ড্রোন নিয়ে উত্তপ্ত জার্মানি | বিশ্ব | DW | 06.06.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ড্রোন নিয়ে উত্তপ্ত জার্মানি

ড্রোন নিয়ে আলোচনা মানে কেন্দ্রবিন্দুতে অনিবার্যভাবেই পাকিস্তান বা আফগানিস্তান৷ জার্মানিতে সে আলোচনায় শুধু টোমাস ডেমেজিয়ের৷ জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী ডেমেজিয়েরের পদত্যাগের দাবিও উঠেছে ড্রোন বিমান ইউরো হকের কারণে৷

পাক-আফগান সীমান্তে মার্কিন ড্রোন হামলায় হতাহতের ঘটনা এবং ঘটনার প্রতিবাদ – এই দুই ধরণের খবরে মোটামুটি অভ্যস্ত হয়ে গেছেন অনেকেই৷ তবে জার্মানিতে ড্রোন নিয়ে তুমুল আলোচনা এবারই প্রথম৷ আকাশ থেকে নজরদারির জন্য তৈরি করা হয়েছিল ড্রোন৷ চালকবিহীন এই বিমানকে অবশ্য হামলা করে মানুষ হত্যার উদ্দেশ্যেও ব্যবহার করা হচ্ছে৷ জার্মান সরকার যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোনের আদলে ‘ইউরো হক' তৈরির উদ্যোগ নিয়েছিল৷ উদ্যোগটি ইউরোপীয় বিমানচলাচল কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পাবে না জেনে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পটি বন্ধ করা হয়েছে৷ তারপরও বিরোধী দলগুলো প্রতিবাদে সোচ্চার৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রী টোমাস ডেমেজিয়ের প্রকল্পের পেছনে ৬৬০ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় হয়ে যাবার পর কেন সিদ্ধান্তটা নিলেন – এই প্রশ্ন রেখে জনগণের করের টাকার অপচয়ের জন্য দায়ী করে তাঁর পদত্যাগও দাবি করে বিরোধী দলগুলো৷ তিন মাস পরই জার্মানিতে নির্বাচন৷ তার আগে ড্রোন নিয়ে এমন কাণ্ড আঙ্গেলা ম্যার্কেল সরকারকে বেশ চাপে ফেলেছে৷

Bundesverteidigungsminister Thomas de Maiziere (CDU) gibt am 05.06.2013 im Paul-Löbe-Haus in Berlin nach der Sitzung des Verteidigungsausschuss des Bundestages ein Statement ab. Er musste den Parlamentariern den Bericht zur «Euro Hawk»-Affäre vorlegen und erläutern. Foto: Maurizio Gambarini/dpa +++(c) dpa - Bildfunk+++

জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী টোমাস ডেমেজিয়ের

বুধবার বিষয়টি নিয়ে প্রতিরক্ষা ও বাজেট বিষয়ক সংসদীয় কমিটির মুখোমুখি হতে হয় ডেমেজিয়েরকে৷ সেখানে জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী দেরিতে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য দায়ী করেছেন দুই সচিব স্টেফানে বেমেলমানস এবং রুয়েডিগার ভোল্ফকে৷ মন্ত্রীর দাবি, প্রকল্পটি যে বন্ধ করা ছাড়া গতি নেই ওই দু'জন তা গত ফেব্রুয়ারিতে জেনে গেলেও তাঁকে জানানো হয়েছে গত ১০ জুন৷ তার চারদিন পরই ‘ইউরো হক' প্রকল্প বন্ধ ঘোষণা করা হয়৷

বিরোধী শিবির পদত্যাগের দাবি তুললেও নিজের দল সিডিইউ-তে টোমাস ডেমেজিয়েরের অবস্থা এখনো ভালো৷ চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল জানিয়ে দিয়েছেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ওপর তাঁর পূর্ণ আস্থা আছে৷

এসিবি/ডিজি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন