1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

ঢাকা-পায়রা বন্দর রেললাইন: সবচেয়ে বড় রেল প্রকল্প

ব্রিটিশ এক কোম্পানির সঙ্গে সম্প্রতি একটি সমঝোতা চুক্তি সই করেছে বাংলাদেশ৷ ফলে ৬০ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের তৃতীয় সমুদ্রবন্দর পায়রার সঙ্গে রাজধানীর যোগাযোগ স্থাপিত হবে৷

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান

২৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ এই রেললাইন স্থাপনের কাজ ২০২৪ সালে শেষ হওয়ার কথা৷

মঙ্গলবার ঢাকায় বাংলাদেশ রেলওয়ে ও ব্রিটিশ কোম্পানি ডিপি রেল লিমিটেড ইউকে-র মধ্যে চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়৷ এসময় রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ও যুক্তরাজ্যের বাণিজ্য দূত রুশনারা আলী উপস্থিত ছিলেন৷

বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমে প্রকাশিত প্রতিবেদন বলছে, ‘‘চুক্তি অনুযায়ী যুক্তরাজ্যের প্রতিষ্ঠানটি নকশা প্রণয়ন, অর্থায়ন, লাইন নির্মাণ ও পরিচালনার দায়িত্ব পালন করবে৷ এ কাজে সহযোগিতা করবে চায়না রেলওয়ে কনস্ট্রাকশন করপোরেশন৷’’

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি বলছে, ‘‘এই রেলপথের মাধ্যমে বছরে প্রায় ২০ লাখ ইউনিট কনটেনার পরিবহন সম্ভব হবে৷’’ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, ‘‘দক্ষিণ অঞ্চলের জন্য এ রেললাইনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে বরিশাল বিভাগ প্রথমবারের মতো রেল সংযোগের আওতায় আসবে৷’’ এটি রেল খাতের সবচেয়ে বড় প্রকল্প বলেও উল্লেখ করেন তিনি৷

উল্লেখ্য, পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নে রামনাবাদ চ্যানেলের পশ্চিম তীরে এই সমুদ্রবন্দর গড়ে উঠছে৷ এতে ব্যয় হবে ১,১৪৪ কোটি টাকা৷

তবে জাহাজ ভেড়ার অবকাঠামো নির্মিত হয়ে যাওয়ায় আগেই সেখানে জাহাজ ভিড়তে শুরু করেছে৷ কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ১৩ আগস্ট পায়রা বন্দরে বাণিজ্যিক জাহাজ থেকে পণ‌্য খালাস কার্যক্রম উদ্বোধন করেন

এদিকে, বন্দরের মূল অবকাঠামো নির্মাণ, তীর রক্ষা বাঁধ ও অন‌্যান‌্য স্থাপনা নির্মাণে কয়েকদিন আগে চীনের দু'টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তিনটি সমঝোতা স্মারকে সই করেছে সরকার৷

জেডএইচ/ডিজি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন