1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ব্লগওয়াচ

ত্রাণ নিয়েও চলছে রাজনীতি

মঙ্গলবার কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অসহায় মানুষের জন্য ত্রাণ বিতরণ করতে চাইলেও পারেনি বিএনপি৷ ত্রাণের ট্রাক আটকে দিয়েছে প্রশাসন৷ ‘যুক্তি যাই হোক না কেন, ত্রাণ তো ত্রাণই' – সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠেছে প্রতিবাদের ঝড়৷

ফেসবুকে কে এম শহিদউল্লাহ লিখেছেন, ‘‘বিএনপির ২২ ট্রাক ত্রাণ আটকে দিল সরকার, কিন্তু কেন? ঠিক যেই তারিখ এবং যেই সময়টাতে ৪০টি দেশের প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গাদের পরিদর্শন করতে গেছে, ঠিক সেই দিনটাতেই কেন বিএনপি ২২ ট্রাক ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে ২২ লাখ বিশৃঙ্খলা করতে যেতে চাইল? কু-বুদ্ধিজীবী বিএনপির থাকলেও, বুদ্ধিজীবী তো আওয়ামী লীগেরও আছে৷''

এই লেখায় প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে মোহাম্মাদ মোহিম বলছেন, ‘‘৪০ দেশের প্রতিনিধির সামনে দিয়ে ত্রাণ নিয়ে যাওয়াটা যদি বিএনপির কু-বুদ্বিজীবীতা হয়, তবে ৪০টি দেশের প্রতিনিধি যাতে না দেখতে পারে সেজন্য পুলিশ বাহিনী দিয়ে তা আটকে রেখে দেওয়াটা কি সু-বুদ্বিজীবীতার পরিচয়? আজব কারবার৷''

রায়হান হুসেইন লিখেছেন, ‘‘রোহিঙ্গাদের জন্য পাঠানো বিএনপির ২২টি ত্রাণবাহী ট্রাক আটকে দিল পুলিশ৷ এর কারণ কী? ত্রাণ কে পাঠালো এটা এখন দেখার সময় না৷ এখন অসহায় রোহিঙ্গা মুসলমানের পাশে দাঁড়ানো দরকার এবং দাঁড়াতে সবাইকে সহযোগিতা করাও একান্ত দরকার৷ লক্ষ লক্ষ মানুষ না খেয়ে মারা যাচ্ছে৷ তাই এখন এই সব মানুষদের নিয়ে রাজনীতি করার সময় না৷''

‘‘আজ বিএনপির দেয়া রোহিঙ্গাদের জন্য ২২ ট্রাক ত্রাণ আটকে দিল পুলিশ...! অসহায় রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা দিতে কুতুপালং-এর উদ্দেশ্যে যাত্রা করা বিএনপির ত্রাণের গাড়ি বহরে পুলিশের বাধা৷ ধিক্কার জানাই ফ্যাসিবাদী আচরণের, আমরা সবাই ধিক্কার জানাই এই নষ্ট রাজনীতিকে৷ ধিক্কার জানাই রাজনিতির এই অমানবিক আচরণকে, অসহায় ক্ষুধার্ত লোকদের পেটে এভাবে লাথি মারা কোনো সভ্য লোকের কাজ হতে পারে না৷ আজ কোথায় মানবতা...!'' লিখেছেন ইমরান হোসেন৷ 

আলফাজউদ্দিন লিখেছেন, ‘‘রোহিঙ্গা মুসলিমদের জন্য বিএনপির পক্ষ থেকে নেয়া ত্রাণের ১৪০০০ বস্তা থেকে ১০০০ বস্তা বিতরণের অনুমতি৷ বাকিগুলো তারা রেখে দিয়েছে৷ আগে কম্বল চুরি করতো গোপনে৷ এখন চুরি করে প্রকাশ্যে৷''

এছাড়া ফেসবুকে বিভিন্ন অনলাইনের এই সংক্রান্ত খবরের লিংক পোস্ট করেছেন অনেকেই৷ সাদিকুল ইসলাম সৈকত টুইট করেছেন, ‘‘তারা না খেয়ে দিন পার করতেছে৷ কিন্তু সরকারি বাহিনী কেন ত্রাণ দিতে দিচ্ছে না বিএনপিকে?''

অন্যদিকে, টুইটারেও ফেসবুকের অনেকের লেখা ও সংবাদের লিংক পোস্ট করেছেন অনেকেই৷

সংকলন: আসমা মিতা

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

প্রতিবেদনটি সম্পর্কে কিছু বলার থাকলে লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়