1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

তাবিথ আওয়ালকে সমর্থন দিয়ে কি বিএনপি ভুল করল?

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে স্বাভাবিকতা ফিরছে বাংলাদেশে৷ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও বাড়ছে নির্বাচন নিয়ে আলোচনা৷ হঠাৎ করেই আলোচনায় চলে এসেছেন তাবিথ আওয়াল৷ তাঁকে সমর্থন দিয়ে ভুল করেনি তো বিএনপি?

প্রশ্নটা এক ব্লগারের৷ সামহয়্যারইন ব্লগে মাহমুদুল হাসান নামের এই ব্লগার বিএনপির সিদ্ধান্ত নিযে একটু সংশয়ে, কেননা আব্দুল আওয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আওয়ালকে বিএনপি সমর্থন দিয়েছে সাবেক বিএনপি নেতা এবং রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরীর ছেলে মাহি বি চৌধুরীকে অগ্রাহ্য করে৷

মাহমুদুল হাসান শুরুতেই লিখেছেন , ‘‘আসন্ন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির পক্ষ থেকে মেয়র পদ প্রার্থী অল্পবয়স্ক, অনভিজ্ঞ ও অপরিচিতমুখ 'তাবিথ আওয়ালকে' সমর্থন দেয়ায় সর্বত্র চলছে আলোচনা সমালোচনা৷ তবে কি বিএনপির এই সিদ্ধান্ত ভুল হলো?''

এরপর ‘সাধারণ মানুষ' পরিচয় উল্লেখ করে বেশ কয়েকজনের মন্তব্যও তুলে ধরা হয়েছে৷ সেখানে একজন লিখেছেন, ‘‘এমনিতেই আনিসুল হক শক্ত প্রতিপক্ষ৷ এখানে যদি অচেনা কাউকে সমর্থন দেয়া হয় তাহলে জয়ের সম্ভাবনা আরো কমে যায়৷''

আরেকজন মনে করেন, ‘‘ওই সিট নিয়ে বিশাল একটা দুর্বলতা তৈরি হলো৷ একমাত্র আশা আওয়ামী বিরোধী সেন্টিমেন্ট, কারণ, মিন্টু পরিবার আনিসুলকে ছাড় দেবার জন্যই মূল প্রার্থী নির্বাচন থেকে কৌশলে সরে দাঁড়িয়েছিল৷ তারপরও জোর করে তাদেরকে দিয়ে নির্বাচন করানো হচ্ছে৷ এখানে তাদের কতটুকু আন্তরিকতা থাকবে সেটাই দেখার বিষয়৷''

মাহবুবুল আরেকজনের বক্তব্য তুলে ধরেছেন এভাবে, ‘‘মাহি সবদিক থেকে যোগ্য, কিন্তু তাকে তো কে-অপারেট করতে হবে৷ আর সে যে জেতার পর তার বাবার মতো করবে না তার কি নিশ্চয়তা আছে?''

Aktivisten sammeln sich vor dem Sitz der Nationalistischen Partei BNP in Dhaka

তাবিথ আওয়ালকে সমর্থন দিয়ে কি বিএনপি ভুল করল?

সাব্বির আহমেদ নামের একজনের ধারণা, ‘‘মাহিকে সাপোর্ট দিলে সে বেঈমানি করবে, আর নেতাকর্মী মাহীর জন্য কাজ করবে না,কারণ, মাহী দলের কেউ নয়৷ ও পাশ করলেই কী আর না করলেই কী! বিএনপির দলের প্রার্থী জিতুক এটা সবাই চায়৷''

তবে মোহাম্মদ রহমান মিজান মনে করেন, ‘‘তাবিথকে সমর্থন দেওয়ার মানে আনিসুল হকের জয় নিশ্চিত করা৷ হয়তো এটাই ছিল নেত্রীর সাথে আন্দোলন বন্ধ আর জামিন নেওয়ার বিনিময় মূল্য৷ গহর রিজবির জামাই হয়ে বেডরুম সামলাতে গিয়ে তাবিথ নিশ্চিত পরাজয় মেনে নিয়ে আগামীতে বলবে ‘এটা আমার প্রথম রাজনীতির হাতেখড়ি, তাই জয় পরাজয় বড় নয়-অংশ গ্রহণই মূল ছিল৷'

নেত্রীকে যারা বারবার ভুল সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করে তারা আসলেই আওয়ামী লীগের দুধ-মাখন খেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বিএনপি নামক দলটিকে 'নেতৃত্বহীন করার মাধ্যমে৷''

আমার ব্লগে ‘সিটি নির্বাচন: বিএনপি জন্য একটি যুদ্ধ?' শিরোনামে একটি ব্লগ লিখেছেন সাইদ হাসান খান৷

বিএনপির উপদেষ্টা ড. এমাজউদ্দিন আহমেদের একটি উক্তি প্রসঙ্গে তিনি লিখেছেন, ‘‘এমাজউদ্দিন আহমেদ বলেছেন সিটি নির্বাচন হচ্ছে বিএনপির জন্য একটি যুদ্ধ৷ এই যুদ্ধে পরাজিত হলে দুর্ভোগ হবে ভয়াবহ৷'' আমরা জানি না কোন দৃষ্টিকোণ থেকে তিনি একথা বলেছেন৷ পরাজয়ে দলের জন্য দুর্ভোগ হলে এর জন্য দায়ী হবেন আপনারাই৷ আপনাদের দুই মাসের পেট্রোল বোমার আগুনে মানুষ মারার সুফল এবং রাজনৈতিক অসৎ কর্মকাণ্ড৷ আর যদি দেশের দুর্ভোগ হয়, তাহলে তো বলতে হয় আপনার দল বিএনপি সেই ১৯৭৫ সাল থেকেই দেশের জন্য একটার পর একটা দুর্ভোগ সৃষ্টি করে যাচ্ছে৷ মিথ্যাচারের দুর্ভোগ, প্রোপাগান্ডার দুর্ভোগ, ধর্ম নিয়ে বদমাইশি করার দুর্ভোগ ইত্যাদি ইত্যাদি আরও কতো কি৷...''

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন