1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

জুয়াড়ি সামলাতে ভারতেও আসছে দুর্নীতি দমন সংস্থা

ক্রিকেট নয়, এবার ভারতের ফুটবলেও পাওয়া গেছে জুয়াড়ি তৎপরতার খবর৷ সঙ্গে সঙ্গে নড়েচড়ে বসেছে ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন, ফুটবলকে কলুষতামুক্ত রাখতে দুর্নীতিদমন কমিশন গঠনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন এক কর্মকর্তা৷

সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন (এআইএফএফ)-এর প্রধান নির্বাহী সুনন্দ ধর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকাকে এ কথা জানান৷ তিনি বলেন, ‘‘পুরো ব্যাপারটা ধোঁকা কিংবা বিচ্ছিন্ন কোনো প্রস্তাবও হতে পারে, তবে আমাদের এখনই সতর্ক হতে হবে৷’’ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে একটি দুর্নীতি দমন কমিশন গঠনের পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছেন তিনি৷

গত সপ্তাহে নতুন দিল্লিতে অনুষ্ঠিত এক কর্মশালায় উঠে আসে ভারতীয় পেশাদার লিগ ‘আই লিগ’-এর দল মুম্বই এফসি-কে এক ব্যবসায়ীর ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব দেয়ার খবর৷ ফিফা এবং ইন্টারপোলের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ঐ কর্মশালায় মুম্বই এফসি-র কর্মকর্তা অতুল বাগদানিয়া জানান, গত বছর এক ব্যবসায়ী তাঁর দলকে মালয়েশিয়ায় কয়েকটি প্রীতি ম্যাচ খেলার প্রস্তাব দেন৷ মালয়েশিয়ায় যাওয়া এবং প্রীতি ম্যাচ খেলার সময় সেখানে থাকার খরচ ওই ব্যবসায়ী দেবেন বলেও জানানো হয় তখন৷ পরবর্তীতে ফোনে আই লিগে পাতানো ম্যাচ খেলার কথাও বলা হয়৷ সুনন্দ ধর জানান, ম্যাচ পাতানোর কথা বলার সঙ্গে সঙ্গেই ওই ব্যবসায়ীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়৷

মালয়েশিয়ায় সম্প্রতি ম্যাচ পাতানোর কারণে একটি ক্লাবের পাঁচ জন খেলোয়াড় এবং তিন জন কর্মকর্তার প্রত্যেককে ২০ হাজার রিঙ্গিত (৬ হাজার ডলার) করে জরিমানা করে আজীবন নিষিদ্ধও করা হয়৷ ভারতের ফুটবলে অবশ্য ম্যাচ পাতানো বা জুয়াড়িদের তৎপরতার অভিযোগ আগে ওঠেনি৷ দেশটির সবচেয়ে জণপ্রিয় খেলা ক্রিকেটকেই এতদিন ম্যাচ পাতানো কেলেঙ্কারি ঘিরে রেখেছিল৷ এ অভিযোগে ২০০২ সালে আজীবন নিষিদ্ধ হন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক হানসি ক্রনিয়ে, ভারতের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দীন এবং পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক সেলিম মালিক৷ আরো কয়েকজন ক্রিকেটারকে তখন বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়৷ গত বছর আইপিএলকে কলঙ্কিত করেছে স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারি৷ এ অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ভারতের সাবেক টেস্ট ক্রিকেটার শান্তাকুমারণ শ্রীশান্তসহ তিন ক্রিকেটারকে সব ধরণের ক্রিকেটে আজীবন নিষিদ্ধ করা হয়েছে৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন