1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে রুখবে কে?

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর খোঁজে গত কয়েক মাস ধরে যা চলেছে, তা'তে অ্যামেরিকা ও বাকি বিশ্ব আশ্চর্য৷ বৈষম্য ও বিদ্বেষের ওপর নির্ভর করে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচার সাফল্যে বিস্মিত ডিডাব্লিউ-র গ্রেহেম লুকাস৷

একাধারে গেম শো হোস্ট ও বিলিওনেয়ার ডোনাল্ড ট্রাম্পের কোনো রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা নেই৷ অন্যদিকে তিনি তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী, সংখ্যালঘু ও মহিলাদের সম্পর্কে নানা ধরনের আপত্তিকর কথাবার্তা বলেছেন৷ সব সত্ত্বেও ট্রাম্প এখন তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে এগিয়ে৷

আইওয়া ককাসে স্বল্প ব্যবধানে পরাজিত হবার পর ট্রাম্প এবার একাধিক রিপাবলিকান প্রাইমারিতে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় জিতেছেন৷ রিপাবলিকান ভোটাররা দৃশ্যত ট্রাম্পের ভুঁইফোড় ধরণ-ধারণ পছন্দ করেন৷ তিনি বলেন, তিনি ওয়াশিংটনের ‘এস্ট্যাবলিশমেন্ট', অর্থাৎ ক্ষমতাশীল মহলের অংশ নন৷ তিনি বলেন, তিনি অ্যামেরিকাকে আবার মহান করে তুলবেন - তার অর্থ যাই হোক না কেন৷ মধ্যপ্রাচ্যে আবার মার্কিন সৈন্য পাঠানো

ভিডিও দেখুন 01:47

থেকে শুরু করে মেক্সিকো সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণ, এ সব বিষয়ে নানা হঠকারী মন্তব্য করা ছাড়া ট্রাম্প তাঁর রাজনৈতিক কর্মসূচির বিশেষ কোনো আভাস দেননি৷ বরং আসল বিস্ময়কর বস্তুটি হল এই যে, বাদবাকি রিপাবলিকান প্রার্থীরা ট্রাম্পের সহজাত দুর্বলতাগুলোকে তুলে ধরতে পারেননি অথবা তুলে ধরতে চাননি৷

আগামী পয়লা মার্চ অনুষ্ঠিত হবে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে সুপার টিউসডে-র একাধিক প্রাইমারি৷ গত বৃহস্পতিবারের রিপাবলিকান বিতর্কে যেন তারই কিছুটা আঁচ পাওয়া গেল৷ মার্কো রুবিও ও টেড ক্রুজ, বাদবাকি রিপাবলিকান প্রার্থীদের মধ্যে যারা এগিয়ে, উভয়েই ট্রাম্প-কে আক্রমণ করেছেন - বিশেষ করে তথাকথিত ‘‘ট্রাম্প'' ইউনিভার্সিটির ব্যাপারে৷ হতাশ ছাত্ররা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করেছে৷ রুবিও আর ক্রুজ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ করেন৷ এছাড়া ট্রাম্প যে তাঁর আয়কর সংক্রান্ত নথিপত্র প্রকাশ করেননি, সেজন্যও তাঁর সমালোচনা করা হয়৷ অর্থাৎ ট্রাম্পের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী এবার তাঁর নিজের টোটকা প্রয়োগ করে তাঁকে বিব্রত করেছেন৷

Lucas Grahame Kommentarbild App

গ্রেহেম লুকাস, ডয়চে ভেলে

যারা ঐ টেলিভিশন বিতর্ক দেখেছেন, তারা এখন নিজেদের প্রশ্ন করছেন: ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বীদের তাঁর উপর এ-ধরনের জোরালো আক্রমণ চালাতে এতোদিন লাগল কেন? মিডিয়ার মতোই, ক্রুজ আর রুবিও হয়তো প্রত্যাশা করছিলেন যে, ট্রাম্প নিজের থেকেই উপে যাবেন - একটা বিরাট ভুল৷ কিন্তু বৃহস্পতিবারের বিতর্কের পর এবার তাঁরা সক্রিয় হবেন বলে প্রত্যাশা করা যায়৷ প্রশ্ন হল: বড় দেরি হয়ে যায়নি তো? ট্রাম্প কি সত্যিই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন? হ্যাঁ, তা সম্ভব৷ তাহলে একটা তালগোল পাকাবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়