1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ঢাকা মেডিকেলে অস্ত্রোপচার করছে সুইপার, পিয়ন'

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন নিউজ-এর দুই পর্বের এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে যে, দেশের সবচেয়ে বড় চিকিৎসাকেন্দ্র ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অপারেশনের কাজ করছে সুইপার, পিয়ন আর বহিরাগতরা৷

শুধু মাঝে মধ্যে নয়, নিয়মিতই নাকি এমন দায়িত্ব পালন করছেন হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা – এমন চিত্র দেখানো হয়েছে ঐ প্রতিবেদনে৷ এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ চতুর্থ শ্রেণির সরকারি কর্মচারী সমিতির সভাপতি এম এ খালেক এটিএন নিউজকে বলেন, ‘‘আমাদের যদিও এ কাজের কোনো এখতিয়ার নেই, কিন্তু যখন ইমারজেন্সি রোগী আসে তখন অনেক সময়ই দেখা যায় যে ডাক্তার থাকে না৷ এ সময় রোগীর ব্লিডিং বন্ধের জন্য আমাদের লোকজন কাজ করে৷ কেননা দেখা যায় যে, রোগীর আত্মীয়-স্বজনরা চিল্লাচিল্লি করে৷ ওদের থামানোর জন্য আমাদের লোকজন এ কাজগুলো করে দেয়৷ অবশ্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যদি চায়, তাহলে আমাদের লোকজন একাজ করবে না৷''

টিভি চ্যানেলের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ‘আমাদের সময়' পত্রিকায় প্রকাশিত একটি রিপোর্ট ফেসবুকে শেয়ার করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক একেএম ওয়াহিদুজ্জামান৷ রিপোর্টটির সঙ্গে মন্তব্য যোগ করে তিনি লিখেছেন, ‘‘খুবই ভালো খবর! পোলাপানরে আর ডাক্তার বানানোর জন্য চাপ না দিয়া ঢামেকে সুইপার পদে চাকরি দেওন দরকার৷''

Krankenhaus in Bangladesch

ঢাকার একটি হাসপাতাল (ফাইল ফটো)

তাঁর এই মন্তব্যের মতো আরেক ফেসবুক ব্যবহারকারী রোমানা কবির রহমান লেখেন, ‘‘আমার দুই মেয়েকে সুইপার আর পিয়নই বানাবো৷ টাকা খরচ করে ডাক্তারি পড়ানোর কি দরকার?''

এদিকে, শামসুল হুদা ঘটনাটিকে ‘খুবই দুঃখজনক' বলেছেন৷ আর একটি উপজেলার নারী বিষয়ক কর্মকর্তা শেরিন ইসলাম লিনা বলেছেন ‘ভয়ংকর'৷

শুধু ঢাকা মেডিকেলেই নয়, আরো অনেক সরকারি হাসপাতালে এই অবস্থা চলছে বলে মন্তব্য নুর-ই-আলম সিদ্দিকীর৷ তবে নির্ঝরা নিলা নামের চিকিৎসাবিজ্ঞানের এক সাবেক শিক্ষার্থী দ্বিমত পোষণ করেন৷

এছাড়া আরিফ মোহাম্মদ ফিরোজ ইফতেখার এ লেখেন, ‘‘ঢাকা মেডিকেল কলেজের দোষ কি? আমাদের নেতা, পাতি নেতাদের শরীর হাল্কা গরম হইলেও সিঙ্গাপুর/ব্যাংকক দৌড়াদৌড়ি করে৷ আগে উনাদের বিদেশে চিকিৎসা সুবিধা বন্ধ করতে হবে...৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন