1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইউরোপ

তুরস্ক-ইউরোপের কূটনৈতিক বিরোধ চরমে

ডাচ রাষ্ট্রদূতকে আংকারায় ফেরা থেকে বিরত করার পর তুরস্ক নেদারল্যান্ডসের পক্ষ নেওয়ার দরুণ ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমালোচনা করেছে৷ অপরদিকে ম্যার্কেল সন্ত্রাসীদের মদত দেওয়ার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন৷

মূল বিরোধ তুরস্কের ইউরোপে রাজনৈতিক জনসভা করার দাবি নিয়ে৷ ব্রাসেলস আংকারাকে পরিস্থিতি আরো খারাপ করা সম্পর্কে সাবধান করে দিয়েছে৷ প্রতিক্রিয়া হিসেবে তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে যে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন পাত্র বেছে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ নিয়োগ করছে৷

‘‘ইইউ-এর অদূরদর্শি বিবৃতির আমাদের দেশে কোনো মূল্য নেই'', বলেছে তুরস্ক৷

ইতিপূর্বে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এর্দোয়ান জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের বিরুদ্ধে ‘‘সন্ত্রাসীদের মদত দেওয়ার'' অভিযোগ করেন এবং বলেন যে, জার্মানি ও নেদারল্যান্ডস, উভয় দেশই নাৎসিদের মতো ব্যবহার করছে৷

‘‘মিসেস ম্যার্কেল, আপনি আপনাদের দেশে সন্ত্রাসীদের লুকিয়ে রাখছেন কেন? কেন আপনি কিছু করছেন না?'' একটি সাক্ষাৎকারে বলেন এর্দোয়ান৷ সম্ভাব্য সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে আংকারা যে ৪,৫০০ ফাইল পাঠিয়েছে, ম্যার্কেল সে বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নিতে অস্বীকার করছেন, বলে এর্দোয়ানের অভিযোগ৷

ইতিমধ্যে ম্যার্কেলের মুখপাত্র স্টেফেন সাইব্যার্ট বলেছেন যে, ম্যার্কেলের বিরুদ্ধে এ সব অভিযোগ ‘‘উদ্ভট'': ‘‘চ্যান্সেলরের এই প্ররোচনার খেলায় অংশ নেবার কোনো অভিপ্রায় নেই'', বলে সাইব্যার্ট যোগ করেন৷

নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে তুরস্কের চলতি কূটনৈতিক বিরোধে ম্যার্কেল যে প্রকাশ্যভাবে ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটেকে সমর্থন করেছেন, তা নিয়েও ম্যার্কেলের সমালোচনা করেছেন এর্দোয়ান৷

তুর্কি প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়েলডিরিম তুরস্ক আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে উদ্বাস্তু চুক্তি বাতিল করার হুমকি দিয়েছেন৷

জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জার্মান নাগরিকদের তুরস্ক যাত্রা সম্পর্কে যে নতুন নির্দেশ প্রকাশ করেছে, তাতে তুরস্কগামী জার্মানদের রাজনৈতিক সমাবেশ ও মানুষের ভিড় থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে৷

নেদারল্যান্ডসও ডাচ নাগরিকদের অনুরূপ পরামর্শ দিয়েছে৷

এসি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়