1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ডিডাব্লিউর বাকস্বাধীনতা অ্যাওয়ার্ড পেলেন তুর্কি সাংবাদিক

তুরস্কের দৈনিক ‘হুরিয়েত' পত্রিকার সম্পাদক সেদাত এর্গিন ডয়চে ভেলের বাকস্বাধীনতা অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন৷ তবে আগামী জুন তিনি জার্মানিতে পুরস্কার নিতে আসতে পারবেন কিনা, তা নির্ভর করছে এক আইনি লড়াইয়ের উপর৷

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এর্দোয়ানের অপমানের অভিযোগে গত মার্চ থেকে ‘ট্রায়ালে' আছেন সেদাত এর্গিন৷ ডয়চে ভেলে বুধবার তাঁর নাম চলতি বছরের বাকস্বাধীনতা আওয়ার্ডের জন্য ঘোষণা করে৷ মূলত মানবাধিকার এবং বাকস্বাধীনতা নিশ্চিত করতে সংগ্রামরত ব্যক্তিদের এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য বিবেচনা করা হয়৷

তুরস্কে তাঁর মতো আরো অনেক সাংবাদিক এখন বিচারের মুখোমুখি রয়েছেন, বিশেষ করে তাঁরা, যাঁরা স্বাধীন সাংবাদিকতা এবং বাকস্বাধীনতার চর্চা করছেন, জানান ডয়চে ভেলের মহাপরিচালক পেটার লিমবুর্গ৷

তাঁর প্রথম প্রতিক্রিয়ায় সেদাত এর্গিন ডয়চে ভেলেকে জানান, এই সম্মাননা পাওয়ায় তিনি সম্মানিত বোধ করছেন, কেননা এই পুরস্কার গোটা বিশ্বে বাকস্বাধীনতা রক্ষায় ভূমিকা রাখছে৷

ভিডিও দেখুন 00:26

ডয়চে ভেলের এই অ্যাওয়ার্ডটি অবশ্য অপেক্ষাকৃত নতুন৷ গতবছর এটি প্রথমবারের মতো দেয়া হয়৷ কারাবন্দি সৌদি ব্লগার রাইফ বাদাউয়ি সেবছর পুরস্কারটি জয় করেন৷ গত ২০১২ সাল থেকে কারাবন্দি আছেন বাদাউয়ি৷ তাই তাঁর পক্ষে তাঁর স্ত্রী ইনসাফ বাদাউয়ি পুরস্কারটি গ্রহণ করেছিলেন৷

‘হুরিয়েত' তুরস্কের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা৷ গতবছর পত্রিকাটির কার্যালয়ে সরকারপন্থিরা দু'বার হামলা চালায়৷ তুরস্কের সেনাদের উপর নিষিদ্ধ কুর্দিশ পিকিকে মুভমেন্টের এক হামলার পর সেদেশের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ (বানাভেদে তাইয়িপ)এর্দোয়ানের বক্তব্যের সমালোচনা করেছিলেন এর্গিন৷ আর তাতেই এর্দোয়ানের এক আইনজীবী তাঁর বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেন৷

ডিডব্লিউ-র মহাপরিচালক লিমবুর্গ বৃহস্পতিবার বলেন, ‘‘ডয়চে ভেলে, যা ১৯৬২ সাল থেকে তুর্কি ভাষায় সংবাদ প্রকাশ করছে, তুরস্কের মানুষের সঙ্গে একটি শক্তিশালী বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অনুধাবন করে৷''

তিনি আরো বলেন, ‘‘সাংবাদিক, শিল্পী এবং বিজ্ঞানীদের যখন সেদেশের কর্তৃপক্ষ ‘সিস্টেমেটিক্যালি' ভয় দেখায় এবং উত্ত্যক্ত করে, তখন আমরা মুখ ঘুরিয়ে রাখতে কিংবা চুপ থাকতে পারি না৷''

১৯৯৫ সাল থেকে অনলাইনেও তুর্কি ভাষায় সংবাদ প্রকাশ করে চলেছে ডয়চে ভেলে৷ রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স-এর প্রেস ফ্রিডম ইনডেক্স অনুযায়ী, বিশ্বের ১৮০টি দেশের মধ্যে তুরস্কের অবস্থান ১৫১তম৷ এক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালে অবস্থানে আছে ফিনল্যান্ড এবং তারপরেই নেদারল্যান্ডস৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন