1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

তিন মাসের বকেয়া বেতন ও বোনাস একসঙ্গে চান শ্রমিকরা

দুই কিস্তিতে বাংলাদেশের তুবা গ্রুপের পাঁচটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধের ঘোষণা দেয়া হলেও, শ্রমিকরা তা মানছেন না৷ বলছেন, সামর্থ্য থাকার পরও ঈদের আগে তাঁদের পাওনা পরিশোধ করা হয়নি৷

তুবা গ্রুপের ১,৬০০ পোশাক শ্রমিক মে, জুন ও জুলাই – এই তিন মাসের বকেয়া বেতন এবং ভাতার জন্য ঈদের আগের দিন, অর্থাৎ ২৮শে জুলাই থেকে অনশন শুরু করেন৷ ঈদের আগে তাঁদের কয়েক দফা প্রতিশ্রুতি দিয়েও বেতন-ভাতা দেয়া হয়নি৷ তুবা গ্রুপের মালিকসহ বিজিএমইএ নেতারা নানা অজুহাত তৈরি করে শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা আটকে দেন৷ বলেন, ব্যাংক ঋণ পাওয়া না যাওয়ায় বেতন দেয়া যায়নি৷ মালিক দেলোয়ার হোসেন জেলে থাকায় বেতন আটকে গেছে৷ অথচ তুবা গ্রুপের পাঁচটি পোশাক কারখানার উৎপাদন এবং রপ্তানি কখনোই বন্ধ থাকেনি৷

Bangladesch Tuba-Arbeiterinnen Protest Hungerstreik

সাত দিনের অনশনে ৯৭ জন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন

তুবা গ্রুপের রপ্তানি এবং ব্যাংকের হিসাব থেকে জানা যায় যে, গত জানুয়ারি থেকে জুন মাস পর্যন্ত তারা মোট ৩৯ কোটি ২১ লাখ টাকার পোশাক রপ্তানি করেছে৷ গত তিন মাস মানে এপ্রিল, মে এবং জুন মাসে নিট আয় করেছে ৪ কোটি ৩২ লাখ টাকা৷ এছাড়া গত তিনমাসে তুবা গ্রুপের পাঁচটি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বকেয়া বেতন হলো ৪ কোটি ১৩ লাখ টাকা৷ তাই তুবা গ্রুপ চাইলে তাদের শ্রমিকদের বেতন দিতে পারত, কিন্তু দেয়নি৷

তুবা গ্রুপের মালিক দেলোয়ার হোসেন তাজরিন ফ্যাশানস-এরও মালিক৷ ২০১২ সালের ২৪শে নভেম্বর তাজরিন ফ্যাশানস-এ আগুনে ১১৩ জন শ্রমিক নিহত হন৷ সেই মামলায় জেলে যেতে হয় দেলোয়ারকে৷ শ্রমিক নেতারা জানান, সেই মামলায় জামিন পেতে এবং কারাগার থেকে বের হতে কৌশলে শ্রমিকদের বেতন আটকে তাঁদের মাঠে নামানো হয়েছে৷ প্রচার করা হয়েছে যে, মালিক দেলোয়ার কারাগার থেকে ছাড়া না পাওয়ায় বকেয়া বেতন দেয়া যাচ্ছে না৷ আর তাঁদের সেই উদ্দেশ্য সফলও হয়েছে৷

শ্রমিকদের টানা সাত দিন অনশনের মাথায় রবিবার সচিবালয়ে বিজিএমইএ নেতারা বণিজ্য, শ্রম এবং নৌ-পরিবহণ এই তিন মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর ঘোষণা দেন আগামী রবিবার ১০ই আগস্ট তুবা গ্রুপের শ্রমিকদের বকেয়া মে ও জুন মাসের বেতন দেয়া হবে৷ ১৬ই আগস্ট জুলাই মাসের বেতন দেয়া হবে৷ আর বকেয়া বোনাস দ্রুত পরিশোধের ব্যবস্থা করা হবে৷ বিজিএমইএ-র সহ সভাপতি এস এ মান্না কচি জানান, ‘‘এবার প্রতিশ্রুতি মতো শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ করা হবে৷'' তবে সামর্থ্য থাকার পরও শ্রমিকদের কেন তিন মাসের বেতন দেয়া হয়নি সাংবাদিকরা জানতে চাইলে বিজিএমইএ সহসভাপতি বলেন, ‘‘তুবা গ্রুপের আয়-ব্যয়ের হিসাব তাঁর জানা নেই৷''

আন্দোলনরত শ্রমিকরা বিজিএমইএ-র এই ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছেন৷ একসঙ্গে পাওনা তিন মাসের বেতন ও বোনাস না দেওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তাঁরা৷

গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরামের সভাপতি মোশরেফা মিশু বলেন, ‘‘আমরা বিজিএমইএ-র প্রস্তাব ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করি৷ আমরা আমরণ অনশন চালিয়ে যাব৷''

তিনি জানান, ‘‘শ্রমিকদের তিন মাসের বাড়িভাড়া বাকি, দোকানে বাকি৷ তাঁরা ধার করে সংসার চালাচ্ছেন৷ তাঁদের পরিবারের ভরণপোষণ দিতে হয়৷ এ অবস্থায় দুই মাসের বেতন দেওয়ার যে প্রস্তাব তা অন্যায্য৷''

শ্রমিকরা অনশন চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি সোমবার বিকেলে সব গার্মেন্টস শিল্পাঞ্চলে বিক্ষোভ সমাবেশ এবং মঙ্গলবার বিজিএমইএ ভবন ঘোরওয়ের কর্মসূচি দিয়েছেন৷ এদিকে গত সাত দিনের অনশনে ৯৭ জন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন৷ তাঁদের মধ্যে ২০ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন