1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

জেলেদের খাদ্য সহায়তা : ছয় বছরে ১২ হাজার কোটি টাকার বাড়তি ইলিশ

এবার ইলিশ রক্ষায় ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ সরকার৷ জাটকা রক্ষা কর্মসূচির পরিধি বাড়ানো হয়েছে৷ জাতীয় মাছের আকার একটি নির্দিষ্ট মাপের না হওয়া পর্যন্ত মাছ শিকার করা যাবে না৷

default

ইলিশ মাছ ধরছে জেলেরা

ইলিশ মূলত সামুদ্রিক৷ তবে প্রজনন ও খাদ্যের উদ্দেশ্যে এরা জীবনের বেশি রভাগ সময় মোহনাজল ও স্বাদু পানির নদীতে কাটায়৷ বাংলাদেশে তিন প্রজাতির ইলিশ পাওয়া যায়৷ এগুলো হলো পদ্ম ইলিশ, চান্দিনা ইলিশ ও গুর্তা ইলিশ৷ এই তিন প্রজাতির মধ্যে একমাত্র পদ্ম ইলিশই পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা নদীতে আসে৷ অন্য দুই প্রজাতি কখনই সমুদ্র থেকে নদীতে আসে না৷ ইলিশ বছরে এক থেকে দুইবার প্রজননে অংশ নেয়৷

প্রধান প্রজননকাল দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু প্রবাহ শুরুর সময় থেকে শীতের শুরু অর্থাৎ নভেম্বর পর্যন্ত৷ দ্বিতীয় প্রজননকাল শীতের শেষে অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত৷ একটি মা ইলিশ এক প্রজনন ঋতুতে আড়াই থেকে ষোল লক্ষ পর্যন্ত ডিম দেয়, যা মাছের ওজন, আকৃতি, প্রজননকাল ও স্থানের পরিবেশের উপর নির্ভরশীল৷

ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত ইলিশ উৎপাদনের মৌসুম৷ আর এ সময়ই ধরা হয় জাটকা বা পোনা ইলিশ৷ ফলে বড় ইলিশের অভাব হয় ঘোর মৌসুমে৷ এ কারণে জাটকা নিধন থেকে বিরত রাখার লক্ষ্যে সরকার গরিব জেলেদের পুনর্বাসনে ওই কার্যক্রম শুরু করেছে বাংলাদেশ সরকার৷ দেয়া হচ্ছে এই বিশেষ খাদ্য ও অর্থ সহায়তা৷

বাংলাদেশের মৎস মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, ইলিশ পাওয়া যায় এমন ১০ জেলার ৫৯ উপজেলায় এক লাখ ৬৪ হাজার ৭৪০ মৎস্যজীবী পরিবারের মধ্যে চলতি অর্থবছর থেকে পরিবার প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে খাদ্য সহায়তা দেয়া হচ্ছে৷ এতে ফেব্রুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত চার মাসের জন্য ১৯ হাজার ৭৬৮ দশমিক ৬০ মেট্রিক টন খাদ্য-শস্য বরাদ্দও দেয়া হয়েছে৷

জাটকা রক্ষা কর্মসূচি শুরু হয় ২০০৩-০৪ অর্থবছর থেকে৷ কর্মসূচি শুরুর আগে ২০০২-২০০৩ অর্থবছরে দেশে ইলিশের উৎপাদন ছিল এক দশমিক ৯৯ লাখ টন৷ ছয় বছরে এ কর্মসূচি বাস্তবায়নের ফলে গত ২০০৮-২০০৯ অর্থবছরে ইলিশ উৎপাদন দুই দশমিক ৯৮ লাখ টনে উঠেছে৷ চলতি বছর ইলিশের উৎপাদন তিন লাখ টন ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছে মন্ত্রণালয়৷

শুরুতে ইলিশ এলাকা বলে পরিচিত ১০টি জেলার ৫৯ উপজেলায় এক লাখ ৪৩ হাজার ২৫২ ইলিশ মৎস্যজীবী পরিবারের মধ্যে পরিবারপ্রতি ১০ কেজি করে মাসে খাদ্য সহায়তা দেয়া হতো৷ এ সহায়তা দেয়া হতো মাত্র তিন মাসের জন্য৷

সরকারি কর্মকর্তাদের ভাষ্য, সরকারিভাবে জাটকা রক্ষা কর্মসূচি গ্রহণ এবং জেলেদের খাদ্য সহায়তা দেয়ায় গত ছয় বছরে দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে চার দশমিক ৮৩ লাখ মেট্রিক টন বেশি ইলিশ পাওয়া গেছে৷ যার বর্তমান বাজার দর প্রায় ১২ হাজার ৭৫ কোটি টাকা৷

প্রতিবেদন : সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়