1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জি-টোয়েন্টি

জি-টোয়েন্টি সম্মেলন নিয়ে বেশি আশাবাদী নন ম্যার্কেল

জি-টোয়েন্টি সম্মেলনের আগে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা৷ তবে ম্যার্কেল জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইউরোপের বর্তমান নীতিগত ব্যবধান এক বৈঠকে সমাধান হবে না৷

সোমবার এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, ট্রাম্প এবং ম্যার্কেলের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তন, নারীর ক্ষমতায়ণ এবং বাণিজ্য ও বিশেষভাবে ইস্পাতের বাড়তি উৎপাদন ইস্যু নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে৷ ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছেন যে হামবুর্গ সম্মেলনকে একটি সাফল্যে পরিণত করতে জার্মান চ্যান্সেলর ম্যার্কেলকে সহায়তা করতে চান তিনি', লেখা হয়েছে বিবৃতিতে৷

দু'দিনব্যাপী জি-টোয়েন্টি সামিটের একদিন আগে হামবুর্গে তৃতীয়বারের মতো সাক্ষাৎ করবেন ট্রাম্প এবং ম্যার্কেল৷ ধারণা করা হচ্ছে, তাদের মধ্যকার আলোচনায় মুক্তবাণিজ্য, প্রতিরক্ষা বাজেট, অভিবাসন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের মতো ইস্যুতে ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে যে নীতিগত বিরোধ রয়েছে তা গুরুত্ব পাবে৷

ভিডিও দেখুন 01:05

হামবুর্গে জি-টোয়েন্টি: হাজারো মানুষের বিক্ষোভ

এর আগে গত মে মাসে ইউরোপে প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথমবারের মতো সফর করেন ট্রাম্প৷ সেসময় তিনি ইটালিতে জি-সেভেন সম্মেলনে এবং ব্রাসেলসে ন্যাটোর একটি বৈঠকে অংশ নেন৷ কিন্তু সেসময় ট্রাম্পের নীতিগত অবস্থান এবং বক্তব্যে বিস্মিত হন ইউরোপের নেতা৷ ম্যার্কেল পরবর্তীতে প্রকাশ্যেই জানান যে, ইউরোপ আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উপর ভরসা করতে পারছে না৷

গত সপ্তাহে ম্যার্কেল ইউরোপের অন্যান্য শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে ট্রাম্পের বিরোধিতা সত্ত্বেও জলবায়ু পরিবর্তন রোধে প্যারিস চুক্তি এবং মুক্তবাণিজ্য নীতি নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন৷ তবে ট্রাম্পের ‘আমেরিকা ফার্স্ট' নীতি এবং সংরক্ষণবাদ কৌশলের কারণে ম্যার্কেলের এই প্রত্যয় বাস্তবায়ন কঠিন হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ তিনি বলেন, ‘‘আমাদের মধ্যে ব্যবধান স্পষ্ট এবং সেটা আমি লুকাতে গেলে তা অসততা হবে৷ আমি সেটা করবো না৷''

ম্যার্কেল সোমবার সবাইকে সতর্ক করতে জানিয়েছেন যে, ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক এবং জি-টোয়েন্টি সামিটে সকলের সম্মতিতে প্রজ্ঞাপন প্রকাশ নিয়ে বেশি আশা না করাই ভালো৷ তিনি বলেন, ‘‘আমরা জানি আমেরিকার সরকারের অবস্থান কী এবং আমি আশা করছি না যে একটি দু'দিনের সম্মেলনে তাদের সেই অবস্থানের পরিবর্তন ঘটবে এবং প্রজ্ঞাপনে তার প্রতিফলন ঘটবে৷''

এআই/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়