তাইওয়ানে বাড়ছে জার্মান বিনিয়োগ | অন্বেষণ | DW | 28.09.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

তাইওয়ানে বাড়ছে জার্মান বিনিয়োগ

যে শুধু তাইপে চেনে, সে তাইওয়ান সম্পর্কে কম জানে৷ শহরের কিছু অংশ টোকিওর কথা মনে করিয়ে দেয়৷ আর গাড়ির সীমাহীন লম্বা বহরকে তুলনা করা যায় শাংহাইয়ের সাথে৷

গো মিং লিন অবশ্য সন্তুষ্ট৷ তাইপের দক্ষিণে গাড়িতে এক ঘণ্টার দূরত্বে পল্লি এলাকায় তাঁর ফ্যাক্টরি অবস্থিত৷ তিনি বলেন, ‘‘আমরা ২৫ বছর আগে উৎপাদন কারখানার জন্য জায়গা খুঁজেছিলাম৷ তখন এখানে আসি৷ সেসময় এখানে ধানক্ষেত আর অল্প কিছু বাড়ি ছিল৷''

তাইওয়ানে অবস্থিত জার্মানির পারিবারিক মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ফ্রয়ডেনব্যার্গ-এর ফ্যাক্টরির প্রধান গো মিং লিন৷ জার্মান গাড়ি নির্মাতাদের পাশাপাশি এশিয়ার শীর্ষস্থানীয় প্রস্তুতকারীদেরও পণ্য সরবরাহ করে এই প্রতিষ্ঠানটি৷

পণ্যের উঁচু মান ধরে রাখতে প্রতিষ্ঠানটির একশো কর্মীকে বস নিজেই নিযুক্ত করেন৷ কোনো কর্মীকে শিফট তত্ত্বাবধানের দায়িত্ব দেওয়ার আগে চার বছর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়৷ কারখানার কর্মী চেং ই লিউ বলেন, ‘‘আমি খুবই সন্তুষ্ট৷ আমার চাকুরি নিয়ে ভাবনা নেই৷ ম্যানেজমেন্ট আমাদের সঙ্গে ন্যায়সংগত ব্যবহার করে৷ আর সবচেয়ে ভালো ব্যাপার হচ্ছে, আমার বাড়ি কারখানার কাছেই৷''

তাইওয়ানের এই কারখানায় একজন সাধারণ কর্মী বছরে পঁচিশ হাজার ইউরোর সমান আয় করেন৷ পল্লি এলাকার বিবেচনায় এই আয় বেশ ভালো৷ জীবনযাপনে বছরে খরচ পনের হাজার ইউরোর মতো৷ প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ডানিয়েল ম্যুলার বলেন, ‘‘ফ্যাক্টরির স্থান হিসেবে তাইওয়ানের অনেক সুবিধা রয়েছে৷ এখানকার কর্মীরা খুব অনুগত৷ আমাদের কিছু কর্মী বিশ বছরেরও বেশি সময়, মানে শুরু থেকেই এখানে কাজ করছেন৷ প্রকৌশলীরা ভালোভাবে শিক্ষিত৷ তাঁরা চীনা ভাষাও বলেন, যা চীনের বাজারে আমাদের প্রবেশের পথ সহজ করেছে৷''

গণপ্রজাতন্ত্রী চীনে না থাকলেও তাইওয়ানে কঠোর মেধাসত্ত্ব আইন রয়েছে, যা আইডিয়া চুরি রক্ষায় সহায়ক৷ আর এটাই ‘বুনন-হীন ফ্যাব্রিক' তৈরির ক্ষেত্রে এশিয়ার বাজারে শ্রেষ্ঠত্ব বজায় রাখতে ফ্রয়ডেনব্যার্গ-কে সহায়তা করেছে৷

ইন্টারনেট লিংক