1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ডা. বিনায়ক সেনের জামিনের শুনানি মুলতুবি

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত মানবাধিকারবাদী চিকিৎসক বিনায়ক সেনের জামিনের শুনানি আজ মুলতুবি রাখেন৷

default

ডা. বিনায়ক সেন (ফাইল ছবি)

ছত্তিশগড় সরকার তার আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য আরো তিনদিন সময় চাইলে শীর্ষ আদালত তা মঞ্জুর করেন৷

রাষ্ট্রদ্রোহিতা এবং মাওবাদীদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রাখার অভিযোগে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ডাক্তার বিনায়ক সেন ছত্তিশগড় রাজ্যের দায়রা আদালতের রায় চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে জামিনের আবেদন করলে সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারকের ডিভিশন বেঞ্চ আজ তার শুনানি ১৫ই এপ্রিল পর্যন্ত মুলতুবি রাখেন৷ ছত্তিসগড় সরকার তার আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শের জন্য আরো কয়েকদিন সময় চায়৷ গত ১১ই মার্চ সুপ্রীম কোর্ট চার সপ্তাহের মধ্যে ডাক্তার সেনের মামলা সম্পর্কে জবাব চেয়ে ছত্তিশগড় সরকারকে নোটিশ দিয়েছিলেন৷ উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারি মাসে দায়রা আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে ডাক্তার সেন রাজ্যের হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করলে তা খারিজ হয়ে যায়৷

রাজ্য সরকার তার হলফনামায় বলেছে, দেশে মাওবাদী ভাবাদর্শ প্রচারে এবং মাওবাদীদের ঘাঁটি গাড়তে নানাভাবে সাহায্য করেছিলেন ছত্তিসগড়ের চিকিৎসক বিনায়ক সেন৷ সরকারের অভিযোগ, ডাক্তার সেন রায়গড়ে কট্টর মাওবাদী শঙ্কর সিং, অমিতা শ্রীবাস্তব এবং মালতিকে থাকার জায়গা করে দিয়েছিলেন এবং তাঁর স্ত্রী ইলিনা সেন সাহায্য করেছিলেন তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলতে৷ ডাক্তার বিনায়ক সেনের আইনজীবী রাম জেঠমালানি সওয়াল করেন, অকাট্য প্রমাণ না থাকা সত্ত্বেও তাঁকে যাবজ্জীবন দেয়াটা ন্যায়বিচারের খেলাপ৷ তাছাড়া ডাক্তার সেন আগেই এইসব অভিযোগে জেল খেটেছেন তিন বছর৷ তাই হাইকোর্টের রায় সাপেক্ষে ডাক্তার সেনকে মুক্তি দেয়া হোক৷

যাবজ্জীবন সাজার বিরুদ্ধে দেশের আইনজীবী মহল এবং দেশবিদেশের মানবাধিকার কর্মীরা ক্ষুব্ধ এবং হতাশ৷ ছত্তিসগড় এবং লাগোয়া রাজ্যে ডাক্তার সেন দীর্ঘদিন ধরে উপজাতি ও প্রান্তিক মানুষজনদের যেভাবে স্বাস্থ্য পরিষেবা দিয়ে আসছেন, তার স্বীকৃতি হিসেবে তিনি পেয়েছেন বহু পুরস্কার৷ ৪০ জন নোবেল বিজয়ী সরকারের কাছে ডাক্তার সেনের মুক্তির আবেদন জানান৷ আইনজীবী মহলের মতে, ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪-এ ধারা অনুযায়ী রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে তাঁর তিন রকম শাস্তির বিধান আছে৷ খুনজখমের মত মারাত্মক অপরাধে যাবজ্জীবন হতে পারে৷ তা না হলে হতে পারে অনধিক তিন বছর জেল কিংবা স্রেফ জরিমানা৷

সুপ্রিম কোর্টে শুনানির সময় আজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন ডাক্তার সেনের পরিবার, পিপলস ইউনিয়ন অফ সিভিল লিবার্টিজের সমর্থক এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের দু সদস্যের প্রতিনিধিদল৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন