1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

ডায়বেটিস রোগীদের অঙ্গচ্ছেদ কতটা জরুরি?

আমাদের শরীরে কোথাও কোনো সমস্যা হলে, ব্যথা বেদনা তা জানিয়ে দেয়৷ ডায়বেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে এই অনুভূতিটা অনেক সময় কাজ করে না৷ এর ফলে ক্ষতটা সংক্রমিত হতে থাকে৷ তাই প্রায়ই অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ কেটে ফেলতে হয়৷

জুতোয় পাথর কিংবা কাঁটা ঢুকলে অনেক ডায়বেটিস রোগী তা বুঝতে পারেন না৷ কেননা বহুমূত্র স্নায়ুর ক্ষতি করতে পারে৷ আর তাহলে ব্যথার অনুভূতি কমে যায় বা লোপ পায়৷ আর পায়ের অনুভূতিটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয় বেশি৷

সাধারণত, হৃদযন্ত্র থেকে যে অঙ্গের দূরত্ব যত বেশি, সে অঙ্গের ক্ষত শুকায় ধীর গতিতে৷ ডায়বেটিস রোগীর ক্ষেত্রে এই প্রক্রিয়াটা আরো আরও ধীর গতিতে চলে৷

বিশ্বব্যাপী আনুমানিক ৩৬৬ মিলিয়ন ডায়বেটিস রোগী রয়েছেন৷ জার্মানিতে এই সংখ্যাটা ৬ মিলিয়ন৷

Medizin Diabetes schlechte Wundheilung Bein Krankenschwester

প্রতি বছর অসংখ্য ডায়বেটিস রোগীর পায়ের একটা অংশ কেটে বাদ দেওয়া হয়...

যথেষ্ট ইনসুলিন উৎপাদন করতে পারে না

বহুমূত্র রোগীরা দেহের শর্করা বা চিনি কমানোর জন্য যথেষ্ট ইনসুলিন উৎপাদন করতে পারে না৷ শর্করা শরীরের মধ্যেই জমা হতে থাকে কমতে পারে না৷ শর্করার অণু সেলের প্রাচীরে জমা হয়ে অনেকটা বিষের মতো কাজ করে এবং ধীরে ধীরে সেলকে ধ্বংসের পথে ঠেলে দেয়৷

রাইনার ভলফ্রুম এই রকমই একজন ভুক্তভোগী৷ প্রথমে তাঁর পায়ে অস্বাভাবিক কিছু টের পাননি৷ ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পর বোঝা গেল অনেকটাই দেরি হয়ে গেছে৷ গোড়ালির টিশু মরে গেছে৷ সেই দিনই তাঁর পায়ের মরা টিশু অপারেশন করে বাদ দেওয়া হয়৷

Diabetes Flash-Galerie

ডায়বেটিসের ওষুধ ইনসুলিন

নর্থরাইন ডায়বেটিক ফুট নেটওয়ার্কের তথ্য অনুযায়ী, প্রতি বছর ৪০.০০০ ডায়বেটিস রোগীর পায়ের কোনো অংশ কেটে বাদ দেওয়া হয়৷ তবে এই ধরনের অঙ্গচ্ছেদের ৭৫ শতাংশ জরুরি নয়৷ বলেন নেট ওয়ার্কের ডিয়র্ক হোখলেনার্ট৷ অবশ্য এক্ষেত্রে কোনো স্পষ্ট পরিসংখ্যান নেই৷

বিকল্প কোনো পদ্ধতি

অঙ্গচ্ছেদের বদলে বিকল্প কোনো পদ্ধতিতে ডায়বেটিস জনিত মরা টিশু অপসারণ করা যায় বলে মনে করেন হাইডেলব্যার্গ ইউনিভার্সিটির অর্থোপেডিস্ট ভল্ফফ্রুম ভেনৎস৷ এমনকি শুধু টিশু নয়, হাড় আক্রান্ত হলেও৷ তিনি বলেন, ‘‘অতীতে বলা হতো ডায়বেটিস রোগীদের ক্ষত ও আক্রান্ত হাড় ভালো হয় না৷ আমার অভিজ্ঞতা ভিন্ন রকম৷ অস্থি ধীরে ধীরে হলেও ভালো হয়৷ যেমন ত্বকও৷

কোলনের ডাইবেটিস নেটওয়ার্কটিতে চিকিৎসক ছাড়াও অন্যান্য পেশার মানুষও সম্পৃক্ত৷ যাঁদের ডায়বেটিস রোগীদের পা সমস্যার ব্যাপারে ধারণা রয়েছে৷ এর মধ্যে রয়েছেন পদ বিশেষজ্ঞ ও পেডিকিউরিস্ট৷

তাঁরা জানেন কী ধরনের যত্ন ডায়বেটিস রোগীদের পায়ের জন্য প্রয়োজন৷ ছোটখাট ক্ষত বা আঘাত ক্ষতিকর কিনা তা তাঁরা বুঝতে পারেন এবং সতর্ক হতে পারেন৷ জানাতে পারেন চিকিৎসকদের৷

সাধারণত ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ হলে রক্তদূষণ হতে পারে৷ যা থেকে রোগীর মৃত্যুও হতে পারে৷ তাই রোগীর জীবন বাঁচানোর জন্য অপারেশন প্রয়োজন হয়ে পড়ে৷ অন্যদিকে প্রতিটি অপারেশনই বিপজ্জনক৷ পায়ের অনেকখানি কেটে ফেললে রোগীর ঝুঁকিও বেড়ে যায়, বলেন ডা. হোখলেনার্ট৷ এরপর ৫০ শতাংশ রোগীরই হাঁটা চলায় কষ্ট হয় কৃত্রিম পা দিয়েও৷ ভারসাম্য রক্ষা করা শিখতে হয় তাঁদের৷ পা সমস্যায় ভোগা তিন ভাগের এক ভাগ রোগীর বয়সই ৬৫ বছরের কম৷ শুধু তাদেরই নয়, বয়স্ক রোগীদের ক্ষেত্রেও চরম ব্যবস্থা না নিয়ে চিকিৎসা করা চলে৷

প্রায়ই পা কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন

পচন ধরলে ডাক্তাররা প্রায়ই পা কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন৷ এর পরবর্তী পরিস্থিতিটা ধারণা করতে পারেন চিকিৎসকরা৷ ‘‘১০ দিন পর পুনর্বাসনে পাঠানো হয় রোগীকে৷ এইভাবে সব কিছু সম্পন্ন হয়৷ আমি মনে করি না, কোনো ডাক্তার চিন্তা ভাবনা না করেই পা ছেদ করেন৷ একটা পা কেটে ফেলা কারো জন্যই সুখকর নয়৷ কিন্তু এটিকে পাশ কাটানোও অত্যন্ত কষ্টকর'', বলেন ডা. হোখলেনার্ট৷

ডায়বেটিস রোগী ভলফ্রুম পা ছেদের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন৷ তাঁর গোড়ালির অপারেশনটা ভালোভাবেই হয়েছে৷ আংশিক পুনর্গঠন করাও হয়েছে৷ বিশেষ ধরনের জুতা পরতে হবে তাঁকে৷ দীর্ঘ এক প্রক্রিয়া৷ এতে যথেষ্ট ধৈর্য ও শৃঙ্খলার প্রয়োজন৷ ‘‘কিন্তু বিকল্পটা যদি অঙ্গচ্ছেদ হয়, তাহলে এসব খুশি মনেই করা যায়'', বলেন রাইনার ভলফ্রুম৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন