1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ক্রিকেট

ঢাকার মাঠে চার বলেই ৯২ রান!

এ এক নতুন রেকর্ড৷ মাত্র চারটি ‘বৈধ' বল করে ৯২ রান দিয়েছেন সুজন মাহমুদ৷ ঢাকার মাঠে এই কীর্তি তিনি গড়েছেন নাকি বাজে আম্পায়ারিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে৷

মঙ্গলবারের ঘটনা৷ ঢাকা সেকেন্ড ডিভিশন ক্রিকেট লিগের একটি ম্যাচে লালমাটিয়া ক্লাবের বিপক্ষে খেলছিল এক্সিওম ক্রিকেটার্স৷ প্রথমে ব্যাট করে সব উইকেট হারিয়ে সাকুল্যে ৮৮ রান তুলতে সক্ষম হয় লালমাটিয়া৷ নিজেদের এই ব্যাটিং ব্যর্থতার পেছনে অবশ্য আম্পায়ারের একের পর এক ভুল সিদ্ধান্তকে দায়ী করেছেন তারা৷ এবং তার প্রতিবাদ জানাতেই নাকি সুজন মাহমুদ বেছে নিয়েছেন এক অভিনব পন্থা৷

বোলিংয়ের সুযোগ পেয়ে তিনি মাত্র চারটি বৈধ বলেই দিয়ে দিয়েছেন ৯২ রান৷ ভাবছেন কীভাবে? ১৫টি নো বল এবং ১৩টি ওয়াইড দিয়েছেন তিনি, সেগুলো আবার সীমানাও পেরিয়েছে কয়েকবার৷ আর চারটি বৈধ ডেলিভারি থেকে এসেছে ২১ রান৷ ফলে এক্সিওম জিতে গেছে কার্যত তেমন কোনো কষ্ট না করেই৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

লালমাটিয়া দলের সাধারণ সম্পাদক আদনান রহমান দিপন অবশ্য এমন খেলার এক ব্যাখ্যা দিয়েছেন৷ স্থানীয় গণমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘‘টস দিয়েই ঘটনার শুরু হয়েছিল৷ আমাদের অধিনায়ককে কয়েন দেখতে দেয়া হয়নি এবং আমাদের আগে ব্যাট করতে পাঠানো হয়েছে৷''

‘‘আম্পায়ারের সিদ্ধান্তগুলোও আমাদের বিরুদ্ধে গেছে,'' ঢাকা ট্রিবিউন পত্রিকাকে বলেন তিনি৷

প্রসঙ্গত, ঢাকার এই টুর্নামেন্টে আম্পায়ারিং নিয়ে বেশ ভালো বিতর্কই হচ্ছে৷ গত সোমবার ফিয়ার ফাইটার্স স্পোর্টিং ক্লাবেব তাসনিম হাসানও একইরকম কাজ করেছেন৷ আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সাতটি বৈধ বল করে ৬৯ রান দিয়েছেন তিনি৷

ক্লাব ক্রিকেটের দ্বিতীয় বিভাগ লিগের এই দশা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও মন্তব্য করেছেন কেউ কেউ৷ মোহাম্মদ জান এ আলম ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘হ্যাঁ, আমাদের ক্রিকেট উন্নতির শিখরে পৌঁছে যাচ্ছে৷ ঘরোয়া ক্রিকেটে চার বলে ৯২ রান হয়! উন্নতির এ মহাউৎসবে..... সবাই তালিয়া বাজান৷'' আর সুব্রত ববি লিখেছেন, ‘‘৪ বলে ৯২ রান দিয়ে প্রতিপক্ষকে জিতিয়ে দেয়া৷ বাজে আম্পায়ারিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের এ এক অভিনব ভাষা৷ নিশ্চিত মনে হয়, এটা বিশ্ব রেকর্ড৷ বইয়ের পাতায় চার বলে এত রান দেয়ার নজির খুজে পেলাম না চেষ্টা করেও৷''

এআই/এসিবি (রয়টার্স, ঢাকা ট্রিবিউন)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক