1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ঢাকার ৭০ ভাগ মানুষের স্থায়ী ঠিকানা নেই

রাজধানীর ৭০ ভাগ মানুষের স্থায়ী কোন আবাসস্থল বা ঠিকানা নেই৷ সারাদেশে নিজস্ব আবাসহীন মানুষের সংখ্যা ৫০ ভাগ৷ বিশ্বে সর্বাধিক আয় বৈষম্যের এই ভবিষ্যতে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হবে৷

default

ঢাকার বস্তি

বিশ্লেষকরা বলছেন আমরা এখন একটি বিস্ফোরন্মুখ বোমার উপর বসবাস করছি৷ দেখা দিতে পারে চরম সামাজিক অসন্তোষ ও গণরোষ৷

রাজধানীকে এখন ‘বস্তির নগরী' বলতে চান বিশ্লেষকরা৷ আর এসব বস্তিতে বসবাস করেন ঢাকার প্রায় ৫০ ভাগ মানুষ৷ যারা গরীব ও নিম্নবিত্ত৷ কিন্তু মধ্যবিত্ত আর নিম্ন মধ্যবিত্তরাও ভালো নেই৷ তাঁরাও অনেকটা ঝরা পাতার মত এই নগরীতে ছুটে বেড়ান মাথা গোঁজার ঠাঁইয়ের খোঁজে৷ নগর পরিকল্পনাবিদ ড. নজরুল ইসলাম জানান, ঢাকার মাত্র ৩০ ভাগ মানুষের নিজস্ব মালিকানাধীন আবাসস্থল আছে৷ ৩০ ভাগ মানুষ ভাড়া বাড়িতে থাকেন৷ আর বাকি ৪০ ভাগ থাকেন বস্তিতে৷ স্থপতি ইকবাল হাবিব জানান, সারা দেশের চিত্রও মোটামুটি একই রকম৷ কারণ গ্রামের ৫০ভাগ মানুষ এখন ভূমিহীন৷ তাঁদেরও নিজস্ব কোন বসতবাড়ি নেই৷অন্যের জমিতে ঘর তুলে থাকেন৷

স্বাধীনতার পর দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ছিল ৮০ ডলার৷ আর এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে সাতশো ডলারে৷ কিন্তু আয় বৈষম্যও বেড়েছে ব্যাপক - বললেন ড. নজরুল ইসলাম৷ তাঁর মতে বাংলাদেশ বিশ্বের সর্বাধিক আয় বৈষম্যের দেশ৷ ফলে আবাসন সংকট আরো চরম আকার ধারণ করেছে৷ যা ভয়ংকর পরিস্থিতি ডেকে আনতে পারে বলে আশংকা করেন স্থপতি ইকবাল হাবিব৷

এ অবস্থায় সামাজিক আবাসনের কথাই বলছেন বিশ্লেষকরা৷ যাতে সরকারী ও বেসরকারী উদ্যোগে স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য ছোট আকারের ফ্ল্যাট তৈরি হবে৷ আর ভাড়ার বিপরীতে দাম শোধ করে ব্যবস্থা করতে হবে তাদের মালিকানা দেওয়ার৷

প্রতিবেদন : হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা : সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সংশ্লিষ্ট বিষয়