1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

‘জোটসঙ্গীদের উপর আর আস্থা রাখা যাচ্ছে না'

সহজে বিচলিত হন না, হলেও তা প্রকাশ করেন না৷ কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে পর পর কয়েকটি বৈঠকের পর আঙ্গেলা ম্যার্কেল বললেন, কারো উপর ভরসা করলে চলবে না, ইউরোপকে তার দায়দায়িত্ব সামলাতে হবে৷

ন্যাটো, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জি-সেভেন শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেবার পর জার্মান চ্যান্সেল আঙ্গেলা ম্যার্কেল বাভেরিয়ায় এক তাঁবুর মধ্যে জনসভায় বক্তব্য রাখছিলেন৷ আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের আগে তিনি ইউনিয়ন শিবিরের হয়ে প্রচারে মন দেবেন, এমনটাই ভেবেছিলেন উপস্থিত প্রায় ২,৫০০ দর্শক৷ কিন্তু গত কয়েক দিনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বার বার সাক্ষাতের পর তিনি তাঁর মনের কথা খুলে বললেন৷ বিশেষ করে জলবায়ু পরিবর্তনের মোকাবিলাসহ একাধিক বিষয়ে ট্রাম্প বেঁকে বসায় তিনি চরম বিরক্ত৷ ন্যাটো, ইইউ ও জি-সেভেন মঞ্চে ঐকমত্যের পথে বর্তমান মার্কিন প্রশাসন পর পর বাধা সৃষ্টি করায় জোটসঙ্গী হিসেবে অ্যামেরিকার নির্ভরযোগ্যতা এক ধাক্কায় অনেকটা কমে গেছে – পরোক্ষভাবে সেটাই বুঝিয়ে দিলেন ম্যার্কেল৷

সরাসরি ট্রাম্পের উল্লেখ না করেই ম্যার্কেল বলেন, একটা সময় ছিল যখন অন্যদের উপর পুরোপুরি নির্ভর করা যেত৷ গত কয়েক দিনের অভিজ্ঞতার পরতাঁর মনে হচ্ছে, এখন আর সেটা সম্ভব নয়৷ এই অবস্থায় ইউরোপীয়দের সামনে একটি পথ খোলা আছে৷ অর্থাৎ নিজেদের দায়দায়িত্ব নিজেদের হাতেই তুলে নিতে হবে৷ এ প্রসঙ্গে তিনি ব্রেক্সিটের পর জোটসঙ্গী হিসেবে ব্রিটেনের দুর্বল অবস্থানেরও উল্লেখ করেন৷ নাম করে অ্যামেরিকা ও ব্রিটেন সম্পর্কে ম্যার্কেল বলেন, এই দুই দেশের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় থাকবে৷

জার্মানির আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে ম্যার্কেলের প্রতিদ্বন্দ্বী এসপিডি দলের মার্টিন শুলৎস-ও এ বিষয়ে ম্যার্কেলের সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন৷ তিনি বলেন, ইউরোপই এই সংকটের জবাব হতে পারে৷ ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলির মধ্যে সব স্তরে আরও নিবিড় সহযোগিতাই হবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি জবাব৷ উল্লেখ্য, ট্রাম্প সম্পর্কে শুলৎসের মনোভাব কারো অজানা নয়৷

অ্যামেরিকা আর তার জোটসঙ্গীদের নেতৃত্ব দিতে পারছে না, ম্যার্কেলের মতো নেতার মুখে এমন মন্তব্য শুনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে৷ এর ফলে ট্রাম্প প্রশাসন আরও চাপের মুখে পড়ছে৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়