তোপের মুখে ফেসবুক, নিরাপত্তায় পরিবর্তন | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 27.05.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

তোপের মুখে ফেসবুক, নিরাপত্তায় পরিবর্তন

ব্যক্তিগত তথ্য সংরক্ষণ ফেসবুকে সবচেয়ে বড় ইস্যু৷ ফেসবুকে কে আপনার ছবি দেখতে পাবে বা পাবেনা, কিংবা কে কে আপনার জন্মদিন দেখবে বা অবস্থান জানবে তা ঠিক করা নিয়েই যত বিপত্তি৷

default

ফাইল ফটো

খালি চোখে ফেসবুকে দেয়া তথ্য হয়তো অনেকের কাছেই গুরুত্বহীন৷ বিশেষত, দক্ষিণ এশিয়ার অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারীকে দেখা যায় – নিজের নাম, জন্মদিন থেকে শুরু করে ই-মেল, মোবাইল ফোন এমনকি বাড়ির ঠিকানাটা পর্যন্ত দিয়ে দিতে৷ আবার অনেকে পারলে একান্ত ব্যক্তিগত ছবিও তুলে দেন সাইটটিতে৷

বাংলাদেশ বা ভারতে ব্যক্তিগত তথ্য নিয়ে বাড়তি চিন্তা খুব একটা না থাকলেও উন্নত বিশ্বে আছে৷ বিশেষ করে আপনার ব্যক্তিগত ঠিকানা বা মোবাইল নম্বর ব্যবহার হতে পারে বিজ্ঞাপনের কাজে, বাড়াতে পারে আপনার বিরক্তি৷ ফেসবুক থেকে আপনার পছন্দ-অপছন্দ জেনে সেই অনুযায়ী পাঠানো হতে পারে বিজ্ঞাপনী নানা অফার৷ এমনকি, আপনার জন্মদিনটি হতে পারে হ্যাকারদের জন্য লোভনীয় অস্ত্র৷ তাছাড়া ফেসবুকে দেয়া ছবি বা ভিডিও'র অপব্যবহারের কথাতো শোনা যায় হরহামেশাই৷

facebook Mark Zuckerberg headshot, as Facebook.com founder, photo on black

মার্ক জুকারবার্গ

প্রশ্ন উঠতে পারে, এসবের সঙ্গে ফেসবুকের সম্পর্ক কী? সম্পর্ক আছে, কারণ কিছুদিন আগে ফেসবুক তার ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা বা গোপনীয়তার কাঠামোয় পরিবর্তন এনেছিল৷ ফেসবুকের কথিত উদ্দেশ্য ছিল, সংস্থাটির ব্যবহারকারীদের মধ্যে তথ্য আদানপ্রদানের সুযোগ আরো বাড়ানো৷ একইসঙ্গে নেটওয়ার্কিং এর পরিধি ছোট করে ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধি৷ কিন্তু, ফল হলো উল্টো৷ দেখা গেলো, নতুন নিরাপত্তা সেটিংস অনেকের কাছে বোধগম্য নয়৷ তার উপর এই সেটিংসে ‘লজ্জা নিবারণ' আগের চেয়ে বরং আরো কঠিন৷ মোটের উপর অভিযোগ উঠলো, ফেসবুক আসলে বিজ্ঞাপনদাতাদের মন জয় করতে ব্যবহারকারীদের তথ্য অনেকটা উন্মুক্ত করে দিয়েছে৷

ফলে যেটা হয়, খোদ ফেসবুকেই ব্যবহারকারীরা জানালো প্রতিবাদ৷ ফেসবুক ত্যাগের আহ্বান জানাতে তৈরি হলো অসংখ্য গ্রুপ৷ ইন্টারনেট নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা'র কথা শোনালেন যে, ফেসবুক আর নিরাপদ নয়৷ কারণ ব্যক্তিগত বলে কিছু থাকছে না সেখানে৷

ব্যবহারকারীদের এমন তোপের মুখে ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ স্বীকার করে নিলেন অল্প-বিস্তর বিপত্তির কথা৷ তবে, তাঁর ঘোর আপত্তি বিজ্ঞাপনদাতাদের প্রসঙ্গে৷ মার্ক পরিষ্কার ভাষায় জানালেন, বিজ্ঞাপনদাতাদের মন জয় করতে ফেসবুকে পরিবর্তন আনা হয়নি৷ একইসঙ্গে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় আবারো নতুন পরিবর্তনের কথা জানালেন তিনি৷ মার্কের দাবি, এবারের পদ্ধতি খুব সহজ৷ ফেসবুকে আপনার কোন তথ্য বা ছবি কারা দেখবে, কারা দেখবে না – তা চারভাগে ভাগ করে নেয়া যাবে৷ প্রথম ভাগটি হচ্ছে ‘সবাই', দ্বিতীয় ভাগ ‘বন্ধুদের বন্ধুরা', তৃতীয় ভাগে আছেন ‘শুধুই বন্ধুরা' আর চতুর্থ ভাগে ‘বাছাইকৃতরা'৷

শুনে মনে হচ্ছে, এবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা হয়তো সত্যিই খানিকটা সহজ হবে৷ আর এই ব্যবস্থা ৪৫০ মিলিয়ন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়া হবে আগামী জুন মাসের মধ্যে৷ এখন দেখা যাক, সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীরা এতে তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলেন কিনা৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়