1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ডিউকুতে নিহত ৮০০, যুদ্ধ চলছে আবিদজানে

আইভরি কোস্টের পশ্চিমের ডিউকু শহরে ৮০০ মানুষকে গুলি করে খতম করেছে ওয়াতারা বাহিনী৷ লরাঁ বাগবোর বাহিনীর সঙ্গে ওয়াতারা সমর্থকদের যুদ্ধ সঙ্গীন চেহারা নিয়েছে রাজধানী আবিদজানে৷

default

বাগবো বাহিনীর তৎপরতা, আবিদজানে

কী ঘটেছে ডিউকুতে

আন্তর্জাতিক সেবা ও ত্রাণ সংস্থা রেডক্রস এবং কারিতাস, যারা আইভরি কোস্টে রীতিমত সক্রিয়, তাদের বক্তব্য, ডিউকু শহরে গত কয়েকদিনে ৮০০ মানুষকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে৷ আন্তর্জাতিক মহলে স্বীকৃত আইভরি কোস্টের প্রেসিডেন্ট আলেসানে ওয়াতারার বাহিনী আবিদজানের দিকে এগোনোর সময় পশ্চিমের এই প্রখ্যাত কোকো উৎপাদক শহরের ওপর দিয়ে যায়৷ ওয়াতারার সেনাই এইসব মানুষকে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ রেডক্রসের৷ ওয়াতারা সরকারের প্রধানমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ সিদিকি কোনাটে সিএনএন-কে এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, ডিউকুতে লড়াই হয়েছিল ঠিকই, তবে বাগবো সমর্থকদের বেছে বেছে হত্যা করা হয়েছে, এ খবর সত্যি নয়৷ দু'পক্ষেরই লোক নিহত হয়েছে ওই সংঘর্ষে৷

ডিউকুতে নিহত ৩৩০, বলছে জাতিসংঘ

ডিউকুর পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘের বক্তব্য আবার অন্যরকম৷ জাতিসংঘের এক মুখপাত্র কিছুক্ষণ আগে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে জানান, ডিউকুতে মোট ৩৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে গত কয়েকদিনে৷ নিহতদের সকলেই বাগবো সমর্থক এবং তাদেরকে খতম করেছে ওয়াতারার বাহিনী৷ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে যদিও এই তথ্যের কোন সমর্থন মিলছে না৷ বরং সংবাদমাধ্যমগুলির বক্তব্য, ডিউকুতে নিহতের সংখ্যা প্রায় হাজার৷ নিদেনপক্ষে ৮০০৷ আর এরা সকলেই নিরীহ সাধারণ মানুষ৷

NO FLASH Elfenbeinküste Unruhen nach Wahl

ওয়াতারার বাহিনী গাড়িতে অস্ত্র বোঝাই করতে ব্যস্ত৷ আবিদজানে, শনিবার৷

আবিদজানের পরিস্থিতি ক্রমশই আরও ঘোরালো হচ্ছে

আইভরি কোস্টের রাজধানী আবিদজানে ঠিক কী চলছে তা এখনও ভালো করে স্পষ্ট নয়৷ কারণ সব খবর পাওয়া যাচ্ছে না৷ যদিও এটা পরিষ্কার যে যুদ্ধ পরিস্থিতি সবচেয়ে সংকটজনক সেখানেই৷ রাজধানীর আগবান সেনা ছাউনির দখল নিয়ে ওয়াতারা আর বাগবো বাহিনীর মধ্যে শনিবার সারাদিন ধরে তুমুল সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে৷ জাতীয় টিভি চ্যানেল আরটিআই-এর দখল অল্প সময়ের জন্য ওয়াতারা বাহিনী নিতে পারলেও শনিবার আবার সেটি ছিনিয়ে নেয় বাগবো বাহিনী৷ বাগবোর প্রতিরক্ষা বাহিনীর একাধিক সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে সেই টিভি চ্যানেলে এক সেনানীকে একটি বার্তা পাঠ করতে দেখা গেছে গতকাল বিকেলে৷ সামরিক উর্দি পরা ওই সেনা আবিদজানের সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলিকে রক্ষা করতে সামরিক সহায়তার আর্জি জানিয়েছেন৷ লরাঁ বাগবো ঠিক কোথায় আছেন এই মুহূর্তে তাও স্পষ্ট নয়৷ ফরাসি রেডিও জানিয়েছে, তিনি নাকি প্রেসিডেন্টের প্রাসাদেই রয়ে গেছেন৷

বাগবোকে বান কি মুনের কড়া বার্তা

জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন গতরাতে আইভরি কোস্টে অন্যায়ভাবে ক্ষমতা দখল করে রাখা লরাঁ বাগবোর উদ্দেশ্যে বলেছেন, পরিস্থিতি যেদিকে চলেছে তাতে এখন অবিলম্বে ক্ষমতার দখল ছেড়ে দিতে হবে বাগবোকে৷ নির্বাচনে বিজয়ী ওয়াতারার হাতে ক্ষমতার দখল ছেড়ে দিয়ে বাগবোকে সরে যেতে পরামর্শ দিয়েছেন বান কি মুন৷ বাগবো সরে গেলে তবেই ওয়াতারা আইভরি কোস্টে আইনের অনুশাসন ফিরিয়ে আনতে পারবেন বলে মন্তব্য করেছেন বান কি মুন৷

প্রতিবেদন : সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়