1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ডর্টমুন্ড বনাম নাপোলি, বার্সা বনাম আয়াক্স

চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় দিনের খেলা৷ গতবারের রানার্স আপ ডর্টমুন্ড যাচ্ছে মারাদোনার পুরনো ক্লাব নাপোলির বিরুদ্ধে খেলতে৷বার্সার নতুন কোচ জেরার্দো মার্তিনোর নড়বড়ে ডিফেন্স, বিপক্ষের গোলের মুখে গিয়ে খেই হারানো নিয়ে চিন্তা৷

সাঁও পাওলো স্টেডিয়ামে যাওয়া মানে যেন সিংহের খাঁচায় ঢোকা, নাপোলির সাপোর্টাররা এমনই বস্তু৷ কিন্তু ডর্টমুন্ডের কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ-এর তাতে ভয় পাবার কথা নয়৷ বুন্ডেসলিগার চলতি মরশুমে ডর্টমুন্ড প্রথম পাঁচটি খেলাতেই জিতেছে; তাদের মধ্যে শেষেরটিতে গত শনিবার, যে খেলায় ডর্টমুন্ড হামবুর্গকে বিধ্বস্ত করে ৬-২ গোলে৷

কোচ রাফায়েল বেনিতেজ-এর নাপোলি দল এখন ইটালির সেরিয়ে ‘আ'-র পয়েন্টের তালিকার শীর্ষে, যা ২৩ বছর আগে মারাদোনা স্বয়ং নাপোলি-র হয়ে খেলার সময় শেষবার ঘটে৷

অবশ্য এবারেও নাপোলি চমকে দেবার মতো ভালো খেলছে: প্রথম তিনটে খেলায় ন'টা গোল করেছে৷ সিরিয়ে আ'-র টপ স্কোরার এখন নাপোলির মারেক হামসিক৷ দুই নতুন সাইনিং জোসে কাইয়োজন এবং গঞ্জালো ইগুয়াইন-ও দিব্বি ফর্মে৷

Barcelona's Argentinian forward Lionel Messi gestures during UEFA Champions League semi final first leg football match between FC Bayern Munich and FC Barcelona on April 23, 2013 in Munich, southern Germany. AFP PHOTO / PIERRE-PHILIPPE MARCOU (Photo credit should read PIERRE-PHILIPPE MARCOU/AFP/Getty Images)

বার্সার টপ স্টার লিওনেল মেসি গত সপ্তাহেও উয়েফার ওয়েবসাইটে বলছেন, ‘‘ওরা সব দিক দিয়েই উন্নততর দল ছিল, শারীরিক দিক দিয়ে এবং ফুটবলের বিচারেও

ডর্টমুন্ডের দুই নতুন সাইনিং হেনরিক মিকিতারিয়ান এবং পিয়ের-এমরিক ওবামেইয়াং অবলীলাক্রমে দলের সঙ্গে মিশে গেছে ও হামবুর্গের বিরুদ্ধে খেলাতেই তাদের কার্যকারিতা দেখিয়েছে গোল করে৷ ক্লপ অবশ্য বুধবার ক্যাপ্টেন সেবাস্টিয়ান কেল-কে পাবেন না৷ কেল গত রবিবার ট্রেনিং-এর সময় গোড়ালির লিগামেন্টে চোট পেয়ে বসে আছেন৷

বার্সার দরকার ‘খুনি মনোবৃত্তি'

বার্সেলোনার সাবেক কোচ টিটো ভিলানেভা-র অসুস্থতার দরুন দায়িত্ব নেন বর্তমান কোচ জেরার্দো মার্তিনো৷ এবার আয়াক্স আমস্টারডাম আসছে বার্সেলোনার নু ক্যাম্পে চ্যাম্পিয়নস লিগের খেলায়৷ মার্তিনো নিশ্চয় ভাবছেন সাম্প্রতিক এক পর্যায় খেলায় বার্সার নড়বড়ে ডিফেন্সের কথা – এবং সেই সঙ্গে বার্সার ‘গোল নাজুকতার' কথা: বিপক্ষের গোলের সামনে গিয়ে যেখানে প্লেয়ারদের ‘খুনি মনোবৃত্তি' মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার কথা, ঠিক সেখানেই বার্সার প্লেয়াররা যেন ‘ব্রীড়াবনত' হয়ে পড়ে৷

নয়তো এই বার্সা বিগত পাঁচ বছরে চারবার লা লিগার খেতাব জিতেছে৷ কিন্তু যে বিভীষণ স্মৃতি বার্সার কোচ বা প্লেয়ারদের পক্ষে ‘ট্রমা' হয়ে আছে, সেটা নিশ্চয় চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে ডর্টমুন্ডের কাছে বার্সেলোনার অ্যাগ্রিগেটে ৭-০ গোলে হার৷ বার্সার টপ স্টার লিওনেল মেসি গত সপ্তাহেও উয়েফার ওয়েবসাইটে বলছেন, ‘‘ওরা সব দিক দিয়েই উন্নততর দল ছিল, শারীরিক দিক দিয়ে এবং ফুটবলের বিচারেও৷'' ও হ্যাঁ, মেসি এবং কোচ মার্তিনো, দু'জনেই আর্জেন্টিনার রোজারিও শহরের মানুষ৷

ফর্ম বলতে একেবারে হালের ফর্মও বোঝায় – যেমন ডর্টমুন্ড রবিবার হামবুর্গের বিরুদ্ধে দেখিয়েছে৷ সে হিসেবে বার্সেলোনা শনিবার সেভিইয়া-র বিরুদ্ধে প্রায় ড্র করতে চলেছিল, যদি না আলেক্সিস সাঞ্চেজ বিকল্প খেলোয়াড় হিসেবে ৯৪ মিনিটের মাথায় এসে খেলার পঞ্চম গোলটি করে বার্সাকে উদ্ধার করতেন৷ তার আগে বার্সা একটি দু'গোলের লিড বস্তুত হেলাফেলায় হারিয়েছে৷

তবে সেদিন নেইমার স্বভাবসিদ্ধভাবে একাধিকবার ঝলসে উঠেছেন৷ কাজেই বার্সার ভয়টা কাকে?

এসি / এসবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন