1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

তিন খেলোয়াড়ের শাস্তি সঠিক সিদ্ধান্ত- ইমরান

ম্যাচ ফিক্সিং কেলেংকারিতে পাকিস্তানের তিন খেলোয়াড় নিষিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় গভীর দুঃখ পেয়েছেন সেদেশের একমাত্র বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইমরান খান৷ তবে ক্রিকেটের স্বার্থে এই সিদ্ধান্তের প্রয়োজন ছিল বলেও মনে করছেন ইমরান খান৷

default

ইমরান খান

গত আগস্ট মাসে যখন গোটা পাকিস্তান স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত, তখন তার চেয়েও বড় বিপর্যয় নিয়ে আসে জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের এই অসৎ বাণিজ্যের ঘটনা, এক সাক্ষাৎকারে এমনটিই বললেন তেহরিক ই ইনসাফ দলের প্রধান ইমরান৷ যে তিনজন খেলোয়াড়কে নিষিদ্ধ করা হয়েছে তারা সত্যিকার অর্থেই প্রতিভাবান৷ বিশেষ করে মাত্র ১৮ বছর বয়সী মোহাম্মদ আমিরের কথা উল্লেখ করে ইমরান বলেন, সম্ভবত বর্তমান সময়ের সবচেয়ে প্রতিভাবান তরুণ ফাস্ট বোলার সে৷ তার সামনে আরও অনেক সময় রয়েছে৷ এছাড়া মোহাম্মদ আসিফ নতুন বলে অন্যতম সেরা বোলার এবং সালমান বাট একজন সত্যিকার ওপেনিং ব্যাটসম্যান৷ কিন্তু এই তিনজনকে ছাড়াই এখন বিশ্বকাপে খেলতে হবে পাকিস্তানকে৷ ইমরান খান মনে করেন, এই তিনজনেরই আসন্ন বিশ্বকাপে ভালো করার সম্ভাবনা ছিল৷ তবে তাদের অসততার ফলে গোটা পাকিস্তানি জাতি অপমানিত হয়েছে৷ এবং যেহেতু তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে তাই ক্রিকেট বিশেষ করে পাকিস্তানি ক্রিকেটের স্বার্থেই এদের শাস্তি পাওয়া উচিত, বলেন ইমরান খান৷

Kombo Pakistan Cricket Korruption Salman Butt Mohammad Asif und Mohammad Amir

বাম থেকে সালমান বাট, মোহাম্মদ আসিফ ও মোহাম্মদ আমির

উল্লেখ্য, গত বছরের আগস্ট মাসে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে লর্ডস টেস্ট শেষে তখনকার অধিনায়ক সালমান বাট, মোহাম্মদ আসিফ এবং মোহাম্মদ আমিরের বিরুদ্ধে স্পট ফিক্সিং এর অভিযোগ আসে৷ ব্রিটেনের ‘নিউজ অব দ্য ওয়ার্ল্ড' পত্রিকা জানায় যে দুই বোলার ম্যাচে ইচ্ছে করেই নো বল করেছে৷ এছাড়া অধিনায়ক সালমান বাটের হোটেল কক্ষ থেকেও বিপুল পরিমাণে নগদ অর্থ উদ্ধার করে পুলিশ৷ সব মিলিয়েই তাদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিষয়টি ছিল প্রায় প্রত্যাশিতই৷ তবে শুধু এই দফাতেই নয়, এর আগেও একই রকম অভিযোগ উঠেছিলে পাকিস্তানী ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে৷ সেই ঘটনা মনে করিয়ে ইমরান খান বলেন, ১৯৯৫ সালে ম্যাচ গড়াপেটার যে অভিযোগ উঠেছিল সেসময় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড দলের নিজেদের স্বার্থক্ষুন্ন হওয়ার ভয়ে ঠিকমত তা খতিয়ে দেখতে চায় নি৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন