1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

তিন পাকিস্তানি ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে রায় ৫ ফেব্রুয়ারি

পাতানো খেলার কলঙ্ক নিয়ে মাঠের বাইরে থাকা পাকিস্তানি তিন ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের রায় দেওয়া হবে আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি৷ আর সেই রায় পর্যন্ত তাদের উপর আরোপিত সাময়িক বহিষ্কারাদেশ বলবৎ থাকবে৷

পাতানো খেলা, অভিযুক্ত, সাবেক, টেস্ট, অধিনায়ক, সালমান, বাট, ফাস্ট, বোলার, মোহাম্মদ, আমির, আসিফ, ট্রাইবুনাল, Cricket, Pakistan, Asif, Amer, ICC, Verdict, Fixing, Doha

ফাইল ছবি

আইসিসি'র দুর্নীতি বিরোধী তিন সদস্যের ট্রাইবুনাল প্রায় পাঁচ দিন শুনানি করেছে তিন পাকিস্তানি ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ নিয়ে৷ কাতারের রাজধানী দোহায় ৪৫ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলে এই শুনানি৷ এসময় বিচারকরা মৌখিক সাক্ষ্য, অডিও ও ভিডিও টেপসহ অন্যান্য দলিলপত্র পরীক্ষা করে দেখেছেন৷

পাতানো খেলার দায়ে অভিযুক্ত সাবেক টেস্ট অধিনায়ক সালমান বাট এবং ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ আমির ও মোহাম্মদ আসিফসহ সবাই বেশ আগ্রহ নিয়ে প্রহর গুণছিলেন রায় শোনার জন্য৷ কিন্তু অপেক্ষার পালা শেষ হলো, যখন ট্রাইবুনালের প্রধান মাইকেল বিলোফ জানিয়ে দিলেন, ‘শুনানি ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করা হলো৷ একই দিন রায় ঘোষণা করা হতে পারে৷ সঙ্গে সে পর্যন্ত তিন পাকিস্তানির ওপর আইসিসির সাময়িক বহিষ্কারাদেশও বহাল থাকবে৷'

মাইকেল বিলোফ জানান, ‘ট্রাইবুনাল মনে করেছে, শুনানিতে প্রাপ্ত বিষয়গুলো নিয়ে আরও পর্যালোচনা দরকার৷ এ কারণে সময় বাড়ানো হলো৷' বিলোফ মঙ্গলবার তাঁর বিচারিক আদেশে আরো জানিয়েছেন, ‘বাটের বিরুদ্ধে আসা একটি অভিযোগ ছাড়া তিন খেলোয়াড়ের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আনা ওভাল টেস্ট সম্পর্কিত যাবতীয় অভিযোগ প্রত্যাহার করেছে আইসিসি৷ তাই এসব অভিযোগ থেকে তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে খালাস দিয়েছে ট্রাইবুনাল৷ তবে তাদের বিরুদ্ধে লর্ডস টেস্ট সম্পর্কিত অভিযোগগুলো বিবেচনাধীন রয়েছে৷'

যাহোক এখন পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে এই তিন পাকিস্তানি ক্রিকেটার৷ এদিকে, ট্রাইবুনাল রায় দিতে দেরি করায় হতাশা প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার এবং ভক্তরাও৷ পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক জহির আব্বাস বলেন, ‘একটি সিদ্ধান্তে পৌঁছতে কতটা সময় তাদের দরকার তা ঠিক করা উচিত ছিল আইসিসি'র ট্রাইবুনালের৷ ইতিমধ্যে বেশ চাপে থাকা ক্রিকেটারদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতে বিলম্ব করাটা অন্যায়৷ এতোটা বিলম্ব করাটা খুব আশ্চর্যজনক৷' অনেকটা একই সুরে মন্তব্য করেন অপর সাবেক অধিনায়ক আসিফ ইকবাল৷ তিনি বলেন, ‘আইসিসি ইতিমধ্যে যথেষ্ট সময় নিয়েছে এবং অর্থ ব্যয় করেছে৷ তবুও এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি৷ এটা অদ্ভুত৷'

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

নির্বাচিত প্রতিবেদন