1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

জেলবন্দি পানাহি আসতে পারলেন না, তাঁর চেয়ার শূণ্য রাখল কান

মুক্তি পাচ্ছেন না জাফর পানাহি৷ ইরানের এই প্রতিভাবান চলচ্চিত্র নির্মাতাকে জেলবন্দি করে রেখেছে তেহরান প্রশাসন৷ বিশেষ আমন্ত্রণ পেয়েও কান চলচ্চিত্র উত্সবে গরহাজির তিনি৷

default

ডান পাশের শূণ্য আসনটি পানাহির জন্য

বিশ্বের অন্যতম প্রধান চলচ্চিত্র উত্সব, কান-এ এ'বছর জুরিবোর্ডের সদস্য হিসেবে জাফর পানাহিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল৷ না, তিনি আসতে পারেন নি৷ ইরানের আহমাদিনেজাদ প্রশাসন পানাহিকে জেলবন্দি করেছে গত পয়লা মার্চ৷ অভিযোগ, গত বছর ইরানের বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচন এবং নির্বাচন পরবর্তী আন্দোলন নিয়ে ছবি বানাচ্ছিলেন পানাহি৷ তাঁকে রাখা হয়েছে কুখ্যাত ইভিন জেলে৷

বৃহস্পতিবার ৪৯ বছরের প্রতিভাবান ইরানি নির্দেশক জাফর পানাহির একটি ভিডিও ক্লিপ প্রদর্শন করেছে কান উত্সব৷ তিন মিনিটের সেই ভিডিওতে দেখা গেছে বছর তিনেক আগে টানা তিন ঘন্টা পানাহিকে যে জেরা করা হয়েছিল তারই অভিজ্ঞতা নিজের মুখে বলছেন পানাহি৷

Offside iranischer Regisseur Jafar Panahi Berlinale 2006 ausgezeichnet mit dem Silbernen Bären

জাফর পানাহি

মুক্তমনা নির্দেশক জাফর পানাহির গ্রেপ্তার নিয়ে মার্চের পর থেকেই সোচ্চার আন্তর্জাতিক মহল৷ কান-এর মত চলচ্চিত্র উত্সব তাঁকে জুরি হিসেবে এ বছর নির্বাচন করার পর তেহরানকে বিশেষ বার্তা পাঠিয়ে অনুরোধ করা হয়েছিল, মুক্তি দেওয়া হোক পানাহিকে৷ কিন্তু, তাতে চিঁড়ে ভেজেনি৷ কান চলচ্চিত্রের আসর তাই সাক্ষী থেকেছে একটি বিরল ঘটনার৷ গত বুধবার উত্সবের উদ্বোধনে দেখা গেছে, মঞ্চের ওপর একটি শূণ্য চেয়ার৷ যে চেয়ারে বসার কথা ছিল জেলবন্দি মানবাধিকারবাদী ইরানি নির্দেশক জাফর পানাহির৷ এভাবেই প্রতিকী প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্বের প্রথমসারির চলচ্চিত্র উত্সব৷

পানাহির মুক্তির দাবিতে বিশ্বজুড়ে যে জনমত গড়ে উঠছে, তাতে বৃহস্পতিবার যোগ দিলেন এবারের কান চলচ্চিত্র উত্সবে জুরিবোর্ডের প্রধান মার্কিন নির্দেশক টিম বার্টন৷ ফরাসি সরকারের তরফেও পানাহির মুক্তির জন্য বার্তা রাখা হয়েছে তেহরানের উদ্দেশে৷ ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বার্নার্ড কাউখনার এবং ফরাসি সংস্কৃতিমন্ত্রী ফ্রেডেরিক মিতেরঁ এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছেন, ‘ইরানের অন্যতম প্রধান এই নির্দেশককে এবারের কান উত্সবের সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার নির্বাচন করার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল৷ তাঁকে মুক্তি দেওয়া উচিত তেহরানের৷' প্রসঙ্গত, কান উত্সবের সেরা ছবির পুরস্কারের নাম ‘পালমে ডে ওর'৷ পানাহি এই উত্সবে যোগ দিতে পারলে তাঁর ওপরেই ভার পড়ত সেই সেরা ছবিটিকে বেছে নেওয়ার কাজে অন্য জুরিদের সহায়তা করার৷ এই পরিস্থিতিতে কান চলচ্চিত্র উত্সবের উদ্বেগ পানাহির মত একজন মানবতাবাদী চলচ্চিত্র নির্দেশকের জন্য স্পষ্ট হয়ে উঠেছে৷ তার প্রভাব কতটা হয়, সেটা অবশ্যই অনুধাবনের বিষয়৷

প্রতিবেদন- সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা - আরাফাতুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়