1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

ট্রাম্প জিতলে কী হবে জানালেন ক্লিন্টন আর ওবামা

দরজায় কড়া নাড়ছে মার্কিন নির্বাচন৷ ভোটারদের আকর্ষণে দুই প্রার্থী শেষ চেষ্টা করে যাচ্ছেন৷ সঙ্গে যোগ দিয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা৷

বুধবার ক্লিন্টন জনসভা করেছেন অ্যারিজোনায়৷ সেখানে রিপাবলিকানদের দুর্গ ভাঙতে চাইছেন তিনি৷ তাইতো ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হলে কী কী হতে পারে তার একটা ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছেন তিনি৷ ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হলে ‘টুইটার-যুদ্ধের পরিবর্তে সত্যিকারের যুদ্ধ' শুরু হতে পারে বলে ভোটারদের সতর্ক করে দেন তিনি৷ জনসভায় জড়ো হওয়া প্রায় ১৫ হাজার নাগরিকের উদ্দেশে ক্লিন্টন বলেন, ‘‘একবার শুধু ভাবুন আজ ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারি৷ আর ভাবুন ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্যাপিটলের সামনে দাঁড়িয়ে আছে৷ চিন্তা করে দেখুন তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিচ্ছেন আর ওভাল অফিসে বসে এমন সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিচ্ছেন যার সঙ্গে আমাদের জীবন আর ভবিষ্যৎ জড়িত৷''

হিলারি ক্লিনটন

ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হলে কী কী হতে পারে তার একটা ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছেন হিলারি ক্লিনটন

ক্লিন্টনের মতো সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন প্রেসিডেন্ট ওবামাও৷ নর্থ ক্যারোলাইনায় তিনি বলেন, ‘‘ট্রাম্পের অধীনে যুক্তরাষ্ট্রের নিকট ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে পড়তে পারে৷ দেশের ভবিষ্যৎ আমাদের উপর নির্ভরশীল৷ এমনকি বিশ্ব কোনদিকে যাবে, সেটিও ঠিক হবে এই নির্বাচনে৷ সুতরাং নর্থ ক্যারোলাইনা, আপনাদের দায়িত্ব হচ্ছে, এটি যেন সঠিক দিকে এগোয় তা নিশ্চিত করা৷'' উল্লেখ্য, নির্বাচনে বিজয়ী নির্ধারণে যে কয়েকটি রাজ্যের ফল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে তার মধ্যে একটি নর্থ ক্যারোলাইনা৷

ওবামা বৃহস্পতিবার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য ফ্লোরিডায় ক্লিন্টনের পক্ষে প্রচারণা চালাবেন৷ ট্রাম্পও এদিন ফ্লোরিডায় জনসমাবেশ করবেন৷ এর আগে এক সভায় ওয়াশিংটনকে দুর্নীতিমুক্ত করতে ট্রাম্প কী করবেন তা জানান৷ অনেক নীতিনির্ধারক আর ভোটার এখন তাঁর দিকে আসছে বলেও মন্তব্য করেন ট্রাম্প৷ ‘‘শুধু একজন আমাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন না৷ তিনি অসৎ হিলারি ক্লিন্টন৷ আমরা জিততে যাচ্ছি,'' বলেন ৭০ বছর বয়সি এই রিপাবলিকান৷

বারাক ওবামা

‘‘ট্রাম্পের অধীনে যুক্তরাষ্ট্রের নিকট ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে পড়তে পারে’’ বলেন প্রেসিডেন্ট ওবামা

ক্লিন্টনের জন্য ভাল খবর

নির্বাচনে ভোট গ্রহণ হবে মঙ্গলবার৷ তবে ৩৭টি রাজ্যের ভোটাররা চাইলে চিঠির মাধ্যমে কিংবা ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারছেন৷ ২০১২ সালে যত ভোট পড়েছিল তার প্রায় এক চতুর্থাংশ ভোট (৩১ মিলিয়নের বেশি) ইতিমধ্যে দেয়া হয়ে গেছে৷ মঙ্গলবারের আগে ৪৬ মিলিয়নের মতো ভোটগ্রহণ হতে পারে বলে জানিয়েছে মার্কিন বার্তা সংস্থা এপি৷

এসব ভোটের ফল ভোটের দিন জানা গেলেও ভোটারদের দলের প্রতি সমর্থন ও তাঁদের সম্পর্কিত অন্যান্য তথ্য বিশ্লেষণ করে এপি একটি ধারণা পাওয়ার চেষ্টা করেছে৷ তাতে দেখা যাচ্ছে, ক্লিন্টন ও ট্রাম্পের মধ্যে কঠিন প্রতিযোগিতা হলেও এগিয়ে আছেন ক্লিন্টন৷

আপনার কী মনে হয়? কে জিতবেন – ট্রাম্প না হিলারি? লিখুন মন্তব্যের ঘরে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়