1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ঢাকায় বিকল্প যান হিসেবে সাইকেল

যানজটের শহর ঢাকায় যানবাহন হিসেবে সম্প্রতি তরুণ প্রজন্মের কাছে সাইকেলের জনপ্রিয়তা বেড়েছে৷ তাই সাইকেল নিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা লিখেছেন বাংলাদেশের ব্লগাররাও৷ তারই কিছু নমুনা আজকের ব্লগওয়াচ-এ৷

সামহয়্যার ইন ব্লগে কাজী রায়হান লিখেছেন,

‘‘আপনি কেন সাইকেল চালাবেন?'' তিনি লিখেছেন, ‘‘আদাবর থেকে মতিঝিল যেতে চাইলে আপনাকে হেঁটে বা রিকশায় শ্যামলী আশতে হবে৷ শ্যামলী থেকে আল্লাহার নামে মতিঝিলগামী বাসে চড়ে বসতে হবে, এই ক্ষেত্রে বাসে আপনি সিট পাবেন কিনা সেটা নির্ভর করে শতভাগ ভাগ্যের উপর৷ লম্বা সময় টিকেট কাউন্টারে লাইনে দাঁড়িয়ে দেখা যায় ৫০ জনের বাসে ১৫০ জন নিয়ে বাস স্ট্যান্ডে আসল তখন বাসের দরজায় ঝুলে যাওয়া ছাড়া আর কোনো বিকল্প থাকে না৷ যাই হোক কোনো ক্রমে যদি আপনি ঝুলে যেতে পারেন ধরে নিতে হবে আগামী দেড় থেকে দুই ঘণ্টা এভাবেই ঝুলে থাকতে হবে৷''

তিনি অবস্থা বর্ণনা করেছেন এভাবে – ‘‘শ্যামলী থেকে মতিঝিল সর্বোচ্চ ১০ কিমি, মাত্র ১০ কিমি পথ আপনার যেতে খরচ হল দুই ঘণ্টা, সাথে অক্লান্ত পরিশ্রম৷ ক্লান্ত শ্রান্ত এবং বিরক্ত হয়ে আপনি অফিসে ঢুকছেন, দিন শুরু করছেন৷ একইভাবে অফিস ছুটির পরে সেই ভোগান্তি নিয়ে বাড়ি ফিরছেন৷ তবে এবার সময় আরো বেশি লাগছে, কারণ সন্ধ্যায় ঢাকার ট্রাফিক আরো বেশি ভয়ংকর হয়ে ওঠে৷ আবারো সেই লাইন, ঝুলে যাওয়া, ঘেমে নেয়ে একাকার, পাবলিকের ঝগড়া, গালাগালি ইত্যাদি পারিপার্শ্বিক নেতিবাচক ঘটনা যা আপনার উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে৷ আর এই মানসিক এবং শারীরিক ভোগান্তির কারণে বাড়ি ফিরেও আপনার মেজাজ হয়ত প্রায়ই খিটখিটে থাকে৷''

তিনি যাতায়াতের একটা হিসেব তুলে ধরেছেন৷ লিখেছেন, ‘‘আপনি ব্যাপারগুলোকে মেনে নিয়েছেন৷ এভাবেই বছরের পর বছর ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময় নষ্ট করে যাচ্ছেন, টাকা খরচ করে যাচ্ছেন আপনার ট্রান্সপোর্ট সিস্টেমে৷ একজন সাধারণ চাকুরিজীবী মানুষের অফিস এবং অন্যান্য স্থানে যাতায়াত বাবদ মাসে ন্যূনতম ২০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা খরচ হয়৷ বছরে ২৪,০০০ টাকা থেকে ৬০,০০০ টাকা৷''

কাজী রায়হান তাই একটা বিকল্প উপায়ের কথা উল্লেখ করেছেন৷ বলেছেন সাইকেল কিনতে৷ লিখেছেন, ‘‘আপনার দিন শুরু হবে উৎফুল্ল মন এবং মানসিক প্রশান্তি নিয়ে৷ বাসের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হবে না৷ কখন বাস আশবে সেই উৎকণ্ঠায় থাকতে হবে না৷ বাসা থেকে নিজের সাইকেলটা নিয়ে হেলমেট মাথায় চাপিয়ে বের হয়ে যাবেন৷ অফিস যদি শুরু হয় ১০ টায় তাহলে ৯:১৫ মিনিটে বের হলেই যথেষ্ট৷ একটি ভালো মানের আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের সাইকেলের ন্যূনতম মুল্য – ১৩,৫০০ থেকে ২০,০০০ টাকা৷ ২০,০০০ টাকাকে যদি আপনি আপনার যাতায়াতের বিনিয়োগ হিসেবে ধরেন, তাহলে মাত্র দশ মাসেই আপনার টাকা উঠে আসে, আর সেই সাইকেলটি আপনি কম হলেও ৬-৭ বছর চালাতে পারবেন৷''

তিনি ঢাকার বর্তমান চিত্র তুলে ধরে বলেছেন, ‘‘গত দুই বছরে অনেক পরিবর্তন হয়েছে, এখন রাস্তায় অনেকেই সাইকেল চালাচ্ছেন৷ নিজেদের যাতায়াত সমস্যার সমাধান করছেন, বোনাস হিসেবে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সাইকেল বন্ধুদের সাথে একটু দূরে ঘুরে বেড়াতে যাচ্ছেন৷ সেগুলোর মূল্য টাকা দিয়ে নির্ধারণ করা যাবে না৷''

তিনি আরো বেশ কিছু টিপস দিয়েছেন সাইকেল আরোহীদের জন্য৷ শেষে লিখেছেন, ‘‘সাইকেল চালান, দেখবেন আপনার হাতে প্রতিদিন অনেক অবসর সময়৷ জীবনটা উপভোগ করুন দুই চাকায়৷''

এই ব্লগের মন্তব্যে সোহানী লিখেছেন,

‘‘কঠিনভাবে সহমত৷ এভাবে সবাই শুরু করলে আমরা মেয়েরাও সাহস করে একদিন নেমে পড়বো সাইকেল নিয়ে৷''

নীল আকাশ ব্লগার কাজী রায়হানকে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন৷ লিখেছেন, ‘‘এ জন্য একটা ফেসবুক ফ্যান পেজ খুলুন৷ আমরা তাতে বেশি বেশি লাইক দেব৷ সাইকেল আরোহীদের চমৎকার সব ছবি সেখানে আপলোড করব, যাতে মানুষ বেশি বেশি সাইকেল চালাতে অনুপ্রাণিত হয়৷''

এছাড়া ছোটদের প্রশিক্ষণের ব্যাপারেও লিখেছেন তিনি৷ লিখেছেন, ‘‘ছোটদের সাইকেল চালানোর প্রশিক্ষণ ক্যাম্প প্রত্যেকটি আবাসিক এলাকায় আমাদের উদ্যোগে চালু হতে পারে৷ প্রত্যেক স্কুলে সাইকেল স্ট্যান্ড তৈরি ও স্কুলের কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে সাইকেল প্রশিক্ষণের আয়োজন করা যায়৷''

এ বছরের জুনে ঢাকায় সাইকেল চালানোর জন্য আলাদা লেন করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বন ও পরিবেশ বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান মাহমুদ৷

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়