1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

তসলিমা নাসরিনকে গ্রেপ্তারের দাবি

ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানার অভিযোগে বাংলাদেশের বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে তাঁকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন ভারতের উত্তর প্রদেশের মৌলবি নুরি মিয়া৷ এতে লেখিকা বিস্মিত৷

উত্তর প্রদেশের বেরিলি জেলার ‘দরগা-ই-আলা-হজরত' এর মৌলবি হাসান রাজা খান নুরি মিয়া কোতয়ালি থানায় অভিযোগ করলে তার ভিত্তিতে পুলিশ লেখিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে৷ কোতয়ালির পুলিশ প্রধান জানান, মৌলবির জারি করা ফতোয়ার ওপর গত ৬ নভেম্বর তসলিমা টুইটারে কিছু ‘অবমাননাকর মন্তব্য' করায় তার ভিত্তিতে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে৷ হাদিস ও কোরান অনুসারে মৌলবি নুর মিয়া তাঁর ফতোয়ায় তসলিমার পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত এবং তাঁকে গ্রেপ্তারের দাবি জানান৷

উল্লেখ্য, গত মাসে দিল্লি নির্বাচনে আগে আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল মৌলবির সঙ্গে দেখা করে তাঁর সমর্থন চান৷ এটা নিয়েই টুইট করেন তসলিমা নাসরিন৷

এফআইআর দায়ের করার খবরে তসলিমা নাসরিন বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, ‘‘টুইট করে কী অন্যায়টা আমি করেছি? ভারতের মতো এক গণতান্ত্রিক দেশের সংবিধানে যেখানে বাক-স্বাধীনতার অধিকার স্বীকৃত, সেখানে আমার অপরাধটা কোথায়? কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় ভাবাবেগে আমি কখনো আঘাত করিনি এবং করতে চাই না৷ আমার প্রতিবাদ ধর্মীয় মৌলবাদের বিরুদ্ধে৷'' নতুন দিল্লির এক গোপন বাসস্থান থেকে টেলিফোনে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়াকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে একথা জানান তিনি৷ তসলিমার বক্তব্য, লেখিকা হিসেবে তাঁর লড়াই কোনো ব্যক্তিবিশেষের বিরুদ্ধে নয়, লড়াই মৌলবাদের বিরুদ্ধে৷

তিনি বলেন, ‘‘মৌলবাদীরা মানবাধিকারের বিরোধী বলে আমার বিরুদ্ধে তাঁদের এতো আক্রোশ৷ কারণ, আসল সত্যটা আমি আমার লেখায় চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে আসছি তাই৷ আমি এমন সমাজের স্বপ্ন দেখি যে সমাজ হবে ধর্মীয় মৌলবাদ মুক্ত, মানবাধিকার বিশেষ করে নারী সমাজের আত্মসম্মান যেখানে প্রতিষ্ঠিত৷''

৬ ডিসেম্বর উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঐতিহাসিক কলঙ্কের একবিংশ বার্ষিকীর সঙ্গে তসলিমাকে গ্রেপ্তারের দাবির কোনো যোগসূত্র আছে? যদিও দুটি ঘটনার বৃত্তে আছে সেই ধর্মীয় ভাবাবেগ৷ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে গোটা অযোধ্যা শহরকে মুড়ে ফেলা হয়েছে নিরাপত্তার চাদরে৷ ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয়ে মোতায়েন করা হয় ১০ হাজার পুলিশ, ব়্যাপিড অ্যাকশন ফোর্স ও আধা সামরিক বাহিনী৷ সব রকম ধর্মীয় সমাবেশ, উৎসব, সভা ইত্যাদি নিষিদ্ধ করা হয়েছে৷

উল্লেখ্য ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে কোলকাতা বইমেলায় প্রকাশিত হবে নারী অধিকারের ওপর তাঁর লেখা বিভিন্ন প্রবন্ধের এক সংকলন৷ ২০০৭ সালে তসলিমার ভিসা নবায়ন নিয়ে মুসলিম মৌলবাদীদের একাংশের প্রতিবাদে তাঁকে কোলকাতা ছাড়তে হয়৷ তাঁর বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করে তাঁর মাথার দাম রাখা হয় পাঁচ লাখ টাকা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়