1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

তাঁর ভুল ভেঙেছে সাত বছর পর

সাত বছর আগে মহানবির কার্টুন আঁকার প্রতিবাদে ভীষণ মুখর ছিলেন তিনি৷ এখন বলছেন, ডেনমার্কের সেই কার্টুনিস্ট তখন তেমন ভুল কিছু করেননি, কার্টুন আঁকার প্রতিবাদে তাঁর ভূমিকাই ছিল ভুল!

তরুণ ইসলামী নেতা আহমাদ আক্কারির এই পরিবর্তনে অসন্তুষ্ট অনেকেই৷

লেবানিজ বংশোদ্ভূত আহমাদ আক্কারিকে দেখলে এখন বোঝা মুশকিল যে তিনিই সেই লোক যিনি ২০০৫ সালে জিলান্ডস-পোস্টেন পত্রিকা ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের সর্বশেষ নবি হযরত মুহাম্মদ (সা:)-এর একটি কার্টুন প্রকাশ করায় প্রতিবাদে ফেটে পড়েছিলেন৷ এখন আর মুখে দাড়ি নেই৷ কথায় নেই সেই যুক্তি৷ বরং তখন নিজে যা করেছিলেন তাকে নিজেই ‘ভুল' বলছেন ৩৫ বছর বয়সি আহমাদ আক্কারি৷

ডেনমার্কের দৈনিক জিলান্ডস-পোস্টেনে কার্টুনটি প্রকাশিত হবার পর আক্কারি বলেছিলেন, এর মাধ্যমে ‘‘ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের অনুভূতিতে আঘাত দেয়া হয়েছে৷'' মুসলিম অধ্যুষিত অনেক দেশই বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছিল৷

Dänemark Cartoonist Kurt Westergaard

কার্টুনিস্ট কুর্ট ভেস্টারগার্ড

প্রতিবাদ-বিক্ষোভে সবাইকে সোচ্চার করায় আক্কারির ভূমিকা ছিল প্রত্যক্ষ৷ বিক্ষোভ জানাতে গিয়ে বেশ কিছু মানুষের প্রাণ গিয়েছিল৷ সিরিয়া, ইরান, আফগানিস্তান এবং লেবাননে ডেনমার্কের দূতাবাসে হামলা চালিয়েছিলেন বিক্ষোভকারীরা৷ তখন সবার আবেগের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করলেও সাত বছর পর বার্তা সংস্থা এপি-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে আক্কারি বলেছেন, ‘‘ তখন যে (সবাইকে প্রতিবাদে উদ্বুদ্ধ করতে) সফরে বেরিয়েছিলাম সেই বিষয়ে পরিষ্কার ভাষায় বলতে চাই - পুরো ব্যাপারটাই ছিল ভুল৷'' তখন বেশ কয়েকটি দেশ সফর করেছিলেন আক্কারি৷ লেবাননে ইসলামী নেতাদের উগ্র মানসিকতা দেখেই নাকি ভুল ভাঙে তাঁর৷ এই বোধোদয় থেকে গত সপ্তাহে বিতর্কিত সেই কার্টুনের শিল্পী কুর্ট ভেস্টারগার্ডের সঙ্গে দেখা করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন এখনো ডেনমার্কে বসবাসরত আক্কারি৷ কার্টুনটি প্রকাশের পর বেশ কয়েকবার হত্যার হুমকি পাওয়া ভেস্টারগার্ড ইসলামি নেতার পরিবর্তন দেখে খুশি৷

তবে ডেনমার্কের মুসলমানদের মধ্যে যাঁরা তখন বিক্ষোভে নেমেছিলেন তাঁদের বড় একটা অংশ আক্কারির এই পরিবর্তনে অসন্তুষ্ট৷ ইসলামিক সোসাইটি অফ ডেনমার্কের মুখপাত্র বিল্লাল এইচ. আসাদ জানিয়েছেন, মহানবিকে নিয়ে কার্টুন প্রকাশ করাকে তাঁদের সংগঠন এখনো অন্যায় মনে করে৷

এসিবি/জেডএইচ (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন