1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

টিকরিটে গণকবর আবিষ্কার হিংসার প্রকৃত মাত্রার প্রতিফলন

ইরাকের টিকরিট শহরে গণকবর আবিষ্কারের খবর সামাজিক মাধ্যমগুলোতে যথেষ্ট গুরুত্ব পাচ্ছে৷ শহরটিকে ঘিরে আইএস, বিভিন্ন সুন্নি গোষ্ঠী ও শিয়া মিলিশিয়া বাহিনীর তৎপরতা নিয়ে অনেক মন্তব্য চোখে পড়ছে৷

একদিকে মার্কিন নেতৃত্বে কোয়ালিশন বাহিনী, অন্যদিকে ইরান সমর্থিত শিয়া বাহিনীর সহায়তায় তথাকথিত ইসলামিক স্টেট-এর হাত থেকে টিকরিট শহরের নিয়ন্ত্রণ ছিনিয়ে নিয়েছে ইরাকি বাহিনী৷ যদিও বিভিন্ন সূত্র অনুযায়ী টিকরিট থেকে আইএস পুরোপুরি নির্মূল হয় নি৷ এরই মধ্যে সেখানে গণকবর আবিষ্কারের ঘটনা হিংসার প্রকৃত মাত্রা সম্পর্কে একটা ধারণা দিচ্ছে৷ ইরাকের তরুণ অ্যাক্টিভিস্ট মেহদি আল-বায়াটি মনে করেন, আইসিস-এর এই অপরাধ ভোলা উচিত নয়৷

সংবাদ মাধ্যম সিএনএন-এর সাংবাদিক আরওয়া ড্যামন গণকবর আবিষ্কারের পর উদ্ধারকারীদের বিহ্বলতা তুলে ধরেছেন৷ এমন জঘন্য অপরাধের চিহ্ন দেখে মানুষ থমকে গিয়েছে, অনেকের চোখে অশ্রু দেখা গেছে৷

মানবাধিকার সংগঠনগুলি সার্বিকভাবে টিকরিট-কে ঘিরে বিভিন্ন পক্ষের স্বার্থের সংঘাতের একটা চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করছে৷ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশানাল-এর উপদেষ্টা ডোনাটেলা রোভেরা সংবাদ সংস্থা রয়টার্স-এর একটি প্রতিবেদন শেয়ার করে আইএস-এর প্রতি শিয়া মিলিশিয়া বাহিনীর প্রতিহিংসার দৃষ্টান্ত তুলে ধরেছেন৷

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ-এর প্রতিনিধি জিম মার্ফি ইরাকে আতঙ্ক ও প্রতিহিংসার চিত্র তুলে ধরেছেন৷

সুদূর পেরু থেকে জোসেফ ডাসান নিউ ইয়র্ক টাইমস-এ প্রকাশিত একটি মানচিত্র শেয়ার করে মনে করিয়ে দিয়েছেন, যে টিকরিট হাতছাড়া হওয়া সত্ত্বেও আইএস এখনো ইরাকের একটা বড় অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে৷

সংকলন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়