1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ঝটিকা সফরে ইসলামাবাদে ক্লিন্টন ও মালেন

বিন লাদেনের মৃত্যুর পর এবার পাকিস্তান সফরে গেলেন দুই শীর্ষ মার্কিন রাজনৈতিক ও সামরিক কর্মকর্তা৷ ইসলামাবাদ পৌঁছেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন এবং জয়েন্ট চিফস অফ স্টাফ এর চেয়ারম্যান অ্যাডমিরাল মাইক মালেন৷

default

ফাইল ছবি

শুক্রবারের এই ঝটিকা সফরে পাকিস্তানি প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারি, সেনা প্রধান জেনারেল আশফাক কায়ানি এবং গোয়েন্দা প্রধান আহমদ সুজা পাশার সাথে তাঁরা বৈঠক করবেন বলে আশা করা হচ্ছে৷ এসময় পাকিস্তানে ওসামা বিন লাদেনের গোপন উপস্থিতি এবং মার্কিন গোপন অভিযানে তাঁকে হত্যা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সাম্প্রতিক সম্পর্ক ঘাটতি দূর করার চেষ্টা করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

হিলারি ক্লিন্টনের সাথে পাকিস্তান সফরে আসা মার্কিন এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ‘‘তাঁরা এমন কিছু কঠিন প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার চেষ্টা করছেন যেগুলো পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষ পূর্বে হয় এড়িয়ে গেছে নতুবা খুবই অপ্রতুল জবাব দিয়েছে৷'' তিনি আরো বলেন, ‘‘তাঁরা বরাবরই সহযোগিতা করে আসছে৷ তবে আমরা তার চেয়ে আরো বেশি কিছু চেয়েছি৷ এছাড়া বর্তমানে এর গুরুত্ব আরো কিছুটা ভিন্ন মাত্রার৷ আমাদের এখন দেখতে হবে যে, তাঁরা আসলে কতোটা প্রস্তুত৷ যদিও তাঁদের বিবেচনায় তাঁরা ইতিমধ্যে অনেক এগিয়েছে৷'' ওসামা বিন লাদেনকে হত্যার উদ্দেশ্যে মার্কিন বিশেষ বাহিনীর গোপন অভিযানের প্রসঙ্গ টেনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘বিন লাদেন অভিযান বেশ কিছু সুযোগ এবং একইসাথে ঝুঁকির জন্ম দিয়েছে৷ এখন আমাদের প্রচেষ্টা হবে ঝুঁকির মাত্রা কমানো এবং সুযোগের ক্ষেত্র বাড়িয়ে তোলা৷''

এদিকে, ক্লিন্টন ও মালেনের সফরের মুখে শোনা গেছে মার্কিন ও পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকটি সহযোগিতামূলক অগ্রগতির কথা৷ এর মধ্যে একটি হলো ওসামার বাসভবনে অভিযানের সময় বিধ্বস্ত হওয়া মার্কিন হেলিকপ্টারের লেজের দিকটা ফেরত দিতে রাজি হয়েছে ইসলামাবাদ৷ এছাড়া মার্কিন চিকিৎসক, আইন বিশারদ এবং গোয়েন্দাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি প্রতিনিধি দলকে ওসামার অ্যাবোটাবাদের বাড়ি পুনরায় ঘুরে দেখতে এবং বিন লাদেনের স্ত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করারও সুযোগ দিতে রাজি হয়েছে পাকিস্তান৷ অবশ্য উল্টোদিকে, পাকিস্তানে নিয়োজিত মার্কিন সামরিক প্রশিক্ষকদের সংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে জারদারি প্রশাসন৷ ফলে ক্লিন্টনের আজকের সফরে এসব বিষয় নিয়ে কিছুটা অগ্রগতির প্রত্যাশা করছে উভয়পক্ষ৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: জান্নাতুল ফেরদৌস