিক দ্বন্দ্বকে কাজে লাগিয়ে সন্ত্রাসি তৎপরতা শুরু করে৷ তাই নাইজেরিয়া, সোমালিয়া, সিরিয়া, মিশর এবং ইরাকের মতো দেশেও হামলার পর আল-কায়েদার জড়িত থাকার প্রশ্ন ওঠে৷ আল-কায়েদার নাম সরাসরি আসে না, কারণ, হামলার নেতৃত্বে থাকে বোকো হারাম, আল শাবাব-এর মতো জঙ্গিবাদী সংগঠন৷

এভাবে কৌশলে বিশ্বময় নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে রাখলেও বিশ্লেষকদের কেউ কেউ মনে করেন আল-কায়েদা এখনো পাকিস্তানকে আশ্রয় করেই কাজ করে৷ সিম্বাল খান মনে করেন, বিন লাদেনের মতো বর্তমান আল-কায়েদা প্রধান আয়মান আল-জাওয়াহিরিও পাকিস্তানেই আত্মগোপন করে আছেন, ‘‘আল-কায়েদা প্রধান পাকিস্তানেই লুকিয়ে আছেন বলে জানা গেলে আমি অবাক হবো না৷ পাক-আফগান সীমান্ত এলাকায় তিনি থাকবেন না, কারণ, সেখানে কড়া নজরদারি রয়েছে৷ লাদেনের মতো তিনিও পাকিস্তানের অন্য কোনো শহরে লুকিয়ে থাকতে পারেন৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়