1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘তনু হত্যার বিচার করতে সরকারের ইচ্ছা যতদিন, ততদিন লাগাবে'

অনেক নাটকের পর শেষ পর্যন্ত ডিএনএ টেস্টের ফলাফলে জানা গেল, তনুকে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছিল৷ তনু হত্যার বিচার হওয়া নিয়েও চলছে নানা নাটক৷ তাই বিচার হবে কিনা, সে সম্পর্কে ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেকে৷

তনু হত্যার বিচার যে কোনোদিনই হবে না, সে ব্যাপারে পুরোপুরি নিশ্চিত ডয়চে ভেলের পাঠক মোহাম্মদ আলী৷ তিনি মনে করেন, ‘‘একটা ইস্যুকে ধামাচাপা দিতে আরেকটা ইস্যু তৈরি করা হয়৷ তনু হত্যা ইস্যু বলির পাঠা হয়ে গেছে৷ তদন্তের গতি আর অবস্থা দেখে কারো সেটা বুঝতে বাকি নাই৷''

তনু হত্যার বিচার হওয়া নিয়ে মোহাম্মদ আলীর মতো একই ধারণা পাঠক আহসান বাবুরও৷ তাঁর মন্তব্য, ‘‘আমরা কতটা বোকা হলে এখনও আশা করতে পারি যে তনু হত্যার বিচার হবে!!''

মানুষ অবিবেচক হলেও সৃষ্টিকর্তা যে অবিবেচক নন, সেটাই মনে করিয়ে দিয়েছেন মোহাম্মদ জেলাল আহমেদ৷ তাঁর ভাষায়, ‘‘তনু হত্যার বিচার কোনোদিন শেষ হবে না৷ কেয়ামতের পর আল্লাহ তা'লা সব ফয়সালা করবেন৷ দুনিয়াতে মানুষকে ফাঁকি দিতে পারলেও আল্লাহকে ফাঁকি দিতে পারবে না৷ আর তিনিই একমাত্র বিচারক যিনি সঠিক বিচার করেন৷''

এছাড়া মধু মন্ডল, মোহাম্মদ জামিল, মঞ্জুরুল আলম, আরকিফুল ইসলামের মতেও তনু হত্যার বিচার কখনো শেষ হবে না৷ তবে দীপু রহমান আশার বাণী শোনাচ্ছেন যে, এই বিচার হতে বেশি দিন নাকি লাগবে না৷

‘‘সরকারের ইচ্ছা যতদিন ততদিন লাগাবে, তনু হত্যার বিচার করতে'' – এই মন্তব্য মোহাম্মদ জীবন মোল্লার৷

মানুষকে আজব প্রাণী বলে আখ্যা দিয়েছেন ফেসবুক বন্ধু সাব্বির৷ ‘‘আসলেই আমরা মানুষরা এক আজব প্রাণী৷ কারণ ফেসবুক তনুকে নিয়ে কয়েকদিন আলোচনার ঝড় বইছিল, তারপরই সব শেষ৷ এখন যে যার মতো ব্যস্ত, কারণ ওখানে যে আমাদের কোনো স্বার্থ নেই৷''

পাঠক মোহাম্মদ আক্কাস মনে করেন, ‘‘একটার পর একটা হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটার জন্য দায়ী বাংলাদেশ সরকার৷ দেশের বিচার বিভাগ ঠিক থাকলে, অর্থাৎ একটা হত্যার সঠিক বিচার হলে অন্যটি ঘটতো না৷''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন