1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

তুরাগ নদীর সীমানা নির্ধারণ নিয়ে পরিবেশবাদীদের ক্ষোভ

ঢাকা আর গাজীপুরের মাঝখানে তুরাগ নদীর সীমানা নির্ধারণের নামে নদীকে ছোট করে ফেলা হচ্ছে৷ পরিবেশবিদরা বলছেন, এই সীমানা নির্ধারণের মাধ্যমে মূলত দখলদারদের সুবিধা করে দেয়া হচ্ছে৷

default

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক কিছু ভুল-ক্রটির কথা স্বীকার করলেও তিনি দাবি করেন, ঠিকঠাক মতই তুরাগ নদীর সীমানা নির্ধারণ করা হচ্ছে৷

দখল আর দূষণে বিপন্ন একসময়ের স্রোতস্বিনী তুরাগ নদী৷ তুরাগ দখলের মহোৎসবে নেমেছে ভূমিদস্যুরা৷ আর এই তুরাগকে রক্ষায় পরিবেশবাদী ও সুশীল সমাজ আন্দোলনসহ আইনি লড়াই করছেন দীর্ঘদিন ধরে৷ অবশেষে আদালতের নির্দেশে ১২ই এপ্রিল থেকে পিলার দিয়ে তুরাগের সীমানা নির্ধারণের কাজ শুরু করে গাজীপুর জেলা প্রশাসন৷ কিন্তু তুরাগ তীরের সাধারন মানুষের অভিযোগ সীমানা পিলার দেয়ার নামে তুরাগকে আরো ছোট করে ফেলা হয়েছে৷ পিলার দেয়া হয়েছে নদীর মাঝে৷

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক কামাল উদ্দিন তালুকদার অভিযোগের জবাবে বলেন, আদালতের নির্দেশ মেনেই নদীর আদি ও হালনাগাদ মানচিত্র মেনে সীমানা পিলার দেয়া হচ্ছে৷ নদী দখলকারীদের সুবিধা করে দেয়ার প্রশ্নই ওঠেনা৷ তবে তিনি স্বীকার করেন, কয়েকটি জায়গায় ভুলে নদীর মধ্যে সীমানা পিলার বসান হয়েছিল৷ পরে তা অপসারণ করে ঠিক জায়গায় দেয়া হয়েছে৷

পরিবেশবিদ ইকবাল হাবিব বলেন, তুরাগ এলাকা প্লাবন ভূমির অন্তর্গত৷ নদীর তীরে যেসব ব্যক্তিমালিকানাধীন জমি আছে তা নদীরই অংশ৷ দখল করে ব্যক্তি মালিকানায় নেয়া হয়েছে৷এসব জমিকে নদীর ভিতরে রেখেই সীমানা পিলার দিতে হবে৷ তিনি বলেন, অধিগ্রহণ না করেই প্রচলিত আইনে প্লাবন ভূমি সংরক্ষণ করা সম্ভব৷ তিনি জানান, তুরাগ নিয়ে নতুন করে ষড়ডন্ত্র হচ্ছে৷ তারা এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলবেন৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়