1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

তাজিকিস্তানে পোলিওর প্রাদুর্ভাব

পোলিও রোগটির কখা আমরা সবাই জানি৷ অনেক ছোট বেলায় এই রোগ প্রতিরোধে টিকা দেওয়া হয় বাচ্চাদের৷ পোলিও নির্মূলের অনেক পদক্ষেপ নেওয়া হলেও তা যে পুরোপরি সফল হয়নি৷ আর ইদানিং এই রোগটির প্রাদুর্ভাব দেখা গেছে তাজিকিস্তানে৷

default

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পোলিও নির্মূলের জন্য শুরু করেছে প্রচারাভিযান

সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দেশ তাজিকিস্তান৷ সম্প্রতি এই দেশটিতে পোলিওর প্রাদুর্ভাব লক্ষ্য করা গেছে৷ গত দু দশক ধরে পোলিও নির্মূলের যে প্রচারাভিযান এবং কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছিল, তা মুখ থুবড়ে পড়েছে৷ ৪৫২ জন পোলিও রোগে আক্রান্ত – তা এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে নিশ্চিত করে তাজিকিস্তান৷ একই সময়ে রাশিয়াও সে দেশে সাত জন পোলিও রোগীর অস্তিত্বের কথা জানায়৷

১৯৮৮ সালে প্রায় সাত বিলিয়ন ডলারের প্রচারাভিযান শুরু করে বিভিন্ন স্বাস্থ্য দপ্তর এবং হেল্থ এজেন্সিগুলো৷ সেই প্রচারাভিযানের মূল লক্ষ্য ছিল গুটি বসন্তের মত পোলিওকেও নির্মূল করা, ইতিহাসের পাতায় পাঠিয়ে দেওয়া৷

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভাষ্য

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পোলিও নির্মূলের জন্য সারা বিশ্বেই প্রচারাভিযান শুরু করেছে৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র ড্যানিয়েল এপস্টাইন জানান, তাজিকিস্তানে পোলিওর প্রাদুর্ভাব চিন্তিত হওয়ার মতো বিষয়৷ তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, ‘‘পোলিও তাজিকিস্তান ছাড়িয়ে আরো দূর-দূরান্তে ছড়িয়ে পড়তে পারে, আমরা সে আশঙ্কাই করছি৷''

অলিভার রোজেনব্যার্গ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পোলিও নির্মূল কর্মসূচির মুখপাত্র৷ তাজিকিস্তানে বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে তিনি বললেন, ‘‘তাজিকিস্তানে পোলিওর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে একথা ঠিক৷ তাজিকিস্তান এর আগে পোলিওমুক্ত ছিল৷ কিন্তু সম্প্রতি সেখানে একটি ভাইরাস দেখা দিয়েছে এবং এই ভাইরাসটি এসেছে ভারত থেকে৷ পোলিও সংক্রামক ব্যাধি৷ এই কারণেই খুব সহজেই এর ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে৷ যেখানে পোলিও নেই বা কখনোই ছিল না – সেখানেও হঠাৎ করেই পোলিওর আবির্ভাব ঘটতে পারে৷ আর এ বছরের শুরুতে এ ধরণের ঘটনাই ঘটেছে তাজিকিস্তানে৷ প্রায় ৪৫০টি শিশু সেখানে পোলিও রোগে আক্রান্ত, সে খবর আমরা পেয়েছি৷ তাজিক সরকার যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, তা হল দেশের প্রতিটি শিশুকে অবিলম্বে টিকা দেয়া৷''

Dushanbeh, die Hauptstadt von Tajikistan

তাজিকিস্তানে দেখা গেছে পোলিওর প্রাদুর্ভাব

গত কয়েক দশক ধরে বিভিন্ন রোগ এবং মহামারি বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছিলেন, পোলিও যদি কখনো ফিরে আসে তাহলে তার প্রাদুর্ভাব দেখা যাবে আফ্রিকা এবং দক্ষিণ এশিয়ায়৷ কারণ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে এই এলাকাগুলোতেই বিভিন্ন মহামারির প্রাদুর্ভাব লক্ষ্য করা যায়৷

২০০৭ সাল পর্যন্ত পোলিওর প্রাদুর্ভাব দেখা গিয়েছিল মাত্র চারটি দেশে৷ ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং নাইজিরিয়া৷ অথচ এ বছরেই প্রায় ১৬টি দেশে প্রায় ১৬০০ রোগী পোলিওতে আক্রান্ত বলে জানানো হয়েছে৷

২০০২ সালে তাজিকিস্তান এবং রাশিয়ায় যে এলাকাগুলো ‘পোলিও মুক্ত' বলে ঘোষণা করা হয় – সেই এলাকাগুলোতেই পোলিও রোগটি দেখা দিয়েছে৷

দারিদ্র্যপীড়িত অঞ্চলেই পোলিও দেখা যাচ্ছে বেশি

তাজিকিস্তানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বেশ কিছু গ্রামে অনেক রোগী একই ধরণের লক্ষণ নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যায়৷ মাথা-ঘোরা, জ্বর এবং হাত-পা অবশ হয়ে যাওয়া – এই কথাগুলোই রোগীদের কাছ থেকে বের হয়ে আসে৷ তাজিকিস্তানের এই অঞ্চলটি অত্যন্ত দারিদ্র্যপীড়িত, উন্নত মানের জীবনযাত্রার সঙ্গে কেউই পরিচিত নয়৷

দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি যে, যখন রোগীরা এই কথাগুলো জানায় তাৎক্ষণিকভাবে চিকিৎসকরাও বুঝতে পারেনি যে এসব পোলিওর লক্ষণ৷ ফলে রোগীদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়৷ রোগীরা ফিরে যায় এবং আক্রান্ত করে অন্যদের৷ বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, যে ধরণের পোলিও এবং তার লক্ষণ তাজিকিস্তানে ধরা পড়েছে ঠিক একই ধরণের পোলিও দেখা গেছে ভারতের উত্তরাঞ্চলে৷ দৃশ্যত, তাজিকিস্তানে যারা পোলিও রোগে আক্রান্ত তাদের বয়স ১৬-র নিচে৷ যেসব রোগী পোলিওতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে, তাদের বয়স ২০ অথবা ২০-র নিচে৷

তাজিকিস্তানে পোলিও প্রতিরোধে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কীভাবে সাহায্য করছে ? অলিভার রোজোনব্যার্গ বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা বললেন, ‘‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা – ইউনিসেফ এবং অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে এক হয়ে তাজিক সরকারকে বিভিন্নভাবে সাহায্য এবং সহযোগিতা করছে৷ আমরা নজর রাখছি রোগীদের ওপর, আক্রান্তদের চলাফেরার ওপর৷ তারা সুস্থ হয়ে উঠছে সে খবর আমরা দ্রুত পৌঁছে দিচ্ছি নানা জায়গায়৷ যখনই পোলিওতে আক্রান্তর খবর আমরা পাচ্ছি সঙ্গে সঙ্গেই রোগীকে নিয়ে আসা হচ্ছে চিকিৎসার জন্য৷ এছাড়া সরকার দেশের প্রতিটি শিশুকে টিকা দেওয়ার যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সেটিতেও আমরা যা যা প্রয়োজন করছি৷ বিভিন্ন ভ্যাকসিনেশন টিম কোথায় যাবে, কতদিনের মধ্যে কাজ শেষ করতে হবে সেসব দিক দিয়েও আমরা সাহায্য করছি৷''

প্রতিবেদন: মারিনা জোয়ারদার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়