1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

টেলিকম কেলেঙ্কারি মামলার জালে আরো অনেকে

টু-জি স্পেকট্রাম কেলেঙ্কারি মামলায় এবার ফেঁসে গেছে ভারতের কর্পোরেট জগতের কর্তাব্যক্তিরা৷ দিল্লির বিশেষ আদালত আজ পাঁচজন কার্যনির্বাহীর অন্তর্বর্তী জামিনের আবেদন খারিজ করে তাঁদের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে নেবার আদেশ দেন৷

default

টেলিকম কেলেঙ্কারির শিকার হয়েছেন এ রাজা

টেলিকম কেলেঙ্কারির সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে দিল্লির বিশেষ আদালত আজ কয়েকটি বেসরকারি কোম্পানির পাঁচজন কর্তাব্যক্তির অন্তর্বর্তী জামিনের আর্জি খারিজ করে ১৪দিনের জন্য তাঁদের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে নেবার আদেশ দেন৷ আজ বিকেলের দিকে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় দিল্লির তিহার জেলে৷এরা হলেন, সোয়ান টেলিকম কার্যনির্বাহী বিনোদ গোয়েঙ্কা, ইউনিটেক ওয়্যারলেসের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সঞ্জয় চন্দ্র এবং রিলায়েন্স এডিজি গ্রুপের তিনজন ডায়রেক্টর গৌতম দোশী, সুরেন্দ্র পিপারা ও হরি নায়ার৷ কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো (সিবিআই ) তদন্ত চলাকালে এদের গ্রেপ্তার করেনি৷

জামিনের বিরোধীতা করে তদন্তকারী এজেন্সি এই মর্মে আশঙ্কা প্রকাশ করে যে, জামিন পেলে আসামিরা ফেরার হতে পারে কিংবা সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারে কিংবা তথ্যপ্রমাণ লোপাট করতে পারে৷ আসামি পক্ষের আইনজীবী বলেন, তদন্তকালে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়নি এবং তাঁরা ফেরার হননি, আদালতে উপস্থিত থেকেছেন৷ কাজেই তাঁর মক্কেলদের সাতদিনের অন্তর্বর্তী জামিন দেয়া হোক৷ তারপর তাঁরা আত্মসমর্পণ করবেন৷

Indien junge Frau traditionell Handy Mobiltelefon Handyverbot

ভারতে মোবাইল ফোন অত্যন্ত জনপ্রিয়

বিশেষ আদালতের বিচারক রায় দেন, টু-জি স্পেকট্রামের মত বিরাট কেলেঙ্কারিতে যাঁদের নাম জড়িত তাঁদের আগে গ্রেপ্তার করা হয়নি এই কারণে তাঁরা জামিন পেতে পারেন না৷

জনতা পার্টির নেতা সুব্রামনিয়াম স্বামী এই রায়ে সন্তোষ ব্যক্ত করে বলেছেন, মামলা সঠিক পথেই এগোচ্ছে৷ যারা ঘুষ নিয়েছে এবং যারা ঘুষ দিয়েছে সবাইকে আসামির কাঠগোড়ায় দাঁড়াতে হবে৷ কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার পরবর্তি চার্জশীটে আশা করা যায় তাঁদের নাম থাকবে৷সেদিক থেকে মনে হয় তামিলনাডুর মুখ্যমন্ত্রী করুণানিধির মেয়ে তামিল টিভি চ্যানেলের শীর্ষ ব্যক্তি কানিমোজিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নেয়া হবে, বলেন জনতা পার্টি নেতা সুব্রামনিয়াম স্বামী৷

এর আগে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা দুর্নীতি নিরোধক আইনে দেয়া চার্জশীটে বলেছে প্রাক্তন টেলিকম মন্ত্রী এ.রাজা কীভাবে আমলা, অবসরপ্রাপ্ত আমলা ও কর্পোরেট কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে যোগসাজসে টু-জি স্পেকট্রাম বন্টনে সরকারের ১লক্ষ ৭৬ হাজার কোটি টাকার লোকসান করেন৷ তদন্ত সংস্থা পরের চার্জশীট দেবে ২৫শে এপ্রিল এবং তদন্ত শেষ হবে ৩১শে মে৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল ফারূক