1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘জয়’ দাবি সিরিয়ার, যুক্তরাষ্ট্রের হুমকি

রাসায়নিক গ্যাস ছুড়ে শত শত মানুষ হত্যার ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশিত হতে চলেছে জাতিসংঘে৷ তার আগেও সিরিয়া আর যুক্তরাষ্ট্র বিপরীত মেরুতে৷ সিরিয়া মনে করে, রাশিয়ার সহায়তায় ‘জয়' হয়েছে তাদের৷ যুক্তরাষ্ট্র দিয়েছে পাল্টা হুমকি৷

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠক শেষে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি জানিয়েছেন, রাশিয়ার সঙ্গে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রনিরোধ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার মানেই এই নয় যে, হামলার সম্ভাবনা একেবারে শেষ৷ জেরুসালেমের এ বৈঠক শেষ করে প্যারিসে যাবার আগে কেরি বলেছেন, ‘‘শক্তি প্রয়োগের হুমকি এখনো রয়েছে এবং সেই হুমকিটা বাস্তব৷''

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর প্যারিসে ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী ফ্রঁসোয়া ওলঁদের সঙ্গেও বৈঠক করেন কেরি৷ সেখানে ওলঁদ বলেছেন, রুশ এবং মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর করা চুক্তি সংকট নিরসনের পথে ‘ গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ', তবে ‘সেটাই শেষ কথা নয়৷'

Genf Beratungen zu Syrien

জেনেভায় সিরিয়া বিষয়ক আলোচনা

শনিবার জেনেভায় রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ এবং যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধ প্রক্রিয়ার প্রস্তাবিত চুক্তি স্বাক্ষর করেন৷ চুক্তি অনুযায়ী আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সিরিয়াকে রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধ প্রক্রিয়ার খুঁটিনাটি জানাতে হবে৷ আরেক শর্তে বলা হয়েছে, সিরিয়াকে সকল রাসায়নিক অস্ত্রের মজুদ দেখার জন্য বিশেষজ্ঞ পরিদর্শকদের অনুমতি দিতে হবে৷ নভেম্বরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র মজুদ নেটওয়ার্কের সঙ্গে সম্পর্কিত যে ৪৫টি স্থানের কথা বলেছে, সেগুলোর পরিদর্শনের কাজও শেষ করতে হবে৷

সিরিয়া তাতে রাজি৷ সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলি হায়দার বলেছেন, রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধ চুক্তি সিরিয়ার জন্য ‘জয়' বয়ে এনেছে, কারণ ‘‘এটি একদিকে সিরিয়াকে চলমান সংকট থেকে বেরিয়ে আসার সুযোগ করে দিয়েছে, অন্যদিকে এটি সিরিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধের সম্ভাবনা শেষ করারও পথ করেছে৷'' এর পেছনে রাশিয়ার কৃতিত্বকে স্বীকার করে রুশ সংবাদ সংস্থা রিয়া নভোস্তিকে আলি হায়দার বলেছেন,‘‘ সব কিছুর জন্য আমাদের রুশ বন্ধুদের ধন্যবাদ৷''

এদিকে সোমবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ২১শে আগস্ট দামেস্কের সেই রাসায়নিক গ্যাস ছোড়ার অভিযোগ তদন্তের প্রতিবেদন পেশ করা হচ্ছে৷ প্রতিবেদন পেশ করবেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন৷ এই প্রতিবেদন সিরিয়া সংকটের ভবিষ্যতে বেশ প্রভাব ফেলবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে৷

এসিবি/এসবি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়