1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

তৃণমূলের লোকসভা প্রার্থী তালিকায় তারার হাট

বাংলা ছবির জনপ্রিয় নায়ক দেব থেকে সুচিত্রা সেন-কন্যা অভিনেত্রী মুনমুন সেন, সন্ধ্যা রায়, ফুটবলার বাইচুং ভুটিয়া – ভারতের আসন্ন সংসদীয় নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় তারকাদের ছড়াছড়ি৷

আসন্ন লোকসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের প্রার্থী হয়ে যাঁরা এবার দাঁড়াবেন, তাঁদের অনেকেই এতদিন রাজনীতির ত্রিসীমানায় ছিলেন না৷ অবশ্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন, বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মঞ্চে এঁদের অনেককেই এসে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছে মমতার পাশে৷ সুতরাং এঁরা রাজনীতির ছোঁয়াচ একেবারে এড়িয়ে ছিলেন এতদিন, তেমন কথাও বলা যায় না৷ তাই বলে এঁদেরকে যে তৃণমূল কংগ্রেস লোকসভা ভোটে দলের প্রার্থী করবে, এটা পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক মহলে প্রত্যাশিত ছিল না সম্ভবত৷ ফলে তৃণমূলের এবারের প্রার্থী তালিকা নানা ধরনের প্রতিক্রিয়া তৈরি করছে রাজনৈতিক শিবির থেকে শুরু করে সংবাদমাধ্যম, সোশ্যাল মিডিয়া, সর্বত্র৷

Baichung Bhutia Fußball indien

বাইচুং ভুটিয়া

কারা আছেন এই তালিকায়? রয়েছেন বাংলা সিনেমার অন্যতম জনপ্রিয় হিরো দীপক অধিকারী ওরফে দেব৷ তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল লোকসভা আসন থেকে৷ রয়েছেন সুচিত্রা সেনের কন্যা অভিনেত্রী মুনমুন সেন৷ তিনি পেয়েছেন বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রটি৷ আর এক বর্ষীয়ান অভিনেত্রী সন্ধ্যা রায় লড়বেন মেদিনীপুর কেন্দ্র থেকে৷ বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হবেন গায়ক ইন্দ্রনীল সেন৷ জনপ্রিয় বাংলা ব্যান্ড ভূমি-র প্রাক্তন সদস্য গায়ক সৌমিত্র রায় প্রার্থীপদ পেয়েছেন মালদহ উত্তর লোকসভা কেন্দ্রে৷ নাট্যকর্মী অর্পিতা ঘোষ বালুরঘাট কেন্দ্রে তৃণমূলের টিকিট পেয়েছেন৷ এছাড়া তৃণমূলের আগের দুই অভিনেতা-সাংসদ শতাব্দী রায় এবং তাপস পাল এবারও দলের প্রার্থী হচ্ছেন যথাক্রমে বীরভূম এবং কৃষ্ণনগর কেন্দ্র থেকে৷ তবে এই তালিকার সবথেকে বড় চমক সম্ভবত ভারতীয় ফুটবল দলের প্রাক্তন অধিনায়ক ভাইচুং ভুটিয়া৷ তিনি লড়বেন দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্র থেকে৷ অপর এক প্রাক্তন ফুটবলার এবং জাতীয় দলের অধিনায়ক প্রসুন ব্যানার্জি প্রার্থী হচ্ছেন হাওড়া থেকে, যে লোকসভা আসনে গতবছরের উপনির্বাচনে প্রসুন জিতেছিলেন৷

তৃণমূলের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য প্রার্থী আছেন নির্দিষ্ট কয়েকটি লোকসভা কেন্দ্রে৷ ডায়মন্ড হারবার কেন্দ্রে গত লোকসভা ভোটে তৃণমূলের টিকিটে জিতেছিলেন কংগ্রেস ছেড়ে আসা সোমেন মিত্র৷ তিনি সম্প্রতি তৃণমূল ছেড়ে আবার কংগ্রেসেই ফিরে গিয়েছেন৷ সেই আসনে মমতা এবার দাঁড় করাচ্ছেন নিজের ভাইপো এবং তৃণমূল যুবা-র নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে৷ উত্তরবঙ্গের বালুরঘাটের রায়গঞ্জ লোকসভা আসন, কংগ্রেস নেতা প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির পুরনো আসন৷ প্রিয়রঞ্জনের দীর্ঘ অসুস্থতার কারণে রায়গঞ্জে কংগ্রেসের প্রার্থী হন প্রিয়রঞ্জনের স্ত্রী দীপা দাসমুন্সি এবং প্রতিবারই জেতেন৷ এবার সেখানে প্রিয়রঞ্জনের ভাই সত্যরঞ্জন দাশমুন্সিকে তৃণমূলের প্রার্থী করছেন কুশলী মমতা৷ নিজের কালীঘাটের বাড়ি থেকে দলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার সময় মমতা বলেছেন, এবার তিনি পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি লোকসভা আসনের মধ্যে ১১টিতে মহিলা প্রার্থী দাঁড় করাচ্ছেন, যা রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে সর্বোচ্চ৷ এবার তৃণমূলের সাতজন প্রার্থী আসছেন সংখ্যালঘু শ্রেণি থেকে৷

তবে চিত্র তারকা দেব বা মুনমুন সেনকে প্রার্থী করার পিছনেও তৃণমূল নেত্রীর কোনো রাজনৈতিক অঙ্ক নেই ভাবলে ভুল হবে৷ দেব দাঁড়াচ্ছেন পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল আসনে, যেখানে গতবার জিতেছিলেন সিপিআই প্রার্থী গুরুদাস দাশগুপ্ত৷ তিনি এবার নির্বাচনে না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ তাঁর বদলি নতুন বাম প্রার্থীর বিরুদ্ধে মমতার অস্ত্র দেব৷ সিপিআই দলের মজবুত সাংগঠনিক ভিত্তির মোকাবিলা যদি করা সম্ভব নাও হয়, বাংলা সিনেমার নিয়মিত দর্শক মহিলাদের মধ্যে অসম্ভব জনপ্রিয় দেবের ‘ক্যারিশমা' যে সেই ঘাটতি পূরণ করে দেবে, সে সম্পর্কে মমতা সম্ভবত নিশ্চিত৷ অথবা বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের যিনি বিজয়ী সাংসদ, সেই বাসুদেব আচারিয়াও এখন সত্তরোর্ধ, যদিও তিনি ভোটের রাজনীতি থেকে এখনই অবসর নিতে চাইছেন না৷ সেখানে মমতার দাবার ঘুঁটি মুনমুন সেন, যিনি মা সুচিত্রা সেনের সাম্প্রতিক প্রয়াণের সুবাদে লোকনজরে এসেছেন নতুন করে৷ এবং অবশ্যই মমতার মোক্ষম চাল দার্জিলিংয়ে বাইচুং ভুটিয়াকে দলের প্রার্থী করা৷ বিমল গুরুং এবং গোর্খাল্যান্ডপন্থিরা কীভাবে সেই কিস্তি সামাল দেবেন, সেটাই দেখার৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন