1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

জৈব জ্বালানি চালু করে বিপাকে জার্মানি

জার্মানির গাড়ি চালকরা আগে থেকেই সুপার এবং সুপার প্লাস নামের জ্বালানি ব্যবহারে অভ্যস্ত৷ তবে পরিবেশের উপর নেতিবাচক প্রভাব হ্রাসে সম্প্রতি সুপার ই১০ নামের জ্বালানি চালু করে সরকার৷

default

নতুন এই সুপার ই১০ জ্বালানির ৯০ শতাংশ সুপার এবং ১০ শতাংশ জৈব জ্বালানি৷ কিন্তু ৭০ শতাংশ জার্মান গাড়ি চালকের আশঙ্কা, এই জ্বালানি তাদের গাড়ির ইঞ্জিনের মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে৷ আর সেই ভয়েই তাঁরা জানিয়ে দিচ্ছেন, কখনই সুপার ই১০ কিনবেন না৷ জার্মান পেট্রোলিয়াম শিল্প-কারখানাগুলোর সমিতি এমডাব্লিউভি'র পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে এই তথ্য৷

এতে আরো বলা হয়েছে, চালকরা বলছেন যে তাঁরা বরং বেশি দাম দিয়ে হলেও সুপার এবং সুপার প্লাস ব্যবহার করবেন৷ এই প্রেক্ষিতে সুপার এবং সুপার প্লাস জ্বালানির চাহিদা হঠাৎ করে এতোটাই বেড়ে গেছে যে, গ্যাস স্টেশনগুলোতে এখন এই দুই ধরণের জ্বালানির সংকট দেখা দিয়েছে৷ সারা জার্মানিতে থাকা প্রায় ১৫ হাজার গ্যাস স্টেশনের অনেকেই জানিয়ে দিয়েছে তাদের সংকটের কথা৷ এমনকি বেশ কিছু স্টেশনে সুপার প্লাস জ্বালানি একেবারে ফুরিয়ে গেছে৷ এমতাবস্থায় জার্মান চালকদের প্রতি আবারও জৈব জ্বালানি সুপার ই১০ ব্যবহারের আহ্বান জানিয়ে এমডাব্লিউভি বলেছে, এই জ্বালানি শুধুমাত্র অল্প কিছু গাড়ির ক্ষতি করে৷

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, জার্মান সড়কে যেসব গাড়ি চলাচলের অনুমতি রয়েছে সেগুলোর ৯৩ শতাংশ গাড়িতেই সুপার ই১০ ব্যবহার করা যাবে এবং তাতে কোন ক্ষতির আশঙ্কা নেই৷ তবে জৈব জ্বালানি নিয়ে এই সংকটে বিপাকে পড়েছে সরকারও৷ তাই বিষয়টি খতিয়ে দেখে এর সুষ্ঠু সমাধানে জরুরি বৈঠক ডেকেছে অর্থনীতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়৷ এই দপ্তরের মন্ত্রী রাইনার ব্রুডের্লে নিজেও স্বীকার করেছেন যে, ‘‘এ ব্যাপারে শিল্প-কারখানা এবং ভোক্তা উভয় পক্ষের মধ্যে স্পষ্টতা খুবই জরুরি৷''

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়