1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ডিএনএ টেস্টে দুর্বলতা, ১৬৫ জনের পরিচয় নিশ্চিত নয়

সাভারের রানা প্লাজা ধসে নিহতদের মধ্যে অজ্ঞাত ১৫৭ জনের পরিচয় ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে নিশ্চিত করা গেলেও, ১৬৫ জনের পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না৷ ডিএনএ টেস্টে কোনো ত্রুটি আছে কিনা – তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে৷

গত ২৪শে এপ্রিল সাভারের রানা প্লাজা ধসে ১,১৩৪ জন নিহত হন৷ তাঁদের মধ্যে অজ্ঞাত হিসেবে দাফন করা ৩২২ জনের ডিএনএ টেস্টের উদ্যোগ নেয় ঢাকা মেডিকেল কলেজের ডিএনএ ল্যাবরেটরি৷ ডিএনএ ল্যাবের প্রধান ড. শরীফ আখতারুজ্জামান ডয়চে ভেলেকে জানান, এর মধ্যে ১৫৭ জনের ডিএনএ ‘প্রোফাইল' তাঁদের আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে মিলেছে৷ কিন্তু বাকি ১৬৫ জনের ডিএনএ এখনও তাঁদের আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে মেলেনি৷

তিনি জানান, তারা প্রতিটি মৃতদেহের দাঁত ও হাড়ের নমুনা থেকে ডিএনএ প্রোফাইল তৈরি করেছেন৷ তারপর তাঁদের আত্মীয় বলে দাবি করা ৪৫০টি পরিবারের মোট ৫৪৮ জন তাঁদের রক্তের যে নমুনা জমা দিয়েছেন, তা থেকে আত্মীয়স্বজনের ডিএনএ প্রোফাইল তৈরি করা হয়েছে৷ নিহতদের ডিএনএ-র সঙ্গে তাঁদের ডিএনএ মিলিয়ে এ পর্যন্ত ১৫৭ জনের পরিচয় জানা গেছে৷ তবে বাকিদের পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷ এর মানে হলো, তাঁদের ডিএনএ-র সঙ্গে কারুর ডিএনএ মেলেনি৷ ড. আখতারুজ্জামান জানান, ডিএনএ নমুনা নেয়ার ক্ষেত্রে তারা মা-বাবা এবং ভাই-বোনকে প্রাধান্য দিয়েছেন৷ এই ডিএনএ পরীক্ষায় এফবিআইএ-র একটি সফটওয়ার ব্যবহার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি৷

অধ্যাপক শরীফ আখতারুজ্জামান জানান, তাদের কাছে মনে হয়েছে কিছু ডিএনএ পরীক্ষায় বেশ কিছু দুর্বলতা থাকতে পারে৷ তাই তারা সেগুলো চিহ্নিত করে আবারো মিলিয়ে দেখবেন৷ তাতে হয়ত নতুন কিছু অজ্ঞাতের পরিচায় জানা যেতে পারে৷ তবে নিশ্চিত করে কিছুই বলা যাচ্ছে না৷

ঢাকার জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ ডয়চে ভেলেকে জানান, সনাক্ত হওয়া ১৫৭ জনের তালিকা তারা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং শ্রম মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছেন৷ এই ১৫৭ জনের আত্মীয়স্বজনকেও জানানো হয়েছে৷ তাঁরা এখন জুরাইন কবরস্থানে গিয়ে তাঁদের ডিএনএ নাম্বার দিয়ে নিহতদের কবর সনাক্ত করতে পারবেন৷ কারণ, প্রতিটি কবরেই ডিএনএ নাম্বার দেয়া আছে৷ প্রসঙ্গত, অজ্ঞাত পরিচয় সবাইকে জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হয়৷

যাঁদের পরিচয় সনাক্ত হয়েছে, তাঁদের পরিবারের লোকজন এখন আর্থিক সহায়তা পাবেন কিনা জানতে চাইলে ঢাকার জেলা প্রশাসক জানান, এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সিদ্ধান্ত নেবে৷ যাঁদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি তাঁদের ব্যাপারে আর কোনো করণীয় আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ডিএনএ টেস্টেও পরিচয় জানা না গেলে আর কিছুই করার নেই৷

উল্লেখ্য, রানা প্লাজা ধসে নিহতদের প্রায় সকলেই ছিলেন পোশাক শ্রমিক৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন