1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

তথ্য প্রযুক্তি খাতে আসবে বিশাল পরিবর্তন, সুযোগ হবে চাকরির

জার্মানির হানোফারে শুরু হয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম তথ্য প্রযুক্তি মেলা সেবিট-২০১১৷ এবারের মেলায় নবতম তথ্যপ্রযুক্তি প্রদর্শনের সঙ্গে সঙ্গে খোঁজা হচ্ছে এই খাতের জন্য লোকবল৷

default

জার্মান প্রযুক্তি খাতের সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন, এই বছরে তথ্য প্রযুক্তি খাতে বিশাল একটি পরিবর্তন আসবে৷ আর এই পরিবর্তনটির কারণে ব্যবসা হবে সম্প্রসারিত৷ নতুন বিনিয়োগও হবে এই খাতে৷ আর এ কারণে এই খাতে সৃষ্টি হবে নতুন চাকরির৷

ইউরোপের অর্থনীতির বিশাল একটি অংশ দখল করে আছে আইটি ইন্ড্রাষ্ট্রি৷ ২০১১-২০১২ অর্থ বছরে এই খাত সম্প্রসারিত হবে অন্তত ২ শতাংশ হারে৷ কেবল চলতি বছরেই ১০ হাজার নতুন কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে বলেই আশা জার্মান তথ্য প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট কোম্পানিগুলোর মালিকদের সংগঠন বিটকমের৷ এই সংগঠনের প্রেসিডেন্ট আউগুস্ট ভিলহেল্ম শিয়ার৷ তিনি জানালেন, অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো হওয়া, হাইটেক বাজারে চাহিদা বৃদ্ধির কারণেই বদলে যাচ্ছে চিত্র৷

Flash-Galerie Deutschland Computermesse CeBIT 2011 in Hannover

বিশ্বব্যাপী টেলিযোগাযোগ খাত এ বছর ৪ দশমিক ৪ শতাংশ এবং আগামী বছর ৫ দশমিক ৩ শতাংশ হারে সম্প্রসারিত বলেই আশাবাদ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা৷ আর এ খাতের উন্নতি মানেই তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন৷

সেবিট মেলাতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো জার্মানির বিভিন্ন সংস্থাও যোগ দিয়েছে৷ এর মধ্যে অন্যতম জার্মান প্রকৌশল সমিতি৷ তারা জানাচ্ছে ভিন্ন খবর৷ বলছে, জার্মান সফটওয়্যার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিদেশে তাদের শাখা খুলতে পারছে না কেবল অন্য দেশে জার্মান ভাষা জানা লোকের অপ্রতুলতার কারণে৷ ঐ সমিতির এক সমীক্ষার কথা উল্লেখ করে এর কর্মকর্তা ডিটার ভেস্টারকাম্প বলেন, জার্মানির এ ধরণের কোম্পানিগুলোর মধ্যে অন্তত এক পঞ্চমাংশ কোম্পানি বিদেশে তাদের শাখা খুলেছে৷ যেখানে স্বল্প খরচে সফটওয়্যার প্রস্তুত করা হচ্ছে৷ অন্যরাও তা করতে চায়৷ কিন্তু পারছে না কেবল ঐ ভাষা সমস্যার কারণে৷

তিনি জানান, জার্মানিতে এখনও সাড়ে ১৬ হাজার তথ্য প্রযুক্তি বিশারদের পদ শূন্য রয়েছে৷ বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে ২০০৯ সালে ১৯ হাজার শিক্ষার্থী এ বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি গ্রহণ করলেও এদের মধ্য থেকে খুব কম সংখ্যক চাহিদা অনুসারে শূণ্য পদ পূরণ করতে পারছেন৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়