1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ড্রোন নিয়ে উত্তপ্ত জার্মানি

ড্রোন নিয়ে আলোচনা মানে কেন্দ্রবিন্দুতে অনিবার্যভাবেই পাকিস্তান বা আফগানিস্তান৷ জার্মানিতে সে আলোচনায় শুধু টোমাস ডেমেজিয়ের৷ জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী ডেমেজিয়েরের পদত্যাগের দাবিও উঠেছে ড্রোন বিমান ইউরো হকের কারণে৷

পাক-আফগান সীমান্তে মার্কিন ড্রোন হামলায় হতাহতের ঘটনা এবং ঘটনার প্রতিবাদ – এই দুই ধরণের খবরে মোটামুটি অভ্যস্ত হয়ে গেছেন অনেকেই৷ তবে জার্মানিতে ড্রোন নিয়ে তুমুল আলোচনা এবারই প্রথম৷ আকাশ থেকে নজরদারির জন্য তৈরি করা হয়েছিল ড্রোন৷ চালকবিহীন এই বিমানকে অবশ্য হামলা করে মানুষ হত্যার উদ্দেশ্যেও ব্যবহার করা হচ্ছে৷ জার্মান সরকার যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনের আদলে ‘ইউরো হক' তৈরির উদ্যোগ নিয়েছিল৷ উদ্যোগটি ইউরোপীয় বিমানচলাচল কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পাবে না জেনে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পটি বন্ধ করা হয়েছে৷ তারপরও বিরোধী দলগুলো প্রতিবাদে সোচ্চার৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রী টোমাস ডেমেজিয়ের প্রকল্পের পেছনে ৬৬০ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় হয়ে যাবার পর কেন সিদ্ধান্তটা নিলেন – এই প্রশ্ন রেখে জনগণের করের টাকার অপচয়ের জন্য দায়ী করে তাঁর পদত্যাগও দাবি করে বিরোধী দলগুলো৷ তিন মাস পরই জার্মানিতে নির্বাচন৷ তার আগে ড্রোন নিয়ে এমন কাণ্ড আঙ্গেলা ম্যার্কেল সরকারকে বেশ চাপে ফেলেছে৷

Bundesverteidigungsminister Thomas de Maiziere (CDU) gibt am 05.06.2013 im Paul-Löbe-Haus in Berlin nach der Sitzung des Verteidigungsausschuss des Bundestages ein Statement ab. Er musste den Parlamentariern den Bericht zur «Euro Hawk»-Affäre vorlegen und erläutern. Foto: Maurizio Gambarini/dpa +++(c) dpa - Bildfunk+++

জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী টোমাস ডেমেজিয়ের

বুধবার বিষয়টি নিয়ে প্রতিরক্ষা ও বাজেট বিষয়ক সংসদীয় কমিটির মুখোমুখি হতে হয় ডেমেজিয়েরকে৷ সেখানে জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী দেরিতে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য দায়ী করেছেন দুই সচিব স্টেফানে বেমেলমানস এবং রুয়েডিগার ভোল্ফকে৷ মন্ত্রীর দাবি, প্রকল্পটি যে বন্ধ করা ছাড়া গতি নেই ওই দু'জন তা গত ফেব্রুয়ারিতে জেনে গেলেও তাঁকে জানানো হয়েছে গত ১০ জুন৷ তার চারদিন পরই ‘ইউরো হক' প্রকল্প বন্ধ ঘোষণা করা হয়৷

বিরোধী শিবির পদত্যাগের দাবি তুললেও নিজের দল সিডিইউ-তে টোমাস ডেমেজিয়েরের অবস্থা এখনো ভালো৷ চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল জানিয়ে দিয়েছেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ওপর তাঁর পূর্ণ আস্থা আছে৷

এসিবি/ডিজি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন