1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

টাইগাররা তাহলে জিতল!

আগের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল মাত্র ৫৮ রান৷ এমন লজ্জার হার কারোরই প্রত্যাশিত ছিলনা৷ কিন্তু আজ, মানে শুক্রবার বন্দর নগরে টাইগাররা যা দেখালো তাই বা কতজন আশা করেছিল?

default

ম্যাচ জুড়েই এমন মারমুখী ছিল টাইগাররা

বলতে পারেন, প্রত্যাশার পারদ সবারই উপরে ছিল৷ হয়তো সত্যি, কিন্তু এভাবে খোঁড়াতে খোঁড়াতে জয় ছিনিয়ে নেবে বাংলাদেশ, তাও আবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে! জ্বি, সেটাই হয়েছে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে৷

বরাবরের মতোই টসে জেতেন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল-হাসান৷ কিন্তু ব্যাটিং নয়, বেছে নেন ফিল্ডিং৷ শুরুতে ব্যাট করে ইংল্যান্ড সংগ্রহ করেছে ২২৫ রান৷ ৪৯ দশমিক ৪ ওভারে অল-আউট হয় ইংলিশরা৷ তবে সেদলের ইনিংসের শুরুর দিকেই আঘাত হানে টাইগাররা৷

দলীয় ৫৪ রানের মাথায় আউট হন প্রথম সারির ব্যাটসম্যান এ্যান্ড্রু স্ট্রাউস, জেমস প্রিয়র এবং ইয়ান বেল৷ এরপর অবশ্য ইংলিশদের হাল ধরেন জোনাথন ট্রট এবং ইয়ান মর্গেন৷ এই জুটি ১০৯ রান সংগ্রহ করে ইংল্যান্ডকে সম্মানজনক স্কোরের পথে অনেকটাই এগিয়ে দেয়৷ ট্রট এর ব্যক্তিগত সংগ্রহ ৬৭, অন্যদিকে মর্গান করেন ৬৩ রান৷ ইংলিশদের আর কোন ব্যাটসম্যান বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি৷

Bangladesch Cricket World Cup 2011 England v Bangladesh Flash-Galerie

এক পর্যায়ে সম্ভাবনা জাগিয়েছিল ইংলিশ বোলাররা

স্বাগতিকদের বোলাররা কমবেশি সবাই সাফল্য পেয়েছেন৷ অলরাউন্ডার নাইম ইসলাম মাত্র ৮ ওভার বল করে ২৯ রান খরচায় ২ উইকেট তুলে নেন৷ আব্দুর রাজ্জাক এবং সাকিব আল-হাসানও হাত ঘুরিয়ে সংগ্রহ করেন দুটি করে উইকেট৷

জবাবে এই বিশ্বকাপের অন্যতম আয়োজক দেশ বাংলাদেশ শুরুতে নান্দনিক ব্যাটিং উপহার দিয়েছে৷ ইংলিশ বোলারদের তুলাধুনা করে আট ওভারে ৫২ রান করে উদ্বোধনী জুটি৷ এরপর নিজের এলাকার মাঠে ৩৮ রানে আউট, মানে ইংলিশদের বোলার টিম ব্রেসনান বিদায় করেন তামিমকে৷ অল্প বিরতিতেই আউট হন জুনায়েদ সিদ্দিকী এবং রাকিবুল হাসান৷ মাঠে আসেন সাকিব আল-হাসান, জুটি বাঁধেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস এর সঙ্গে৷ ব্যক্তিগত ৬০ রানের মাথায় ইমরুল আউট হওয়ার আগ পর্যন্ত এই জুটির সংগ্রহ ৮২ রান৷

এরপর কিছুক্ষণের জন্য বাংলাদেশের চিত্র অনেকটা আগের ম্যাচের মতই৷ মানে আশা-যাওয়ার শুরু৷ দলীয় ১৫৫ রান থেকে ১৬৯ অবধি যেতে যেতেই বাংলাদেশের আট উইকেট হাওয়া৷ শেষে যখন পরাজয়ের প্রহর গুনছে দর্শকরা তখনই, হাল ধরেন মাহমুদুল্লাহ এবং শফিউল ইসলাম৷ নবম উইকেট জুটির ৫৮ রান জয় এনে দেয় টাইগারদের, বাংলাদেশের সংগ্রহ ২২৭৷

ইংলিশ বোলারদের মধ্যে বিশেষ সাফল্য দেখান আজমল শাহজাদ৷ ৪৩ রান খরচায় ১০ ওভারে তিন উইকেট তুলে নেন তিনি৷ এছাড়া গ্রেম সোয়ান এর সংগ্রহ ৪২ রান খরচায় দুই উইকেট৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়