1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

টুইটারে চলছে ‘ফ্রি সাঈদী’ ক্যাম্পেইন

জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর শাস্তি কমানোয় তোলপাড় চলছে বাংলাদেশে৷ সাঈদীর সমর্থক কিংবা তাঁর বিরুদ্ধে আন্দোলনরত কোনো পক্ষই আদালতের আদেশে দৃশ্যত সন্তুষ্ট নয়৷ টুইটারে চলছে ‘ফ্রি সাঈদী’ ও ‘হ্যাং সাঈদী’ ক্যাম্পেইন৷

Bangladesch Dhaka Gericht Kriegsverbrechen Delwar Hossain Sayeedi Protest gegen Urteil

সাঈদীর শাস্তি কমানোর প্রতিবাদে শাহবাগে আন্দোলনরতদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের অভিযান

বাংলাদেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বলতে মূলত ফেসবুককেই বিবেচনা করা হয়৷ তবে বুধবার দেখা যাচ্ছে ভিন্ন চিত্র৷ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত জামায়াত নেতা সাঈদীর শাস্তি বদলের খবরে অনেকে সোচ্চার টুইটারে৷ গত ২৪ ঘণ্টায় (জার্মান সময় বুধবার দুপুর একটা পর্যন্ত) ইংরেজিতে ‘ফ্রি সাঈদী' হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে টুইট করা হয়েছে প্রায় চারশো'র মতো৷ পাশাপাশি হ্যাশট্যাগ হিসেবে শুধু ‘সাঈদী' ব্যবহার হয়েছে প্রায় তিনশো বার৷ আরো যে হ্যাশট্যাগটি অনেকে ব্যবহার করছেন সেটি হচ্ছে ‘হ্যাং সাঈদী'৷

শাস্তি কমানোর আগে, পরে

একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তির দাবিতে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার টুইটারে অত্যন্ত সক্রিয়৷ আপিল বিভাগ সাঈদীর শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বদলে আমৃত্যু কারাদণ্ড ঘোষণার আগে ইমরান টুইটারে ইংরেজিতে লিখেন, ‘‘গত ৪৩ বছর ধরে আমরা বিচারের অপেক্ষায় আছি৷ একাত্তরে গণহত্যার বিচার৷ একাত্তরের নায়কদের সম্মান জানানোর এখনই সময়৷''

ইমরানের এই পোস্ট পুনরায় টুইট করা হয়েছে ৫৮ বার৷ আর ‘ফেভারিটের' তালিকায় যোগ হয়েছে ৩৬ বার৷ তবে আপিল বিভাগ রায় ঘোষণার পর কোনো টুইট করেননি শাহবাগ আন্দোলনের সঙ্গে শুরু থেকে সম্পৃক্ত ইমরান৷

কমিউনিটি বাংলা ব্লগ আমার ব্লগের অন্যতম অ্যাডমিন সুশান্ত দাস গুপ্ত আদালতের রায় ঘোষণার আগে টুইটারে লিখেছেন, ‘‘হ্যাংসাঈদী৷ নো এক্সকিউজ প্লিজ৷''

বলাবাহুল্য, আদালতের আদেশে সুশান্ত-র প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটেনি৷ বুধবার রায় ঘোষণার পর তিনি ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইমস স্ট্রাটেজি ফোরামের (আইসিএসএফ) প্রকাশিত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পোস্ট করেছেন৷

সাঈদীর শাস্তি কমানোর আদেশের বিরোধীতা করে শাহবাগে জনতা সমবেত হতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়৷ প্রতিবাদকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার গ্যাস, রাবার বুলেট ও জল কামান ব্যবহার করে পুলিশ৷ সালাউদ্দিন ইউসূফ নামক একজন টুইটার ব্যবহারকারী এসংক্রান্ত একটি ছবি পোস্ট করেছেন৷

‘ফ্রি সাঈদী' ক্যাম্পেইন

এদিকে, থেমে নেই ‘ফ্রি সাঈদী' হ্যাশট্যাগ ব্যবহারকারীরাও৷ জামায়াতে ইসলামীর অনলাইন প্রচারণার সঙ্গে সম্পৃক্ত ‘বাঁশেরকেল্লা'-র একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এই রায়ে হতাশা প্রকাশ করা হয়েছে৷ টুইট পোস্টে দাবি করা হয়েছে, ‘‘ইসলামের জন্য জীবন উৎসর্গ করা একজন মানুষের সঙ্গে অবিচার করা হয়েছে৷''

বাংলা ভাষাতেই টুইটারে মন্তব্য করছেন অনেকে৷ তবে এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত মতামতের চেয়ে বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদের লিংক শেয়ার করা হয়েছে বেশি৷

শাহবাগ আন্দোলনের সঙ্গে সম্পৃক্ত অ্যাক্টিভিস্ট আজিজা আহমেদ পলা সাঈদীর শাস্তি কমানোর ঘোষণার পর ব্যঙ্গ করে লিখেছেন, ‘‘কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর ফিরায়ে নেয়া হোক৷''

উল্লেখ্য, একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে গত বছরের ২৮শে ফেব্রুয়ারি সাঈদীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেয় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১৷ কিন্তু এবার, আপিল বিভাগের রায়ে সাঈদী সেই মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই পেলেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন