1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘জ্যাক দ্য রিপার' আসলে কে, তা কি জানা গেছে?

এখন পর্যন্ত একশোরও বেশি মানুষকে সিরিয়াল কিলার ‘জ্যাক দ্য রিপার' মনে করা হয়েছে৷ সম্প্রতি একটি বইয়ে আসল হত্যাকারীকে খুঁজে পাওয়ার দাবি করা হয়েছে৷ তবে সেটা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন কেউ কেউ৷

১৮৮৮ সালের কথা৷ একে একে কমপক্ষে পাঁচজন নারীকে খুন করেন এই হত্যাকারী৷ ঘটনাস্থল লন্ডনের হোয়াইটচ্যাপেল এলাকা৷ সাধারণত যৌনকর্মীরাই তাঁর শিকার হয়েছিলেন৷

এই খুনের ঘটনাগুলো নিয়ে কম আলোচনা হয়নি তখন৷ লেখা হয়েছে অনেক বই৷ তৈরি হয়েছে অনেক মুভি৷ ফলে ইতিহাসের অন্যতম চরিত্র এই ‘জ্যাক দ্য রিপার'৷

উত্তর লন্ডনের ব্যবসায়ী রাসেল এডওয়ার্ডসের লেখা ‘নেমিং জ্যাক দ্য রিপার' নামে একটি বই মঙ্গলবার প্রকাশিত হয়েছে৷ তাতে দাবি করা হয়েছে যে, এই হত্যাকারীর নাম অ্যাডাম কসমিনস্কি৷ তিনি পোল্যান্ড থেকে আসা এক ইহুদি ছিলেন৷ পুলিশের খাতায় সম্ভাব্য হত্যাকারী হিসেবে তাঁর নামটি ছিল৷

ডিএনএ প্রযুক্তি

বইয়ের লেখক এডওয়ার্ডস ২০০৭ সালে নিলাম থেকে একটি শাল কেনেন৷ রক্তমাখা এই শালটি জ্যাক দ্য রিপারের চার নম্বর খুনের ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ সংগ্রহ করেছিল৷

Bildergalerie Jack the Ripper Opfer

একটি বইয়ে আসল হত্যাকারীকে খুঁজে পাওয়ার দাবি করা হয়েছে

পরে ঐ পুলিশের বংশধরদের কাছ থেকে শালটি কেনেন এডওয়ার্ডস৷ শালটি সংগ্রহ করার পর কখনো ধোয়া হয়নি৷ একটি বক্সে রাখা ছিল সেটি৷ এডওয়ার্ডস শালের গায়ে লেগে থাকা রক্ত পরীক্ষা করে কসমিনস্কিকে খুনি হিসেবে চিহ্নিত করেন৷

শালটি পুলিশ যেখান থেকে পেয়েছিল সেখানে খুন হয়েছিলেন ক্যাথরিন এডোওয়েস৷ শালের রক্ত থেকে পাওয়া নমুনা সম্ভাব্য খুনি কসমিনস্কি আর খুন হওয়া এডোওয়েসের বংশধরদের রক্তের নমুনার সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হয়েছে৷ এরপরই কসমিনস্কিকে জ্যাক দ্য রিপার হিসেবে ঘোষণা করেন লেখক এডওয়ার্ডস৷

আরও গবেষণা

তবে এডওয়ার্ডসের এই দাবির বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন কেউ কেউ৷ এর মধ্যে একজন অধ্যাপক আলেস জেফ্রিস৷ ৩০ বছর আগে তিনিই ডিএনএ ফিঙ্গারপ্রিন্ট প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছিলেন৷ তিনি বলছেন এডওয়ার্ডস যে কাজ করেছেন সেটা অবশ্যই প্রশংসাযোগ্য৷ তবে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হতে আরও গবেষণা প্রয়োজন৷

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন